ডিম পাড়া মুরগির খাবার তালিকা - ডিম পাড়া মুরগি চেনার উপায়

প্রিয় কৃষক ভাইয়েরা আপনার নিশ্চয়ই ডিম পাড়া মুরগির খাবার তালিকা সম্পর্কে জানতে আজকের এই পোস্টটিতে এসেছেন। আমরা যারা মুরগি পালন করে থাকি বিশেষ করে ডিমের জন্য তাদের ক্ষেত্রে ডিম পাড়া মুরগির খাদ্য সম্পর্কে জানা উচিত। তবে চিন্তা কোন কারণ নেই আজকের এই পোস্টটিতে আমরা ডিম পাড়া মুরগির খাবার তালিকা ও ডিম পাড়া দেশি মুরগির খাবার তালিকা সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরার চেষ্টা করব।
ডিম পাড়া মুরগির খাবার তালিকা
পোস্টসূচিপত্রঃপ্রিয় পাঠক আপনি যদি ডিম পাড়া মুরগির খাদ্য তালিকা ও ডিম পাড়া দেশি মুরগির খাবার তালিকা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চান তাহলে পোস্টটি মনোযোগ সহকারে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়তে থাকুন।

ভূমিকা ।ডিম পাড়া মুরগির খাবার তালিকা

আমরা যারা মুরগি পালন করতে চাই তাদের ক্ষেত্রে বিশেষ করে মুরগি আকারে বড় করতে বা মুরগির বৃদ্ধি করতে মুরগীকে ভালো পরিমাণ পুষ্টিকর খাদ্য দিতে হয়। আর যদি মুরগির ডিমের ব্যবসা করতে চান তাহলে অবশ্যই মুরগিকে সুস্বাস্থ্য পুষ্টিকর খাবার দিতে হবে। তা না হলে মুরগি কম ডিম দিবে এবং আকারে ছোট ডিম দিতে পারে। 
এর জন্য অবশ্যই আপনাদের ডিমের ব্যবসা করতে চাইলে ডিম পাড়া মুরগির খাবার তালিকা অথবা আপনি যদি দেশি মুরগি পালন করতে চান তাহলে অবশ্যই ডিম পাড়া দেশি মুরগির খাবার তালিকা সম্পর্কে জানতে হবে। তাই খাদ্য তালিকা সম্পর্কে জানতে পোস্টটি মনোযোগ সহকারে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়তে থাকুন।

ডিম পাড়া মুরগির খাবার তালিকা ।ডিম পাড়া মুরগির খাদ্য তালিকা

আপনারা অনেকেই আমাদের কাছে ডিম পাড়া মুরগিকে কি কি খেতে দিবেন তার তালিকা জানতে চেয়েছেন। তাই এ সম্পর্কে আমরা বিস্তারিত এখন তুলে ধরব। কারণ ডিম পাড়া মুরগিকে খাবার দিতে হলে তার আগে জানতে হবে কি কি খাবার এই মুরগির জন্য পুষ্টিকর যার ফলে ডিম পাড়া মুরগি অধিক ডিম দিবে এবং ডিম গুলো হবে আকারে বড়। তাই আপনারা খাবারের তালিকা গুলো ভালোভাবে জেনে নিন।
  • প্রথমেই আপনি ডিম পাড়া মুরগিকে পেট ভরার জন্য ধান ,গম , ভুসি , ভুট্টা ভাংগা সহ দানাদার খাদ্য দিতে পারেন। এতে করে তাদের পরিমাণ মতো খাওয়া হবে অর্থাৎ তাদের পেট ভরে যাবে।
  • এছাড়াও ডিম পাড়া মুরগিকে স্বাস্থ্যকর পুষ্টি উপাদান দিতে খৈল অথবা সয়াবিন খাওয়াতে পারেন। এটি আপনি বিভিন্ন মুরগির খাবারের সাথে মিশিয়ে খাওয়াতে পারেন। তবে একটু খাবার খরচ বেড়ে যাবে।
  • এছাড়াও খাবার হিসেবে আপনারা মুরগির ডিমের খোসা দিতে পারেন। এটি আপনি অন্যান্য খাবারের সাথে মিশিয়ে খাওয়াতে পারেন। সাধারণত ডিমের খোসা যেখানে সেখানে পাওয়া যায় অনেক কম খরচে। 
  • তবে খেয়াল রাখবেন মুরগিকে বেশি পরিমাণে ডিমের খোসা খাওয়াবেন না, কারণ অতিরিক্ত পরিমাণ ডিমের খোসা খাওয়ালে তাতে মুরগি অভ্যস্ত হয়ে যেতে পারে ফলে মুরগি তার নিজের ডিম খেয়ে ফেলতে পারে। এজন্য পরিমাণমতো খোসা দিতে পারেন।
  • মুরগিকে ডিমের খোসা খাওয়ানোর জন্য অবশ্যই ডিমের খোসা গরম পানির সাথে দিয়ে গরম করে নিতে হবে এবং ভালোমতো পানি দিয়ে গরম করা হলে সেটি রোদে শুকাতে দিন। তারপর খোসাগুলো ভালোভাবে গুড়া করে মুরগিকে বিভিন্ন খাদ্যর সাথে মিশিয়ে খাওয়াতে পারেন। এর জন্য আপনি ব্লেন্ডারে খোশাগুলো গুড় করতে পারেন।
এইতো হয়ে গেল ডিম পাড়া মুরগি প্রতিদিনের খাবার। তবে আপনি যদি এক মাসের খাবার তালিকা তৈরি করতে চান তাহলে আপনাকে কিছু উপায়ে খাবার তালিকা তৈরি করতে হবে। চলুন সেগুলো জেনে নেই।
  • আপনাকে সর্বপ্রথম ধানের গোড়া নিতে হবে ১০ কেজির মত
  • এরপর আপনি গম ভাঙ্গা নিবেন ৪ কেজি।
  • তারপর নিবেন ভুট্টা ভাঙ্গা পাঁচ কেজি বা তার একটু বেশি নিতে পারেন।
  • পুষ্টিকর উপাদান হিসেবে খৈল গুড়া ৫০০ গ্রাম নিতে পারেন।
  • এছাড়াও আগেই বলেছি ডিমের খোসা নিতে পারেন ১৫০ গ্রাম।
  • এরপর আপনি লবণ নিবেন ১০০ গ্রাম নিয়ে ভালোভাবে মিশ্রিত হয়ে খাবার তৈরি করবেন।
  • তাহলে তৈরি হয়ে গেল ডিম পাড়া দশটি মুরগি এক মাসের খাবার তালিকা।

