খতিয়ান পর্চা অনুসন্ধান ও খতিয়ান যাচাই করার উপায় জানুন

প্রিয় বন্ধুরা, আজকের পোস্টটিতে আমরা খতিয়ান পর্চা অনুসন্ধান ও খতিয়ান যাচাই করার উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব। তাই আপনারা যদি জমির খতিয়ান যাচাই ও খতিয়ান পচা অনুসন্ধান করতে চান তাহলে অবশ্যই পোস্টটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়ুন।
খতিয়ান পর্চা অনুসন্ধান - খতিয়ান যাচাই করার উপায়
পোস্টসূচিপত্রঃএকজন জমির মালিকের জন্য তার জমির খতিয়ান পর্চা সংগ্রহ করা উচিত। কারণ এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ কাগজ। তাহলে চলুন এখন বেশি দেরি না করে জমির খতিয়ান কিভাবে অনুসন্ধান করবেন সেই বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা যাক।

ভূমিকা

বর্তমান সরকারের উদ্যোগে জমির সকল ঝামেলা থেকে মুক্তির উদ্দেশ্যে এখন সকল কিছু অনলাইন ভিত্তিক সুবিধা প্রদানের ব্যাবস্থা করা হয়েছে। যাতে করে সকলেই খুব সহজেই তাদের কাজ টা করে নিতে পারে। এখন খুব সহজেই জমির খতিয়ান নম্বর, দাগ নাম্বার এবং জমির মালিকের নাম দিয়ে সকল তথ্য অনলাইনেই চেক করা যায়।
আপনি যদি আজকের এই আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়তে থাকেন তাহলে আপনি খতিয়ান অনুসন্ধান করতে কি কি লাগে, অনলাইন থেকে খতিয়ান ডাউনলোড, জমির পর্চা ডাউনলোড করার সহজ নিয়ম, সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান

অনেকে আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান করার জন্য অনেক নানান ঝামেলায় পরে থাকেন বিভিন্ন সময়। আজকের এই আর্টিকেলটি যদি আপনি মনোযোগ সহকারে শেষ পর্যন্ত পড়তে থাকেন তাহলে আশ আকরছি আপনি কিভাবে আর এস খতিয়ান খুব সহজেই অনুসন্ধান করতে পারবেন। চলুন তাহলে এক নজরে আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান করতে হয় কিভাবে সেটা জেনে নেই।

আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান করার জন্য আপনাকে প্রথমে ePorcha ওয়েব সাইটে প্রবেশ করতে হবে। আপনি https://www.eporcha.gov.bd/ এই লিংকের মাধ্যমে ক্লিক করে ও সেখানে যেতে পারেন।আপনি উক্ল লিংকে ক্লিক করার পরে উপরের ছবির মতো একটি পেজ দেখতে পাবেন। এখানে নিম্নে দেখানো নিয়ম অনুযায়ী সকল তথ্য পূরণ করুন।

এইখানে সঠিকভাবে প্রথমে আপনার বিভাগের নাম, তারপর জেলা, উপজেলা। তারপরেই চলে আসবে খতিয়ানের ধরণ। খতিয়ানের ধরণের ওইখান থেকে আপনাই আরএস সিলেক্ট করে দিবেন। যেটা উপরের ছবিতে নির্দেশনা দিয়ে দেখানো হয়েছে।

তারপরে আপনি সেখান থেকে আপনার মৌজা সিলেক্ট করলেই সেই মৌজার আন্ডারে যতগুলি খতিয়ান রয়েছে সেটি দেখতে পারবেন। এখানে যদি আপনার টা খুজে না পান। তাহলে উপরের সার্চ বক্সে খতিয়ানের নাম্বার অথবা মালিকের নাম লিখে সার্চ করলেই খুজে পেয়ে যাবেন।

নাম খুজে পেলে সেখান থেকে অধিকতন অনুসন্ধান বাটনে ক্লিক করলেই আপনার সেই খতিয়ান দেখতে পাবেন। আবার আপনি যদি চান সেটি ডাউনলোড করবেন তাহলে সেখানে আবেদন করে নির্দিষ্ট পরিমাণে ফি দিয়ে সেখান থেকে আপনার খতিয়ান ডাউনলোড ও করে নিতে পারবেন।

আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান করার জন্য প্রয়োজনী ডকুমেন্টস

