সোনালী ব্যাংক পার্সোনাল লোন ২০২৪ আপডেট

প্রিয় বন্ধুরা আপনারা নিশ্চয়ই সোনালী ব্যাংক পার্সোনাল লোন ২০২৪ সম্পর্কে জানতেই আজকের পোস্টটিতে এসেছেন। অনেকেই আমরা সোনালী ব্যাংক থেকে পার্সোনাল লোন নিতে চাই , তবে লোন নেওয়ার নিয়ম জানি না। তাদের জন্যই আজকের পোস্টটিতে আমরা সোনালী ব্যাংক পার্সোনাল লোন ২০২৪ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব অর্থাৎ কিভাবে আপনি লোন নিবেন সোনালী ব্যাংক থেকে তার নিয়ম তুলে ধরব।
আমাদের বিভিন্ন প্রয়োজনে বিভিন্ন ব্যাংক থেকে লোন নেওয়ার প্রয়োজন পড়ে। আর সেই ব্যাংকটি যদি সোনালী ব্যাংক হয়ে থাকে তাহলে আপনি সোনালী ব্যাংকে কিভাবে লোন নিবেন অর্থাৎ সোনালী ব্যাংকে পার্সোনাল লোন ২০২৪ নিয়ম সম্পর্কে জানতে হবে। তাই শেষ পর্যন্ত আমাদের সাথে থাকুন বিস্তারিত জানার জন্য।

সূচনা

আপনারা অনেকেই আছেন যারা সোনালী ব্যাংকের লোন নিতে চান। আপনি যদি সোনালী ব্যাংকে লোন নিতে চান তাহলে আপনাকে কিছু শর্ত পূরণ করতে হবে যেগুলো অন্যান্য ব্যাংক থেকে অনেকটাই আলাদা নিয়ম ও শর্ত। সোনা সোনালী ব্যাংক সাধারণত নির্দিষ্ট পরিমাণ কিছু সুদের বিনিময়ে লোন দিয়ে থাকে। 

তাছাড়াও এই ব্যাংক থেকে আপনারা বিনোদনের লোন বিষয়ক সুযোগ সুবিধা পাবেন। তাই সোনালী ব্যাংক থেকে লোন নেয়ার উপায় জানতে আজকের পোস্টটি মনোযোগ সহকারী পড়ুন তাহলে আশা করছি আপনারা সোনালী ব্যাংক পার্সোনাল লোন আবেদন প্রক্রিয়া ,লোন নিতে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস ইত্যাদি সহ আরো অনেক বিষয়ে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

সোনালী ব্যাংক লোন কত টাকা দেয়

আপনাদের মনে অনেকেরই সোনালী ব্যাংক লোন কত টাকা দেয় এই প্রশ্নটি চলে আসে। আবার অনেকেই প্রশ্ন করে থাকেন সোনালী ব্যাংকে সুদের পরিমাণ কত টাকা হবে? এসব বিষয়ে অনেকেই জানতে চান। তাদের জন্যই বলবো আজকের পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন তাহলে এই সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।প্রিয় বন্ধুরা আপনারা সবচেয়ে বেশি জানতে চেয়েছেন সোনালী ব্যাংকে পার্সোনাল লোন নিলে কত টাকা পাবো। 
এ সম্পর্কে আমরা এখন বিস্তারিত জেনে নেই। প্রিয় পাঠক আপনি যদি সোনালী ব্যাংক থেকে পার্সোনাল লোন নেন তাহলে আপনি লোন হিসাবে সর্বনিম্ন ১ লক্ষ টাকা পাবেন। আর পার্সোনাল লোন হিসাবে সর্বোচ্চ আপনি ২০ লক্ষ টাকা লোন নিতে পারবেন। তবে আপনাকে লোন নেওয়ার জন্য যোগ্য হতে হবে এবং আপনার যোগ্যতা প্রমাণ করতে হবে। উদাহরণ হিসেবে ধরুন আপনি কোথাও ১০ বছর ধরে চাকরি করেন তাহলে আপনি লোনের জন্য ১০ বছরের মেয়াদকাল লোন পাবেন। 

আর যদি আপনার চাকরির বয়স আর পাঁচ বছর থাকে তাহলে আপনি সোনালী ব্যাংক থেকে পাঁচ বছর মেয়াদকালের লোন পাবেন। এরপরে আপনারা যে প্রশ্নটি করে থাকেন সেটি হল সোনালী ব্যাংক এ সুদের পরিমাণ কত টাকা? আপনি এখান থেকে যদি পার্সোনাল লোন নেন তাহলে আপনাকে সুদ হিসাবে ৯% দিতে হবে। আর এই লোন চলাকালীন সময়ে অর্থাৎ লোন প্রসেসিং ফ্রি হিসাবে আপনাকে ০.৫০% দিতে হবে। এই প্রসেসিং ফ্রি  সাধারণত বাংলাদেশ ব্যাংকের নিয়ম অনুযায়ী নেওয়া হবে।