ডিম পাড়া মুরগির  খাবার

খাবারের ওজন

ধানের গুড়া

১০ কেজি

গম ভাংগা

৪ কেজি

ভুট্টা ভাংগা

৫ কেজি

খৈল গুড়া

৫০০ গ্রাম

ডিমের খোসা গুড়া

১৫০ গ্রাম

লবণ

১০০ গ্রাম

ডিম পাড়া দেশি মুরগির খাবার তালিকা

আপনারা কি ডিম পাড়া মুরগির খাদ্য তালিকা ও ডিম পাড়া দেশি মুরগির খাবার তালিকা গুলো জানতে চান। তাছাড়াও এই খাদ্য তালিকায় কি কি পুষ্টি উপাদান রয়েছে তা সম্পর্কে জানা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তা না হলে কোন খাদ্যে কি পুষ্টি উপাদান রয়েছে তা জানতে পারবেন না। আপনি যদি ডিম পাড়া মুরগিকে ডিমের খোসা খাওয়াতে চান তাহলে জানতে হবে এই ডিমের খোসায় কি কি পুষ্টি উপাদান রয়েছে। ডিমের খোসায় রয়েছে ক্যালসিয়াম ফসফেট ,চার অংশ জৈব পদার্থ ,৯৪% ক্যালসিয়াম কার্বনেট ও ম্যাগনেসিয়াম কার্বনেট সহ অনেক পুষ্টি উপাদান রয়েছে।
সাধারণত দেখা গেছে খনিজে ঘাটতি থাকলে মুরগিগুলো ডিম পাড়ার জন্য অর্থাৎ ডিমের খোসা তৈরির জন্য তাদের শরীর থেকে ক্যালসিয়াম ব্যবহার করে খোসা তৈরি করে থাকে। এজন্য মুরগিকে অবশ্যই ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাদ্য দিতে হবে। বিশেষ করে খনিজের ঘাটতি পূরণ করার জন্য খৈল খাওয়াতে পারেন। তাছাড়াও ক্যালসিয়ামের উৎস হিসেবে চুনাপাথর , শামুক , ভাঙ্গা ঝিনুক গুড়া করে খাওয়াতে পারেন। আর ডিমের খোসা তো রয়েছেই যেটি ক্যালসিয়ামের অন্যতম উৎস হিসেবে পরিচিত।

