ছাগল মোটাতাজাকরণ করার ৫টি পদ্ধতি - ছাগলের খাদ্য তালিকা জানুন

প্রিয় পাঠক, আপনি নিঃশ্চই ছাগল মোটাতাজাকরণ পদ্ধতি সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন। অথবা আপনি ছাগলের খাদ্য তালিকা সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন। তাই তো এই পোস্টটিতে এসেছেন। হ্যা বন্ধুগন আপনি সঠিক জায়গাতেই রয়েছেন। কারণ আজকের এই আর্টিকেলটিতে ছাগল মোটাতাজাকরণ পদ্ধতি সম্পর্কেই বিস্তারিত আলোচনা করা হবে।
ছাগল মোটাতাজাকরণ পদ্ধতি
আমরা সকলেই বাড়িতে অথবা বানিজ্যিক ভাবে ছাগল পালন করে থাকি। কিন্তু এই ছাগল যদি আপনি পালন করে লাভবান হতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে ছাগল মোটাতাজাকরণ পদ্ধতি সম্পর্কে জানতে হবে।

ভূমিকা

আজকের এই আর্টিকেলটি তে আমরা আলোচনা করতে চলেছি ছাগলের জন্য কোন ভিটামিন ঔষধগুলো ব্যাবহার করবেন। কিভাবে ছাগল খুব সহজেই মোটাতাজাকরণ পদ্ধতি ব্যাবহার করেই ছাগলকে মোটা করতে পারবেন। তার পাশি আপনি ছাগলকে কোন কোন খাবার প্রদান করবেন এই সকল কিছু সম্পর্কে।
যেহেতু আমরা সকলেই বাসা বাড়িতে ছাগল আপালন করে থাকি, কিন্তু সহজেই কিভাবে ছাগল খুব দ্রুত মোটা করা যায় সেই সম্পর্কে জানি না। আজকে আশা করছি আপনি এই গুলো সম্পর্কে সকল কিছু ক্লিয়ার ভাবে জানতে পারবেন। তো বন্ধুগণ চলুন এই বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা জেনে নেওয়া যাক।

ছাগলের ভিটামিন খাওয়ানোর নিয়ম

নিম্নে আমরা সকলেই ছাগলের জন্য কোন কোন ভিটামিন ঔষধ খাওয়াতে হবে সেই সম্পর্কে জানব। তবে আমাদের সকলকে এই ভিটামিন ঔষধ খাওয়ানোর নিয়ম গুলো সম্পর্কে অবগত হতে হবে। তো বন্ধুবান চলুন আমরা এখন সকলে ছাগলকে ভিটামিনের ঔষধ কিভাবে খাওয়াবেন তার নিয়ম গুলো সম্পর্কে জেনে নেই।

ছাগলকে ভিটামিন ঔষধ দেওয়ার ক্ষেত্রে সবসময় আমাদেরকে মনে রাখতে হবে ওষুধটি যেন রাতের বেলা দেওয়া হয়। তাহলে সেটি ছাগলের শরীরের জন্য সর্বাধিক কার্যকর হবে। রাতের বেলা যদি ছাগলকে ভিটামিন ঔষধ দেওয়া হয় তাহলে এটা সারারাতের ভেতর ছাগলে শরীরে ভালোভাবে প্রয়োগ হবে।

আপনি ছাগল অথবা গরুকে ভিটামিন ওষুধ খাওয়ার জন্য পড়বে সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ যে কথাটা আপনাকে মনে রাখতে হবে সেটা হল, ভিটামিন ঔষধটি প্রয়োগ করার পূর্বে তাকে অবশ্যই ডিওয়ার্মিং এবং লিভার টনিক দিতেই হবে।

একটি ছাগল অথবা গরুকে যখন ভিটামিন খাওয়াবেন সবার পূর্বে কাজ হবে সেই ছাগল অথবা গরুকে কৃমির ঔষধ খাওয়ানো। এর প্রধান কারণ হলো সেই ছাগলকে যদি কৃমির ওষুধ না খাওয়ানো হয় তাহলে সেটি স্বাগত বা গরু হোক না কেন বিভিন্ন ধরনের অসুস্থতায় ভুগতে পারে। তাই আমাদেরকে অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে ছাগলকে যেন ভিটামিন ওষুধ খাওয়ানো পূর্বে কৃমির ওষুধ খাওয়ানো হয়।

