স্ক্যানার ও মডেম কি ধরনের ডিভাইস - ইনপুট ডিভাইস কি জানুন

আপনারা হয়তো স্ক্যানার ও মডেম এর নাম শুনেছেন। এগুলো সাধারণত কম্পিউটারে ব্যবহার করা হয় আউটপুট এবং ইনপুট ডিভাইস হিসেবে। আপনাদের মধ্যে অনেকে আছে যারা স্ক্যানের কি ধরনের ডিভাইস এ সম্পর্কে জানে না। তাদের জন্যই আজকের আর্টিকেলটিতে আমরা স্ক্যানার ও মডেম কি ধরনের ডিভাইস ও ইনপুট ডিভাইস কি  এ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করব।
স্ক্যানার কি ধরনের ডিভাইস - মডেম কি ধরনের ডিভাইস
আপনি যদি স্ক্যানার ও মডেম কি ধরনের ডিভাইস এ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে চান তাহলে এখনি পোস্টটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়তে থাকুন।
পোস্টসূচিপত্রঃ

ভূমিকা

আমরা সকলেই কম বেশি কম্পিউটার ব্যবহার করতে জানি। এই কম্পিউটার ব্যবহার করে বিভিন্ন ধরনের কাজ করা যায়। আর কম্পিউটারে আমরা বিভিন্ন ধরনের ডকুমেন্ট ও ফাইল স্ক্যান করার মাধ্যমে ইনপুট দিতে পারি। তবে এই ডিভাইসটির নাম হল স্ক্যানার। আপনারা সকলে মডেম সম্পর্কে জানেন। এটি এক ধরনের ডিভাইস যার মাধ্যমে কম্পিউটার বা ল্যাপটপে ইন্টারনেট সংযোগ দেওয়া যায়। 

এর সাহায্যে আপনারা অতি সহজেই কম্পিউটারে ইন্টারনেট চালাতে পারবেন। তবে আপনাদের অনেকেরই মনে একটা প্রশ্ন থাকে স্ক্যানার ও মডেম কি ধরনের ডিভাইস। আজ আমরা আজকের পোস্টটিতে আপনাদের জন্য এ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব।

মডেম কি ধরনের ডিভাইস

মডেম এক প্রকার যন্ত্র যেটি অ্যানালগ সিগন্যাল কে ডিজিটাল সিগন্যালের রূপান্তর করে। এই মডেমের সাহায্যে আমরা কম্পিউটারে ইন্টারনেট সংযোগ দিতে পারি। কম্পিউটার ইন্টারনেট সংযোগ দেওয়ার জন্য মডেম ব্যবহার করা হয়। মডেম মূলত আউটপুট ও ইনপুট ডিভাইস। কারণ এটি একই সাথে ইনপুট ডিভাইস হিসেবে এবং আউটপুট ডিভাইস হিসেবে কাজ করে। মডেম এর কাজ হল এনালগ সিঙ্গেল কে ডিজিটাল তথ্যের রূপান্তর করা। 

আপনারা যারা মনে ব্যবহার করেন তারা সকলে জানেন মডেমে সিম ব্যবহার করে কম্পিউটারে বা মোবাইল ফোনে ইন্টারনেট সংযোগ দেওয়া যায়। অর্থাৎ বলতে গেলে মনে ব্যবহার করে ইন্টারনেট কানেকশন দেওয়া যায়। মডেম সাধারণত কম্পিউটারের মাঝে দ্বিমুখী সংযোগ প্রদান করে। কারণ এটি কম্পিউটার থেকে তথ্য নিয়ে নেটওয়ার্কের পাঠায় এবং সেটি প্রসেসিং হয়ে নেটওয়ার্ক থেকে তথ্য কম্পিউটারে ফিরে আসে। এভাবে মডেম ইনপুট এবং আউটপুট ডিভাইস হিসেবে কাজ করে। 