সোনালী ব্যাংক পার্সোনাল লোন ২০২৪

আপনারা অনেকেই জানেন না সোনালী ব্যাংক থেকে কয় প্রকার লোন পাওয়া যায়। সোনালী ব্যাংক থেকে মূলত দুই ধরনের লোন পাওয়া যায় সেটি হলোঃ
  • পার্সোনাল লোন বা ব্যক্তিগত লোন
  • পেশাদার/ চাকরিজীবী/ অন্যান্য লোন
আপনি যদি সোনালী ব্যাংক থেকে পার্সোনাল লোন নেন তাহলে অনেক বড় পরিমাণ অংকে লোন নিতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রে আপনার কিছু যোগ্যতা প্রমাণ দিতে হবে। সোনালী ব্যাংক পার্সোনাল লোন নেওয়ার নিয়ম সম্পর্কে জানব। আপনারা সোনালী ব্যাংক থেকে নির্দিষ্ট পরিমাণ পার্সোনাল ব্যাংক লোন নিতে পারবেন। এর জন্য আপনার কিছু ডকুমেন্ট থাকতে হবে এবং জমা দিতে হবে। 
এছাড়াও আপনার বয়স কমপক্ষে ১৮ বছর এর বেশি হতে হবে। এছাড়াও আপনি চাইলে এই ব্যাংকে একটি একাউন্ট খুলে আপনার টাকা জমা রাখতে পারেন এবং বছর শেষে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ সুদ গ্রহণ করতে পারেন যেটি সাধারণত আপনার মূল টাকার সাথে যোগ হয়ে যাবে।

সোনালী ব্যাংক পার্সোনাল লোনের যোগ্যতা

আপনার অনেকে প্রশ্ন করে থাকেন সোনালী ব্যাংক পার্সোনাল লোনের জন্য কি ধরনের যোগ্যতা প্রয়োজন। আজকে আমার এই বিষয়টি সম্পর্কে আলোচনা করব। আপনি যদি সোনালী ব্যাংক থেকে পার্সোনাল লোন নিতে চান তাহলে আপনার অবশ্যই নির্দিষ্ট যোগ্যতা থাকতে হবে। তা না হলে আপনারা লোন নিতে পারবেন না। চলুন আর কথা না বাড়িয়ে আমরা এবার সোনালী ব্যাংক পার্সোনাল নেওয়ার জন্য যোগ্যতা কি কি লাগে তা জেনে নেই।
  • সোনালী ব্যাংকে পার্সোনাল লোন নিতে চাইলে আপনার সর্বপ্রথম যোগ্যতা হিসেবে লাগবে আপনার বয়স কমপক্ষে ২১ বছরের বেশি হতে হবে এবং বয়স সর্বোচ্চ ৬০ বছরের মধ্যে হতে হবে। সাথে আপনার বৈধ জাতীয় পরিচয় পত্র থাকতে হবে।
  • যিনি লোন নিবেন তাকে অবশ্যই বাংলাদেশের নাগরিক হতে হবে।
  • আপনার একটি বৈধ স্থায়ী ঠিকানা থাকতে হবে এবং নিজের আইডি কার্ডের প্রমান দিতে হবে।
  • আপনার কর্মস্থলের প্রমাণ দিতে হবে বিশেষ করে আপনি কোথায় চাকরি করেন অথবা কর্মস্থলের তথ্য জমা দিতে হবে।
  • এছাড়াও আরো বিভিন্ন ধরনের ডকুমেন্ট জমা দিতে হয় যেগুলো তাদের নিয়ম প্রতিনিয়ত আপডেট হতে থাকে। তাই তাদের ওয়েবসাইট থেকে দেখে নিবেন।