আমরা সকলেই এই বিষয় সম্পর্কে জেনে থাকবো যে, একটি ছাগলকে প্রতি ২ মাস অন্তর অন্তর কৃমির ঔষধ খাওয়ানো উচিত। তাই সেই অনুযায়ি অবশ্যই ছাগলকে কৃমির ঔষধ খাওয়াতে হবে। ছাগলকে যদি আপনি নির্দিষ্ট সময় অনুযায়ি কৃমির ঔষধ না খাওয়ান তাহলে সেই ছাগল বিভিন্ন ধরণে অসুস্থতায় ভুগতে পারে। এমনকি ছাগলে খাওয়ার রুচি ও কমে যেতে পারে। ছাগল ঘন ঘন মূত্র ত্যাগ করতে পারে।

ছাগলের ভিটামিন ঔষধ ।ছাগল মোটা করার ভিটামিন

আমরা তো সকলে ছাগল লালন-পালন করে থাকি কিছু টাকা উপার্জন করার উদ্দেশ্যে। আর এই ছাগল থেকে লাভবান হওয়ার জন্য অবশ্যই ছাগলকে মোটাতাজাকরণ করতে হবে। আর যদি মোটাতাজাকরণ করা না যায় তাহলে সেই ছাগল থেকে সহজে লাভবান হওয়া যাবে না। মোটাতাজাকরণ করার জন্য ছাগলের জন্য কিছু পরিমাণ ভিটামিন ওষুধ রয়েছে। এই সম্পর্কে আমরা এখন জানবো।

লিভার টনিকঃ প্রতিটি ছাগলের জন্য প্রাথমিক পর্যায়ের ভিটামিন ঔষধ হলো এই লিভারটনিক। এটা হল মূলত একটি ক্যালসিয়াম ভিটামিন ওষুধ। আপনি যদি প্রয়োজন মত সময় অনুযায়ী ছাগলকে এই ভিটামিন ক্যালসিয়াম না খাওয়ান তাহলে ছাগল ঘন ঘন অসুস্থ হতে পারে। আর ঘন ঘন অসুস্থ হওয়ার জন্য আপনার এই ছাগল সহজে মোটাতাজাকরণ করতে পারবেন না তাই এই ওষুধ সঠিক সময়ে খাওয়ানো উচিত।

এছাড়া আরো যে সকল ছাগলের ভিটামিন ঔষধ গুলো রয়েছে সেগুলো নামগুলো এখন আমরা জানবো।

রেনা ব্রিডার- RAna Breeder (premix) এটি হলো ছাগলের জন্য একটী পাউডার ঔষধ। যেটি আপনি খুব সহজেই ছাগলকে ধরে খাওয়াতে পারবেন।

Becevit Vet: এটি ও ছাগলের জন্যই একটি পাউডার ঔষধ।

বি কম ভেট (B Com Vet): এটি ছাগলের জন্য একটি সিরাপ ভিটামিন ঔষধ।

রেনাসল এডি৩ই (Renasol ad3e solution): এটি ছাগলের জন্য ব্যাবহৃত পাউডার ভিটামিন ঔষধ।

সিভিট ভেট (Cevit Vet): এই ঔষধটি ও ছাগলের জন্য পাউডার ঔষধ।
  • জিস ভেট (Zis Vet) সিরাপ
  • রেনা সি (Rena C Powder) পাওডার
  • রেনা বি+সি (Rena B+C) পাওডার

ছাগলের ভিটামিন ইনজেকশন - ছাগল মোটাতাজাকরণ ঔষধ

প্রতিটি ছাগলের জন্যই ভিটামিন ঔষধের পাশাপাশি ভিটামিন ইঞ্জেকশনও দেওয়া যেতে পারে। যদি দেখেন ভিটামিন ঔষধ ব্যবহার করে ছাগল সহজে মোটাতাজা হচ্ছে না তাহলে অবশ্যই আপনি একজন চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে ভিটামিনের ইনজেকশন ব্যবহার করতে পারবেন। কোন কোন ভিটামিন ইঞ্জেকশন গুলো ছাগলের জন্য সর্বাধিক কার্যকরী সেগুলোর চলুন নাম জেনে নেই।