মডেমের সাহায্যে কম্পিউটার ইন্টারনেট সংযোগ দেওয়া যায় যা ইনপুট ডিভাইস হিসেবে কাজ করে। আর এই ইন্টারনেট সংযোগ দেওয়ার ফলে কম্পিউটারে আমরা বিভিন্ন তথ্য অনুসন্ধান করতে পারি। মডেমের সাহায্যে ইনপুট হিসেবে ইন্টারনেট সংযোগ কম্পিউটারে দিয়ে আবার সেই ইন্টারনেট ব্যবহার করে আউটপুট হিসেবে আমরা বিভিন্ন তথ্য পায় , আর এজন্য মডেম হলো একটি ইনপুট ও আউটপুট ডিভাইস।

স্ক্যানার কি ধরনের ডিভাইস

আপনারা সকলে স্ক্যানারের সাহায্যে পরিচিত। কারণ স্ক্যানার ব্যবহার করে যে কোন কিছু ডকুমেন্ট অথবা ফাইল স্ক্যান করে কম্পিউটারে তথ্য প্রবেশ করানো যায়। ধরুন আপনি একটি বই থেকে কিছু অংশ ডিজিটাল ফাইলে রূপান্তর করতে চাচ্ছেন , তাহলে আপনাকে এখন স্ক্যানার ডিভাইস দিয়ে উক্ত বই থেকে অংশটি স্ক্যান করে কম্পিউটারে ইনপুট দিতে হবে। তাহলে কম্পিউটার ওই অংশটি স্ক্যান করে ডিজিটাল ফাইলে রূপান্তর করবে। 
অর্থাৎ ছবি ডকুমেন্ট স্ক্যানারের সাহায্যে কম্পিউটারে ইনপুট দেওয়া যায়। তাহলে বুঝতে পারলেন স্ক্যানার এর সাহায্যে কোন ডকুমেন্ট বা ফাইল স্ক্যান করে কম্পিউটার ইনপুট দেওয়া যায় এবং স্ক্যান্কৃত ফাইল কম্পিউটার তথ্য হিসেবে আমাদের সামনে দেখায়। যার ফলে আমরা বলতে পারি স্ক্যানার হলো এক ধরনের ইনপুট ডিভাইস। এটি দিয়ে শুধুমাত্র তথ্য ইনপুট দেওয়া যায়। আপনাকে যদি কেউ প্রশ্ন করে স্ক্যানার কি ধরনের ডিভাইস , তাহলে আপনি উত্তরে বলবেন স্ক্যানার হলো ইনপুট ডিভাইস।

ইনপুট ডিভাইস কি - ৫ টি ইনপুট ডিভাইসের নাম কি কি? - Input Device

যে সকল ডিভাইস দ্বারা কম্পিউটারকে কোন তথ্য দেওয়া হয় বা দেওয়া যায় তাদেরকে ইনপুট ডিভাইস বলা হয়। কারণ এ সকল ডিভাইসের মাধ্যমে কম্পিউটারের ডেটা বা তথ্য ইনপুট দেওয়া যায়। কম্পিউটার সেই তথ্য গ্রহণ করে এবং সেই অনুযায়ী কাজ করে। আর এগুলোকেই ইনপুট ডিভাইস বলা হয়। চলুন আমরা এখন কিছু ইনপুট ডিভাইসের নাম জেনে আসি।
  • কিবোর্ড
  • মাউস
  • স্ক্যানার
  • টাচপ্যাড
  • ক্যামেরা
  • ওয়েবক্যাম
  • জয়স্টিক
  • মাইক্রোফোন
  • ডিজিটাল ক্যামেরা
  • ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর
  • ওসিআর
  • টাচ স্ক্রিন
  • সেন্সর
এছাড়াও আরো অনেক ধরনের ইনপুট ডিভাইস রয়েছে যা কম্পিউটারে ব্যবহার করা হয়। উক্ত ডিভাইস গুলো ব্যবহার করে কম্পিউটারে তথ্য ইনপুট দেওয়া হয়। আর এজন্য ডিভাইস গুলোকে ইনপুট ডিভাইস বলা হয় যার মাধ্যমে কম্পিউটারে যেকোন ডাটা বা ফাইল , শব্দ ও বিভিন্ন ধরনের চিহ্ন ইনপুট দেওয়া যায়।