খতিয়ান অনুসন্ধানের সময় কিছু ডকুমেন্টেসের প্রয়োজন হয়। সেগুলো প্রদান করে খতিয়ান বের করতে হয়। আপনারা অনেকেই আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান করার জন্য প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট সম্পর্কে জানতে চান। তাদের জন্যই আমরা আজকের এই অংশে আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান করার জন্য প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট সম্পর্কে আলোচনা করব।আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান করতে যে সকল তথ্যের প্রয়োজন হবে। সেগুলি হলোঃ
  • জমির বিভাগ
  • জমির জেলা
  • জমির উপজেলা
  • খতিয়ানের ধরণ, মৌজা, খতিয়ান নাম্বার
  • জমির মালিকের নাম
  • জমির দাগ নাম্বার
এই সকল প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস আর এস খতিয়ান অনুসন্ধান করার সময় প্রয়োজন হবে।

জমির পর্চা কি

জমির পর্চা কি সেটা আমরা অনেকেই তেমন একটা ভালো করে জানি না। আপনি এই সম্পর্কে না জেনে থাকেন তাহলে আপনি এখন একদম সঠিক জায়গায় আছেন। কারণ একটু পরেই আমরা সেই সম্পর্কে আলোচনায় যাবো। আর আপনি সঠিকভাবে জানতে পারবেন। তাহলে চলুন এখন আর বেশি কথা না বারিয়ে বিস্তারিত আলোচনায় যাওয়া যাক।
পর্চা হলো একটি ফার্সি শব্দ। পাঠ পর্যায়ে যখন ভূমির চুড়ান্ত জরিপ করা হয় তখন তার পূর্বে সেই জমির মালিকদের তার খসড়া খতিয়ানের অনুলিপি প্রদান করা হয়। আর অনুলিপিকেই মাঠ পর্চা বলা হয়। আর এই মাঠ পর্চা যখন রাজস্ব কতৃক সত্যায়িত হয়, আর তখন যদি কোন পক্ষের কোন আপত্তি না থাকে তখন সেটা চুড়ান্তভাবে প্রকাশ করা হয়। আর এই চূড়ান্ত খতিয়ানের অনুলিপিকেই পর্চা বলা হয়।

জমির খতিয়ান কি

একটি জমি জন্য খতিয়ান কি সেই বিষয়টা আমাদের জানা অনেক জরুরি। কারণ এটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা বহন করে। তাই সকলকেই এই বিষয়ে জানতে হবে। আপনি যদি এই সম্পর্কে জানতে চান তাহলে এই আর্টিকেলটি আপনাকে মনোযোগ সহকারে পড়তে হবে। তাহলে চলুন এখন সেই সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।
খতিয়ান পর্চা অনুসন্ধান
প্রতিটি জমির মালিকদের কাছে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ নথি বা পত্র। আমরা ইতিপূর্বে জমি পর্চা কি সেই বিষয়ে জানতে পেরেছি। এখন অনেকেই প্রশ্ন করবেন যে জমির খতিয়ান কি তাহলে। আপনাদের এই প্রশ্নের উত্তর হলো জমির খতিয়ান হলো যখন এই পর্চা তৈরি হয়ে যায় তখন সেই পর্চাতে যেগুলি তথ্য থাকে, সেগুলি একটি সিরিয়াল অনুযায়ি নাম্বারিং করে লিখা হলে তাকেই খতিয়ান বলে।

খতিয়ান অনুসন্ধান করতে কি কি লাগে

আপনার জমির খতিয়ান মূলত আপনি দুইভাবে অনুসন্ধান করতে পারবেন। প্রথমটি হলো অফলাইনের মাধ্যমে। আর দ্বিতীয়টি হলো অনলাইনের মাধ্যমে। এখন আমরা সকলে জানবো অনলাইনের মাধ্যমে আপনার জমির খতিয়ান অনুসন্ধান করতে হলে আপনার কিকি তথ্য লাগবে। চলুন এখন তাহলে আমরা জেনে নেই অনলাইনের মাধ্যমে খতিয়ান অনুসন্ধান করতে হলে কি কি তথ্য/ডকুমেন্ট লাগবে।অনলাইনের মাধ্যমে খতিয়ান অনুসন্ধান করতে হলে যেসকল তথ্যের প্রয়োজন হবে। সেগুলি হলোঃ
  • জমির সঠিক ঠিকানা
  • উপজেলা
  • জেলা
  • বিভাগ
  • মৌজা
  • খতিয়ানের ধরণ
  • খতিয়ান নাম্বর
  • জমির মালিকের নাম
  • খতিয়ান নাম্বর/দাগ নম্বর