ছাগলের জন্য ব্যাবহৃত ভিটামিন ইনজেকশানগুলো হলোঃ
  • রোনাসল এডি৩ই (Renasol ad3e injection)
  • বি৫০ ভেট (B50 Vet)
  • ইএস এডিই (Es-ADE)
ছাগল মোটা তাজা করানোর জন্য উপরে উল্লেখিত এই তিন ধরনের ভিটামিন ইঞ্জেকশনই ব্যবহার করা হয়। তবে অবশ্যই আপনি যখনই ইনজেকশনগুলো ব্যবহার করাবেন ছাগলকে তখন আপনি একজন অভিজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নেবেন। অন্যথায় সেটি আপনার হিতের বিপরীত হতে পারে।

ছাগল মোটাতাজাকরণ পদ্ধতি

একটি ছাগল কিভাবে খুব সহজে অনেক ভালো পরিমাণে মোটাতাজা করন করা যায় সেই বিষয়ে আমরা অনেকেই জানিনা। কিভাবে আপনি খুব সহজে একটি ছাগলকে মোটাতাজাকরণ করতে পারবেন সেটি সম্পর্কে এখন আমরা জানতে চলেছি। তাই মনোযোগ সহকারে পড়তে থাকুন। তাহলে আপনি খুব সহজে ছাগলের মোটা তাজা করন করতে পারবেন।
একটি ছাগল মোটাতাজাকরণ করার সবথেকে প্রথম যেটি কাজ সেটি হলো ছাগলকে কৃমি মুক্ত করা। আমরা সকলেই জানি একটি ছাগলকে প্রতি দুই মাস অন্তর অন্তর কৃমির ওষুধ খাওয়াতে হয়। তাই অবশ্যই আপনি প্রতি দুই মাস অন্তর অন্তর একটি ছাগলকে অ্যানথেলমিন্টিক্স যেটা কৃমির ঔষধ সেটি খাওয়ান।

এরপরে আপনাকে লক্ষ্য করতে হবে আপনার ছাগলটি সঠিকভাবে সুস্থ রয়েছে কিনা। যদি আপনার কোন ভাবে মনে হয়ে থাকে যা আপনার ছাগলটি অসুস্থ রয়েছে তাহলে অবশ্যই একজন অভিজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিন। সেই চিকিৎসকের কাছ থেকে চিকিৎসা নিতে হবে। তাই একটি ছাগলকে কৃমি মুক্ত করে সেই ছাগলকে সুস্থ করলে ছাগলটি খুব সহজেই একটি সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হবে।

ছাগলটি যখন পুরোপুরিভাবে সুস্থ হয়ে যাবে তখন উপরে দেখানো আপনাকে প্রথমেই ছাগলকে মোটাতাজাকরণ করার জন্য ভিটামিন ইঞ্জেকশন দিতে হবে। এরপরে আপনাকে সঠিক সময়ে সঠিকভাবে খাবার দিতে হবে। ছাগলকে কোন কোন খাবার কতটুকু পরিমাণ এবং কি জাতীয় খাবার খাওয়াতে হবে সে সম্পর্কে আপনি একটু পরে জানতে পারবেন।

একটি ছাগলকে যদি আপনি পুরোপুরি সুস্থ না করিয়ে নিয়ে অতিরিক্ত পরিমাণে খাবার খাওয়ান তাহলে সেই খাবারগুলো আপনার অপচয় হবে। এতে ছাগলের জন্য কোন কাজে আসবে না। কারণ সেই খাবারগুলো যদি আপনি একজন সুস্থ ছাগলকে খাওয়ান তাহলে তার অবস্থার অবশ্যই উন্নতি হবে। কিন্তু অসুস্থ ছাগলের ক্ষেত্রে অবশ্যই তার বিপরীত হবে।