পেনড্রাইভ কি ধরনের ডিভাইস

পেনড্রাইভ কি ধরনের ডিভাইস এ সম্পর্কে অনেকেই জানতে চান। তবে কোথাও সঠিক তথ্য পান না। তাদের জন্যই আজকের এই পয়েন্টে আমরা পেনড্রাইভ সম্পর্কিত বিস্তারিত আলোচনা করব। আপনারা হয়তো জানেন পেনড্রাইভ ব্যবহার করে যে কোন তথ্য কম্পিউটারে দেওয়া যায় আবার কম্পিউটার থেকে যেকোনো তথ্য পেন ড্রাইভের সংরক্ষণ করে অন্য কম্পিউটারে দেওয়া যায়। 

তাহলে বুঝতে পারলেন পেনড্রাইভ ব্যবহার করে একই সাথে ইনপুট এর কাজ করা যায় আবার আউটপুট হিসেবে তথ্য সংরক্ষণ করা যায়। পেনড্রাইভ হলো এক প্রকার স্টোরেজ যেখানে আপনি আপনার প্রয়োজনীয় ফাইল অথবা ডকুমেন্ট সংরক্ষণ করতে পারবেন। আপনার প্রয়োজনীয় ফাইল আপনি কম্পিউটারে প্রবেশ করাতে পারবেন এই পেনড্রাইভের মাধ্যমে। 

তাহলে সেই হিসেবে এটি ইনপুট ডিভাইস কারণ কম্পিউটারে তথ্য ইনপুট দেওয়া হচ্ছে। আরেকটি ভাবে হল আপনি কোন তথ্য কম্পিউটার থেকে পেনড্রাইভে সংরক্ষণ করে রাখতে পারবেন। যেটি হল কম্পিউটারে আউটপুট তথ্য পেনড্রাইভের সংরক্ষণ করতে পারছেন , এজন্য পেনড্রাইভ কে আউটপুট ডিভাইস বলা যায়। এর থেকে ধারণা পাওয়া যায় পেনড্রাইভ একই সাথে ইনপুট এবং আউটপুট ডিভাইস।

প্রিন্টার কি ধরনের ডিভাইস

প্রিন্টার ব্যবহার করে যে কোন ছবি বা তথ্য বা ফাইল ছাপানো যায়। প্রিন্টার হলেও এক ধরনের আউটপুট ডিভাইস। যেটি ব্যবহার করে আপনার প্রয়োজনমতো যে কোন তথ্য বা ফাইল , ছবি প্রিন্ট করে ছাপাতে পারবেন। কম্পিউটার ব্যবহার করে প্রিন্টারের সাহায্যে ছবি সহ যে কোন কিছু লেখা প্রিন্ট করতে পারবেন। 

এটি আপনি হাতে কাগজের মাধ্যমে পাবেন। যেটি হল আউটপুটডিভাইস হিসেবে কাজ করে। প্রিন্টার যেহেতু কম্পিউটারে আপনার কমান্ড অনুযায়ী যে কোন কিছু ছাপাতে পারে এবং আউটপুট হিসাবে প্রিন্ট করে দেয় এজন্য এটি আউটপুট ডিভাইস।

মনিটর কি ধরনের ডিভাইস

মনিটর হল এক প্রকার দৃশ্যমান যন্ত্র যার সাহায্যে আমরা যে কোন কিছুর ছবি , চলচ্চিত্র দেখতে পাই। মনিটর যেহেতু আমাদেরকে আউটপুট হিসেবে ছবি , চলচ্চিত্র বা যেকোনো কিছু দৃশ্যমান করে এজন্য এটি আউটপুট ডিভাইস। মনিটর ব্যবহার করে কোন ইনপুটের কাজ করা যায় না। কারণ এটি শুধুমাত্র আপনার দেওয়া কমান্ডের উপর নির্ভর করে আউটপুট প্রদান করবে। আর এজন্য আমরা বলতে পারি মনিটর হল আউটপুট ডিভাইস।