সোনালী ব্যাংক পার্সোনাল লোন আবেদন প্রক্রিয়া

সোনালী ব্যাংক পার্সোনাল লোন নিতে চাইলে আপনাকে অবশ্যই আবেদন করতে হবে। তার জন্য আপনি সোনালী ব্যাংকে গিয়ে তাদের কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করে আবেদন করতে পারবেন আবার অনলাইন এর মাধ্যমেও তাদের ওয়েবসাইট থেকে ফরম ডাউনলোড করে পূরণ করে আবেদন করতে পারবেন। চলুন আমরা আর কথা না বাড়িয়ে এবার জেনে নেই সোনালী ব্যাংক পার্সোনাল লোন আবেদন প্রক্রিয়া অনলাইন এর মাধ্যমে।
  • সর্বপ্রথম আপনার মোবাইলে অথবা কম্পিউটার এ যে কোন ব্রাউজারে গিয়ে সোনালী ব্যাংকের ওয়েবসাইটে প্রবেশ করবেন।
  • তারপর আপনার ঋণের পরিমাণ ও আপনার বেতন নির্বাচন করতে হবে।
  • নির্বাচন করা হয়ে গেলে আপনার সামনে একটি আবেদন ফর্ম আসবে সেটি ডাউনলোড করবেন।
  • ফর্মটি ডাউনলোড করার পর প্রয়োজনীয় সকল তথ্য দিয়ে পূরণ করুন এবং ডকুমেন্ট যুক্ত করুন।
  • ফর্মটি সঠিকভাবে পূরণ করা হয়ে গেলে সকল কিছু যাদের বাছাই করে প্রয়োজনে ডকুমেন্ট ফরম এর সাথে যুক্ত করে নিকটবর্তী সোনালী ব্যাংকের অফিসে জমা দিবেন।
  • এরপর আপনার ফর্মটি সোনালী ব্যাংক কর্তৃপক্ষ যাচাই-বাছাই করে দেখবে সকল কিছু ঠিক থাকলে আপনি খুব দ্রুত সোনালী ব্যাংক থেকে পার্সোনাল লোন নেওয়ার জন্য উপযুক্ত হবেন অর্থাৎ আপনি লোন নিতে পারবেন।
তাহলে আপনারা হয়তো সোনালী ব্যাংকে পার্সোনাল লোন নেওয়ার জন্য আবেদন প্রক্রিয়া জানতে পারলেন। তবে অনেক সময় এই নিয়মগুলো পরিবর্তন হয়ে যায়। সেটি সম্ভবত তাদের ওয়েবসাইটে দেওয়া থাকে।

সোনালী ব্যাংক লোনের কিস্তি কত

আপনারা অনেকেই প্রশ্ন করে থাকেন সোনালী ব্যাংক লোনের কিস্তি কত। সে সম্পর্কে আমরা আজকের এই অংশ আলোচনা করব। আপনার বেতনের উপর নির্ভর করে কিস্তি দিতে হবে। আপনি যত টাকা বেতন পাবেন কখনোই তার উপরে কিস্তি দিতে হয় না। ধরুন আপনার বেতন ৫০ হাজার টাকা তাহলে আপনার কিস্তি কখনোই ৫০ হাজার টাকার বেশি হবে না। 

তবে সোনালী ব্যাংক কর্তৃপক্ষ আপনাদের সুবিধার জন্য লোনের কিস্তি কত লাগবে সেই সবগুলো তুলে ধরেছে। যা আমরা এখন আপনাদের সামনে তুলে ধরবো। নিম্নে সোনালী ব্যাংকের লোনের জন্য কত কিস্তি লাগবে তার ছবি দেওয়া হল। অর্থাৎ তারা কিস্তির জন্য একটি চার্ট তৈরি করেছে যেটা আমরা এখন দেখব।
তাহলে আপনারা সোনালী ব্যাংক লোন নেওয়ার পর কিস্তি কেমন দিতে হয় তা জেনে গেলেন। চাটে দেখা যাচ্ছে আপনি যদি এক বছরের জন্য লোন নেন তাহলে আপনাকে কিস্তি দিতে হবে ৮,৭৪৫ টাকার মত। আর যদি দুই বছরের জন্য নিতে চান তাহলে আপনাকে কিস্তির পরিমাণ দাঁড়ায় ৪,৫৬৮ টাকা। এভাবে আপনি প্রত্যেকটি কিস্তির পরিমাণ চাট দেখে দেখেই বুঝতে পারবেন।

সোনালী ব্যাংক পার্সোনাল লোন নিতে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস

আপনার অনেকে জানেন না সোনালী ব্যাংকে পার্সোনাল লোন নিতে চাইলে কি কি ডকুমেন্ট প্রয়োজন হয়। আজকে সেই সম্পর্কে আমরা বিস্তারিত আলোচনা করব। আপনি যদি সোনালী ব্যাংকে পার্সোনাল লোন নিতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই কিছু প্রয়োজনে ডকুমেন্ট সাবমিট করতে হবে। তাহলে একমাত্র আপনি লোন নিতে পারবেন। ডকুমেন্টগুলো আপনার কাছে যদি থাকে তাহলে আপনি লোনের জন্য যোগ্য বলেন মানা হবে। চলুন আর কথা না বাড়িয়ে এবার জেনে নেই কি কি ডকুমেন্ট প্রয়োজন হয় এই লোন নিতে।
  • আপনার আইডেন্টিটি প্রমান দেয়ার জন্য অবশ্যই একটি বৈধ জাতীয় পরিচয় পত্র , ড্রাইভিং লাইসেন্স বা পাসপোর্ট থাকতে হবে।
  • যিনি আবেদন করবেন তার একটি পাসপোর্ট সাইজের ছবি লাগবে ছবিটা অবশ্যই রঙিন হতে হবে।
  • আপনি কত আয় করেন তার প্রমাণ দেওয়ার জন্য আয়কর রিটার্নের রশিদ , ব্যাংক স্টেটমেন্ট ইত্যাদি ডিটেলস লাগতে পারে।
  • আপনার অবশ্য বৈধ মোবাইল নাম্বার দিতে হবে যেটি সবসময় সচল থাকে।
  • আপনার পরিচয় পত্র ও স্থায়ী ঠিকানা ও আপনার ছবি এবং আপনার একটি স্বাক্ষরিত অর্থাৎ সত্যায়িত পরিচয় পত্র থাকতে হবে।
  • লোনের জন্য যিনি গ্যারেন্টার হবেন তার পরিচয় পত্রের ফটোকপি লাগবে।
  • গ্যারেন্টারের কাজের ডিটেইলস এবং বেতন রশিদ থাকতে হবে।
  • যিনি গ্যারান্টি দিবেন তার অবশ্যই একটি সচল মোবাইল নাম্বার থাকতে হবে। ফোন নাম্বারটা অবশ্যই সচল থাকতে হবে।
আশা করছি আপনারা জানতে পারলেন কি কি ডকুমেন্ট প্রয়োজন হবে সোনালী ব্যাংকের লোন নেওয়ার ক্ষেত্রে। যেগুলো বুঝে আপনারা সকল ডকুমেন্ট নিয়ে আবেদন করতে পারবেন।

সোনালী ব্যাংকে পার্সোনাল লোনের পরিমাণ

সোনালী ব্যাংক থেকে আপনারা পার্সোনাল লোন হিসাবে লোন নিতে পারবেন ২০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত। তবে আপনি কত লোন পাবেন এটি নির্ভর করে আপনার কাজের ও চাকরির ওপর অর্থাৎ আপনার বেতন কত তার উপর নির্ভর করে আপনি লোন পাবেন। মূল কথা হলো আপনার আয়ের উপর নির্ভর করে আপনাকে লোন প্রদান করা হবে। তাই আপনার আয় কত সেটি জেনে আপনি লোন নিতে পারবেন। আয়ের পরিমাণ কম হলে আপনার ক্ষেত্রে লোনের পরিমাণ কম হবে। তবে এটি আপনি ভালো জানতে পারবেন তাদের কাছ থেকেই অর্থাৎ সোনালী ব্যাংকে অফিসে গিয়ে ভালোমতো জানতে পারবেন।

সোনালী ব্যাংকে পার্সোনাল লোনের মেয়াদ

সোনালী ব্যাংকে পার্সোনাল লোনের মেয়াদ সাধারণত ১ থেকে ৫ বছর হয়ে থাকে। তবে আপনার বেতন অর্থাৎ আয়ের উপর মেয়াদকাল বাড়ানো যেতে পারে। এই মেয়াদকাল আপনার আয়ের উপর নির্ভর করবে। তবে সাধারণত এই তথ্যগুলো পরিবর্তন হতে পারে। যার ফলে আপনি পার্সোনাল লোনের মেয়াদকাল বেশি পেতে পারেন। এর জন্য আপনি অবশ্যই সোনালী ব্যাংকের ওয়েবসাইটে যোগাযোগ করবেন অথবা তাদের শাখায় গিয়ে যোগাযোগ করতে পারবেন।

শেষ কথা

আশা করছি আপনারা এতক্ষণে সোনালী ব্যাংক পার্সোনাল লোন নেওয়ার নিয়ম সহ এই লোন নিতে কি কি যোগ্যতা লাগে সকল কিছু জানতে পারলেন। এগুলো জানার পর আপনি অবশ্যই বুঝতে পারছেন আপনি লোন নিতে পারবেন কিনা। আর লোন নেওয়ার আগে অবশ্যই বিষয়গুলো মাথায় রেখে আবেদন করবেন। আমরা কিন্তু অলরেডি সোনালী ব্যাংকে লোন নেওয়ার জন্য আবেদন প্রক্রিয়া সম্পর্কে আলোচনা করেছি যেটি দেখে আপনি আবেদন করতে পারবেন। আশা করছি ভাল লেগেছে আজ এ পর্যন্ত শেষ করছি। এ ধরনের নতুন তথ্য পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি ভিজিট করুন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি বিডির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url