এছাড়া ছাগলকে খাওয়ানোর ক্ষেত্রে প্রতিদিন কাঁচা ঘাস এবং দানা খাবার পর্যাপ্ত পরিমাণে সংগ্রহ করতে হবে। প্রতি সপ্তাহের সাত দিনে অন্তত পক্ষে তিন দিন গোসল করাতে হবে। ছাগলকে সবসময় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন জায়গায় রাখার পাশাপাশি ছাগল যেন কখনো অপরিষ্কার না থাকে সে সম্পর্কে দৃষ্টি রাখতে হবে।

একটি ছাগল সহজেই মোটাতাজাকরণ করতে সেই ছাগলের ক্ষেত্রে পাথমি প্রক্রিয়াগুলোর দিকে খেয়াল রাখতে হবে। আপনি যদি একটি সঠিক ছাগল নির্ধারণ করতে সচেষ্ট হন তাহলে অবশ্যই আপনি খুব দ্রুত আপনার সেই ছাগলের মোটাতাজাকরণ করতে পারবেন। তাহলে চলুন ছাগলের ক্ষেত্রে প্রাথমিক নির্বাচন প্রক্রিয়ার ভিতর কোন কোন গুলো পড়ে সেগুলো সম্পর্কে জেনে নেই।
  • কম বয়সের ছাগল নির্বাচন করুন
  • দুই দাতের ছাগল কিনার চেষ্টা করুন
  • মোটামুটি উচ্চতা খেয়াল করে নিন
  • ভালো মাসেলের ছাগল কিনার চেষ্টা করুন
  • রোগ মুক্ত ছাগল কিনুন
  • বডি চওড়া ও মোটা দেখে নিন
  • ওজনের মাংসের মূল্যের থেকে যেনো বেশি দাম না হয়।
  • ছাগল ক্রয় করার পরেই আপনার যেটি সবথেকে প্রধান কাজ হবে সেটি হলো ছাগলকে কৃমির ঔষধ খাওয়াতে হবে।

ছাগলের খাদ্য তালিকা

একটি ছাগল মোটাতাজাকরণের ক্ষেত্রে সব থেকে যেটি অনেক বড় ভূমিকা পালন করে সেটি হল সেই ছাগলের জন্য খাবার। এখন ছাগলকে আমরা সাধারণত খাচা ঘাস খাইয়ে থাকি। এখনো অনেকের মনে প্রশ্ন জেগে থাকে যে ছাগলকে তো কাছাকাছি পাশাপাশি আর কোন কোন খাবার খাওয়ানো যায়। চলুন বন্ধুরা এখন আমরা আপনাকে জানাবো কোন কোন খাবার খাওয়ানোর মাধ্যমে ছাগলকে খুব সহজে মোটাতাজাকরণ করতে পারবেন।

খাবারের নাম

খাবারের পরিমাণ

ভুট্টা ভাঙা

মোট খাবারের ৪৭%

সয়াবিন খৈল

মোট খাবারের ৩০%

চিটা গুড়

মোট খাবারের ৭%

গমের ভুষি

মোট খাবারের ১০%

লবন

মোট খাবারের ১%

চুনাপাথর

মোট খাবারের ৩%

চিলেটেড মিনারেল মিক্স

মোট খাবারের ২%

উপরে উল্লেখিত এই সকল খাবার একসাথে নিয়ে চাউল কলে ভাঙ্গিয়ে নিয়ে আপনি আপনার ছাগলকে এই খাবার গ্রহণ করাতে পারেন। এতে করে খাবারে ছাগলের শরীরের খুব সহজে পুষ্টিমান ঠিক থাকবে। ছাগল অতি দ্রুত মোটা হবে। এই খাবার যদি আপনি আপনার ছাগলকে খাওয়ান তাহলে সেই ছাগলের প্রতিদিনের পুষ্টিগুণের পরিমাণ নিম্ন উল্লেখ করা হলো।

খাদ্য পুষ্টি উপাদান 

পুষ্টি উপাদানের নাম

প্রোটিন

১৬-১৮%

ফ্যাট

৪-৫%

ফাইবার

৫%

মেটাবলিক এনারর্জি

২৮০০-৩০০০ কিলো-ক্যালোরি/কেজি

ছাগলকে ৫টি ভাগে ভাগ করে খাবার দেওয়া যেতে পারে। সেগুলো হলো
  • বাচ্চা ছাগলের খাবার
  • বাড়ন্ত ছাগলের খাবার
  • গর্ভবতী ছাগীর খাবর
  • দুগ্ধবতী ছাগীর খাবার
  • খাসী ছাগলের খাবার
এক্ষেত্রে ছাগলের বাচ্চার বয়স যখন ১-৩ দিন তখন তাকে ২৫০ পরিমাণ ছাগলের শাল দুধ খাওয়াতে হবে প্রতিদিনে অন্ততপক্ষে ৩বার।