খতিয়ান পর্চা অনুসন্ধান করার নিয়ম

আপনি খুব সহজেই অনলাইনের মাধ্যমে খতিয়ান পর্চা অনুসন্ধান করতে পারবেন। এটি আপনি বাড়িতে বসেই কম্পিউটার অথবা আপনার হাতে থাকা মোবাইল ফোন দিয়েই করে ফেলতে পারবেন। তাহলে চলুন এখন জেনে নেই আপনি কিভাবে অনলাইনের মাধ্যমে খতিয়ান পর্চা অনুসন্ধান করবেন।

প্রথমে আপনাকে ভূমি মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে। আপনি এই https://www.eporcha.gov.bd লিংকের উপর ক্লিক করেও যেতে পারেন সেখানে। এই লিংকের উপর ক্লিক করার পরে আপনি নিম্নের মতোন একটি ইন্টারফেস দেখতে পাবেন। এইখান থেকে আপনাকে বাছাই করে নিতে হবে আপনি কোন ধরণের খতিয়ানের অনুসন্ধান করবেন।
খতিয়ান অনুসন্ধান মূলত দুইভাবে করা যায়।
  • সার্ভে খতিয়ান
  • নামজারি খতিয়ান
আপনি যদি সার্ভে খতিয়ান অনুসন্ধান করতে চান তাহলে আপনাকে নিম্নের দেখানো নিয়ম মেনে কাজ করতে হবে। তাহলে আপনি সঠিকভাবে সার্ভে খতিয়ান অনুসন্ধান করতে পারবেন।
আপনি উক্ত লিংকে ক্লিক করে আসার পরে আপনাকে এখানে আপনার সকল তথ্য সঠিকভাবে দিতে হবে। এখানে যদি আপনি একটিও ভুল তথ্য প্রদান করেন তাহলে আপনি আপনার কাঙ্খিত তথ্য খুজে পাবেন না।

এই পেজে এসে আপনাকে যেসকল তথ্য বসাতে হবে। সেগুলো হলোঃ
  • প্রথমে জমির বিভাগের নাম
  • তারপরে জমির জেলার নাম
  • জমির উপজেলার নাম
  • খতিয়ানের ধরণ
  • জমির মৌজা
আপনি এখানে মৌজার নাম বসানোর পরে আপনার সেই মৌজাতে অবস্থিত সকল জমির মালিকের নাম এবং খতিয়ান নম্বর চলে আসবে। প্রথমে আপনার খতিয়ান খুঁজুন। তারপর খুজে না পেলে উপরে সার্চ বারে সার্চ করবেন খতিয়ান নাম্বার অথবা জমির মালিকেন নাম লিখেন।আপনি যদি নামজারি খতিয়ান অনুসন্ধান করতে চান তাহলে আপনাকে নিম্নে দেখানো ধাপগুলি অনুসরণ করতে হবে।
নামজারি খতিয়ান অনুসন্ধান করার জন্য প্রথমে আপনাকে উক্ত ওয়েবসাইটে এসে উপর থেকে নামজারি খতিয়ান সিলেক্ট করতে হবে। তারপর এখানেও আপনাকে পূর্বের ন্যায় সকল তথ্য সঠিকভাবে পূরণ করতে হবে। তারপরে আপনি সেখানে ক্লিক করলেই আপনি আপনার জমির খতিয়ানের স্লিপ দেখতে পারবেন।

খতিয়ান যাচাই করার উপায়

বর্তমানে সকল কিছু অনলাইন ভিত্তিক হওয়ার কারণে আপনি ঘরে বসেই খুব সহজেই আপনার খতিয়ান যাচাই করে নিতে পারবেন। এটি আপনার হাতে থাকা মোবাইল ফোন থেকে অথবা আপনার কম্পিউটার থেকে খুব সহজেই যাচাই করে নিতে পারবেন। আপনি ঘরে বসেই সাধারণত দুটি পদ্ধতি অনুসুরণ করে জমির খতিয়ান যাচাই করে নিতে পারবেন। সেগুলো হলোঃ
  • www.eporcha.gov.bd ওয়েবসাইটের মাধ্যমে।
  • eKhatian মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে।
www.eporcha.gov.bd ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনি উপরের দেখানো নিয়ম অনুসারে আপনার জমির খতিয়ান অনুসন্ধান করতে পারবেন। যার ফলে আপনি আপনার খতিয়ানের তথ্য ও দেখতে পারবেন। এইভাবেই আপনি খতিয়ান যাচাই করতে পারবেন।