মাউস কি ধরনের ডিভাইস

মাউস হল ইনপুট ডিভাইস যার মাধ্যমে আপনারা কম্পিউটার স্ক্রিনে প্রদর্শিত যেকোনো কিছু নিয়ন্ত্রণ করতে পারি। কম্পিউটার স্কিনে মাউস ব্যবহার করে কোন কিছু অবজেক্ট সিলেক্ট করা যায়। মাউসের একটি পয়েন্টার থাকে যেটি সবসময় নড়াচড়া করা যায় এবং নড়াচড়া করে কোন কিছু সিলেক্ট বা নির্বাচন করা যায়। তাহলে এটি বলা যায় মাউস হল ইনপুট ডিভাইস।

স্পিকার কি ধরনের ডিভাইস

আপনারা অনেকেই জানতে চান স্পিকার কি ধরনের ডিভাইস। স্পিকার মূলত এক প্রকার আউটপুট ডিভাইস। কারণ এটি যদি কম্পিউটারে ব্যবহার করা হয় তাহলে কম্পিউটারের যেকোনো চলচ্চিত্র বা ভিডিও এর সাউন্ড আপনি স্পিকারের মাধ্যমে শুনতে পারবেন। স্পিকার শব্দ আউটপুট করে অর্থাৎ বলতে গেলে স্পিকার শব্দ বা সাউন্ড তৈরি করে আমাদের শোনায়। এই স্পিকার দিয়ে কোন তথ্য ইনপুট করা যায় না। মূলত স্পিকারের সাহায্যে কম্পিউটারের তথ্য , শব্দ আউটপুট করা যায়। 

স্ক্যানার একধরনের কি ডিভাইস?

স্ক্যানার এক ধরনের ইলেকট্রনিক্স ডিভাইস। এর সাহায্যে বর্তমানে যেকোনো প্রয়োজনে ডকুমেন্ট এর সফট কপি ট্রান্সফার করা যায় বা পাঠানো যায়।স্ক্যানার এর মাধ্যমে যেটি আপনি স্ক্যান করতে যান তার উপর ক্যামেরাটি ধরে রাখুন এবং আপনার প্রজারা ডকুমেন্ট স্ক্যান হয়ে যাবে।

স্ক্যানার ইনপুট নাকি আউটপুট ডিভাইস?

স্ক্যানার মূলত ইনপুট হিসেবে কাজ করে। কারণ কোন প্রয়োজনে ডকুমেন্ট বা ছবি স্ক্যানার এর মাধ্যমে সফট কপি করে আদান প্রদান করা যায়। এর থেকে কোন আউটপুট পাওয়া যায় না বিধায় এটি ইনপুট ডিভাইস।

শেষ কথা

প্রিয় পাঠক আশা করছি আপনারা এতক্ষণে স্ক্যানার কোন ধরনের ডিভাইস ও মডেম কি ধরনের ডিভাইস এ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জেনে গেছেন। তাছাড়াও আপনারা জানতে পারলেন ইনপুট ডিভাইস কি এবং বিভিন্ন ইনপুট ডিভাইসের নাম সম্পর্কে জানতে পারলেন। এর ফলে আপনাদের ইনপুট ডিভাইস ও আউটপুট ডিভাইস চিনতে সুবিধা হবে। 
যে কোন পরীক্ষাতে ইনপুট ডিভাইস কি যদি এসে থাকে তাহলে আপনারা অতি সহজেই আজকের পোস্টটি পড়ে ধারণা নিয়ে উত্তর দিতে পারবেন। আশা করছি ভালো লেগেছে। বন্ধুদের ইনপুট ও আউটপুট ডিভাইস সম্পর্কে বিস্তারিত জানাতে পোস্টটি শেয়ার করতে পারেন। আর এ ধরনের তথ্য পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি নিয়মিত ভিজিট করুন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি বিডির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url