বয়স যখন ৪-১৪ দিন হবে সেক্ষেত্রে মায়ের দুধের সাথেই মিল্ক রিপ্লেসার প্রতিদিন ৩০০ মিলি করে দিনে ৩-৪ বার খাওয়াতে হবে।

যখন বাচ্চার বয়স ১৫-৩০ দিন হয়ে যাবে তখন গাছের পাতা খেতে দিন।

যখন বাচ্চার বয়স ৩১ দিন থেকে ৬০ দিন হবে তখন প্রতিদিন ৪০০ মিলি দুধ ২ বার তার সাথে সাথে ১০০-১৫০ গ্রাম ক্রিপ ফিড এক সাথে পর্যাপ্ত পরিমাণে একদিনের শুকনা ঘাস ৫০% এবং পাতা ৫০% খাওয়াতে হবে।

ছাগল মোটাতাজাকরণ ভিটামিন

ছাগল মোটা তাজা করনের ক্ষেত্রে আপনি কিছু পরিমাণ ভিটামিন খাওয়াতে পারেন। সে ক্ষেত্রে অবশ্যই ভিটামিন ক্রয় করার সময় সেই ভিটামিনের গায়ে থাকার ডেট তারিখ সময় দেখে নেবেন। আর যে কথা না বললেই নয় অবশ্যই আপনি একজন ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে তার থেকে ভিটামিন নিয়ে তখন ছাগলকে খাওয়াতে পারেন।

ছাগল মোটাতাজের করনের জন্য প্রয়োজনীয় ভিটামিন গুলো হল
  • জিংক সিরাপ
  • ক্যালসিয়াম
  • ফসফরাস
  • ভিটামিন সি
  • ভিটামিন বি কমপ্লেক্স
  • ম্যাগনেসিয়াম
  • লিভার টনিক
  • কৃমিনাশক ট্যাবলেট

ছাগল মোটাতাজাকরণ সম্পর্কে সাধারণ জিজ্ঞাসা (FAQ)

প্রশ্নঃ ছাগলের সবচেয়ে ভালো খাবার কোনটি?
উত্তরঃ ছাগলের জন্য সবথেকে ভালো খাবারের ভেতরে যেটি পরে সেটি হলো উচ্চ মানের বড় ঘাস।

প্রশ্নঃ ছাগল কি খেলে মোটা হয়?
উত্তরঃ ছাগলের মোটা তাজাকরণের ক্ষেত্রে নিম্নের দেখানো খাবার গুলো খাওয়াতে পারেন।
  • ভুট্টা
  • সয়াবিন
  • খেসারি ডাল
  • খুদি চালের ভাত
  • ভূষি
  • খৈল
  • ধানের গুড়া
  • চিটা গুড়
  • খড়
  • স্যালাইন
প্রশ্নঃ ছাগলকে কতটুকু পিলেট খাওয়াতে হয়?
উত্তরঃ একটি দুধ দেওয়া ছাগলের পিলেট খাওয়ানোর ক্ষেত্রে প্রতিদিন ১-২ টি দানা পিলেট খাওয়াতে পারবেন।

প্রশ্নঃ ছাগলের জন্য কোন খড় ভালো?
উত্তরঃ ছাগলের জন্য বারমুডাগ্রাস খড় সবথেকে ভালো।

শেষ কথা  

আজকের আমাদের এই আর্টিকেলের প্রধান আলোচনার বিষয় ছিলো ছাগল মোটাতাজাকরণ পদ্ধতি সম্পর্কে। আশা করছি আপনি সম্পূর্ণ আর্তিকেলটি পড়ে উক্ত বিষয় সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। এই রকম তথ্যবহুল আর্টকেল প্রতিদিন ফ্রীতে পড়তে আমাদের সাথেই থাকুন। ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি বিডির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url