অনলাইন থেকে খতিয়ান ডাউনলোড

আমরা সকলেই ইতিমধ্যে খতিয়ান পর্চা অনুসন্ধান করতে হয় কিভাবে সেটা জেনে গেছি। এখন খতিয়ান দেখার পরে যদি আপনাকে সেটি ডাউনলোড করার জন্য প্রয়োজন হয় তাহলে আপনি খুব সহজেই ডাউনলোড করে নিতে পারবেন নিম্নের দেখানো ধাপ গুলি অনুসরণ করার মাধ্যমে।খতিয়ান ডাউনলোড করার জন্য আপনাকে কিছু তথ্য প্রদান করতে হবে সেখানে। সেগুলি হলোঃ
  • মালিকের জাতীয় পরিচয়পত্র নং
  • নাম (ইংরেজি) জাতীয় পরিচয়পত্র অনুযায়ী
  • জন্ম তারিখ জাতীয় পরিচয়পত্র অনুযায়ী
  • একটি সচল মোবাইল নম্বর
  • ঠিকানা
আপনি নিম্নের দেখানো ছবির মতোন একটি খতিয়ান পেয়েছেন। সেখানে নিচের দিকে লিখা আছে "খতিয়ান আবেদন"। আপনি বাটনে ক্লিক করুন।

এখানে "খতিয়ান আবেদন" বাটনে ক্লিক করার পরে আপনার সামনে নিম্নের দেখানো মতো একটি ফ্রম আসবে। সেখানে যেসকল তথ্য চেয়েছে সেগুলি সকল সঠিকভাবে পূরণ করুন।

এখানে সকল তথ্য প্রদান করার পরে আপনাকে তাদের নিয়ম অনুযায়ী পেমেন্ট গেটওয়ে তে ১০০ টাকা ফি পরিশোধ করতে হবে। তারপরে আপনার আবেদন সম্পন্ন হবে। এরপরে আপনি আপনার খতিয়ানের অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে পারবেন।

খতিয়ান পর্চা সম্পর্কে সাধারণ জিজ্ঞাসা

প্রশ্নঃ পশ্চিমবঙ্গের খতিয়ান কিভাবে ডাউনলোড করব?
উত্তরঃ এখন সকল খতিয়ান অনলাইন থেকে উপরের দেখানো নিয়ম অনুযায়ি ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। তার জন্য আপনাকে বাংলাদেশ ভূমি অফিসের ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে।

প্রশ্নঃ খতিয়ান বলতে কী বোঝায়?
উত্তরঃ খতিয়ান হচ্ছে একটি প্রতিষ্ঠানের সকল হিসাবের সমষ্টিগত রুপ।

প্রশ্নঃ খতিয়ান ও প্লটের তথ্য কিভাবে পাব? 
উত্তরঃ http://banglarbhumi.gov.in/BanglarBhumi/Home.action এই ওয়েবসাইট থেকে আপনার জমির খতিয়ানের সকল তথ্য পেয়ে যাবেন।

প্রশ্নঃ জমির পর্চা কোথায় পাবো?
উত্তরঃ জমির পর্চা ইউনিয়ন ভূমি অফিস, পজেলা ভূমি অফিস এবং জেলা ডিসি অফিস এ পেয়ে যাবেন।

প্রশ্নঃ মাঠ পর্চা মানে কি?
উত্তরঃ ভূমি জরিপ করার সময়ে জমির মালিকের যে খসরা প্রদান করা হয় তাকে মাঠ পর্চা বলে। 

শেষ কথা

আজকে আমাদের এই আর্টিকেলটি আপনি যদি শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পরে থাকেন তাহলে আশা করছি আপনি খতিয়ান পর্চা অনুসন্ধান ও খতিয়ান যাচাই করার উপায় বিষয় সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এবং বুজতে পেরেছেন। এই রকম তথ্যবহুল আর্টিকেল নিয়োমিত ফ্রীতে পড়তে আমাদের ওয়েবসাইট নিয়োমিত ভিজিট করুন। আজকের এই আর্টকেলটি আপনার যদি ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি বিডির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url