ডিম পাড়া মুরগি চেনার উপায়

আপনারা অনেকেই প্রশ্ন করে থাকেন ডিম পাড়া মুরগি চিনবেন কিভাবে অর্থাৎ ডিম পাড়া মুরগি চেনার উপায় সম্পর্কে জানতে চান। চলুন আমরা এখন কিছু উপায় দেখে নিব যাতে করে আপনারা ডিম পাড়া মুরগি চিনতে পারবেন।
  • সাধারণত অধিক ডিম পাড়া মুরগির মাথা হালকা ওজনে কম হয়ে থাকে। এছাড়াও মুরগির ঘাড়ের ফুল ও মাথার ঝুঁটি দেখতে সাধারণত গোলাপি ও উজ্জ্বল লাল রংয়ের হয়। তাদের মাথার অংশ অবশ্যই তুলতুলে নরম ও সুগঠিত হবে।
  • আরে এই টাইপের মুরগি সাধারণত চোখগুলো দেখতে প্রাণবন্ত লাগে। চোখের দিকে সব সময় পর্যবেক্ষণ করবেন। তাদের নাক সাধারণত স্লেশা মুক্ত , মুখ ও নাক পরিষ্কার থাকে। আর কোন মুরগির গলায় বা নাকে কোন ধরনের ক্ষত থাকবে না অথবা আঁচড় থাকবে না।
  • ডিম পাড়া মুরগির দেহ সুগঠিত হবে। মুরগি গুলো ঠিকমতো খাবার গ্রহণ করবে। আর মুরগিগুলোর পেটে ডিম থাকলে অবশ্যই মুরগিগুলো ভারী মনে হবে এবং এ সময় মুরগির আকার অনেকটা বড় হয়ে যায় অর্থাৎ মুরগি আকারে বড় হয়ে থাকে। আর শরীরে কোন ধরনের ক্ষত থাকবে না।
  • এছাড়াও এই মুরগিগুলোর পালক সাধারণত উজ্জ্বল ও সুগঠিত হয়ে থাকে। ডিম পাড়া মুরগির কোনরকম পালকের সমস্যা থাকা যাবে না।
  • ডিম পাড়া মুরগি গুলো সাধারণত ৬০০ দিন বয়স পর্যন্ত ৮০ ভাগ ডিম দিয়ে থাকে। তবে বয়স বাড়ার সাথে সাথে মুরগির ডিম দেয়ার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলে।
  • আর এই মুরগিগুলো সব সময় সুস্থ থাকবে এবং পা গুলো সুস্থ থাকবে ও শরীরের কোন ধরনের ক্ষত থাকবে না।
আশা করছি আপনারা বুঝতে পেরেছেন। তবে যদি ভালো বুঝে না থাকেন তাহলে আপনার ইউটিউব থেকে ডিম পাড়া মুরগি চেনার উপায় লিখে সার্চ করে ভালো করে ভিডিও থেকে দেখে নিবেন।

দেশি মুরগি কি কি খায়

আপনারা হয়তো জানেন না দেশি মুরগি কি কি খায়। তবে আমরা এই অংশে বিস্তারিত জানব দেশি মুরগির খাবার সম্পর্কে। আমাদের দেশে সাধারণত দেশি মুরগি গুলো ছেড়ে দেওয়া অবস্থায় লালন পালন করা হয়। যার ফলে মুরগিগুলো বাড়ির আশেপাশে থাকা পোকামাকড় , শামুক সহ অনেক উচ্ছিষ্ট খাবার খেয়ে থাকে। তবে বাড়িতে থাকা ভাত , গম , চাল ও খৈল ইত্যাদি থাকে। 

দেশি মুরগিগুলো এ ধরনের খাবার খেয়ে বড় হলেও তেমন দ্রুত ওজন বৃদ্ধি হয় না। তবে দেশি মুরগির রোগ বালাই কম হয়ে থাকে। কারণ তাদের বিভিন্ন ধরনের রাসায়নিক পদার্থ জাতীয় খাবার খেতে দেওয়া হয় না। আর দেশি মুরগি খাওয়া আমাদের জন্য স্বাস্থ্যকর। কারণ দেশি মুরগি গুলোতে ওজন বৃদ্ধিতে কোন ধরনের ক্ষতিকর অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহার করা হয় না।

শেষ কথা

আপনারা হয়তো এতক্ষণে ডিম পাড়ে মুরগির খাবারের তালিকা গুলো ভালোভাবে জেনে গেছেন। এছাড়াও ডিম পাড়া দেশি মুরগির খাবার তালিকা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারলেন। আপনি যদি মুরগি পালনের ব্যবসা করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে মুরগির খাবার তালিকা গুলো ভালোভাবে জেনে নিতে হবে আর মুরগিকে পুষ্টিকর খাবার দিতে হবে যাতে করে মুরগি ওজন বৃদ্ধি হয়। 

আর কখনোই মুরগিগুলোতে রাসায়নিক এন্টিবায়োটিক ব্যবহার করবেন না এগুলো সাধারণত মুরগির জন্য ভালো হলেও মানুষের দেহের জন্য অধিক ক্ষতিকর। তাই সঠিকভাবে খাবার দিবেন এবং স্বাস্থ্য বজায় রাখবেন। আশা করছি পোস্টটি ভাল লেগেছে। এ ধরনের মুরগি সম্পর্কিত তথ্য পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি নিয়মিত ভিজিট করুন। এবং নতুন নতুন তথ্যর জন্য আমাদের সাথে থাকুন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি বিডির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url