মুলতানি মাটি দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায়সমূহ জেনে নিন

প্রিয় বন্ধুরা আজকের আর্টিকেলটিতে মুলতানি মাটি দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায় সমূহ সম্পর্কে আলোচনা তুলে ধরা হবে। আপনাদের মধ্যে অনেকে আছে যারা মুলতানি মাটি ব্যবহার করে ফর্সা হতে চান কিন্তু এই মাটি দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায় জানেন না, তাদের জন্য আজকের আর্টিকেলটি হতে যাচ্ছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। কারণ আজকের পোস্টটিতে মুলতানি মাটি দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায় ও মুলতানি মাটির উপকারিতা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে।
মুলতানি মাটি দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায়
আর্টিকেলসূচিপত্রঃপ্রিয় পাঠক আপনারা যদি মুলতানি মাটি দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য গুলো জানতে চান তাহলে এখনি পোস্টটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়তে থাকুন।

ভূমিকা

আপনারা হয়তো অনেকেই মুলতানি মাটি চিনে থাকেন। আবার অনেকে আছে যারা মুলতানি মাটি সম্পর্কে তেমন জানি না এবং এই মুলতানি মাটি দিয়ে কিভাবে ফর্সা হওয়া যায় সে সম্পর্কেও তারা ভালো মত জানে না। তাদের সুবিধার্থে আমরা আজকের পোস্টটিতে মুলটানি মাটি ব্যবহারের নিয়ম ও মুলতানি মাটি কিভাবে ব্যবহার করে আপনি ফর্সা হবেন তার উপায় সম্পর্কে তুলে ধরবো। তাছাড়াও যাদের মুলতানি মাটি সম্পর্কে তেমন ধারণা নেই, 
তাদেরকে মুলতানি মাটির উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে জানানোর চেষ্টা করব। এছাড়াও মুলতানি মাটি ও গোলাপ জলের ব্যবহার ,মুলতানি মাটি দিয়ে ব্রণ দূর করার নিয়ম ,মুলতানি মাটি মুখে ব্যবহারের নিয়ম ,মুলতানি মাটির দাম ,মুলতানি মাটি চেনার উপায় ইত্যাদি বিষয়গুলো সম্পর্কে আজকের এই পুরো পোস্টের আলোচনায় তুলে ধরা হবে।

মুলতানি মাটি দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায়

আমাদের মধ্যে অনেকে আছে যারা মুলতানি মাটি দিয়ে ফর্সা হতে চায়। কিন্তু তারা মুলতানি মাটি দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায় সমূহ সম্পর্কে জানেনা, এজন্য আমরা আজকের এই অংশে মুলতানি মাটি দিয়ে ফর্সা হওয়ার বিভিন্ন ধরনের উপায় গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব। মুলতানি মাটি দিয়ে সহজেই ত্বক ফর্সা করা যায়। তবে এর উপায় গুলো জানলে ত্বকের যত্নে ভালোভাবে কাজে লাগানো যায়।

মুলতানি মাটি ও হলুদ গুঁড়াঃ মুলতানি মাটি দিয়ে ফেসপ্যাক বানালে এটি সবচেয়ে কার্যকর ভাবে কাজ করে থাকে। এজন্য আপনারা মুলতানি মাটি দিয়ে ফেসপ্যাক তৈরি করবেন। প্রথমে আপনারা এক চা চামচ মুলতানি মাটির সাথে দুই চামচ হলুদ গুড়া মিশিয়ে নিবেন এবং তার সাথে সামান্য পরিমাণ গোলাপ জল মিশিয়ে নিন। এভাবে একটি ফেসপ্যাক তৈরি করুন এবং মুখে ব্যবহার করুন। 

এটি আপনি মুখে অথবা ত্বকে ব্যবহার করতে পারেন। এরপর ফেসপ্যাক নিয়ে শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা পরিষ্কার পানিতে ধুয়ে ফেলুন। এভাবে ব্যবহার করলে আপনার ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পাবে এবং ধীরে ধীরে ত্বক ফর্সা হতে শুরু করবে।

মুলতানি মাটি ও লেবুর রসঃ লেবুর রসের সাথে মুলতানি মাটি মিশিয়ে ফেসপ্যাক তৈরি করতে পারেন। তবে এর সাথে আরো কিছু উপাদান যোগ করতে হবে। হাফ চামচ লেবুর রসের সাথে ১ চা চামচ মুলতানি মাটি মেশাবেন। এরপর মিশ্রণের সাথে দুই চামচ গোলাপ জল ও এক চামচ মধু মিশিয়ে নিতে হবে। এভাবে আপনি ফেসপ্যাক তৈরি করবেন এবং মুখে ও ত্বকের ব্যবহার করুন। 

এই ফেসপ্যাকটি আপনার সম্পূর্ণ মুখে অথবা ত্বকে ভালোভাবে লাগিয়ে নিন। ২০ থেকে ৩০ মিনিট লাগিয়ে রাখুন, যখন ফেসপ্যাকটি ত্বকে শুকিয়ে যাবে তখন পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুয়ে নিবেন। এভাবে সপ্তাহে তিন থেকে চার দিন ব্যবহার করলে আপনার ত্বক ফর্সা হয়ে যাবে এবং ত্বকের বিভিন্ন ধরনের সমস্যা দূর হয়ে যাবে।

টমেটোর রস ও মুলতানি মাটিঃ একটি মাঝারি সাইজের টমেটো নিয়ে রস করে নিন। এবার এই রসের সাথে দুই টেবিল চামচ মুলতানি মাটি ও এক চা চামচ লেবুর রস মিশিয়ে নিবেন। এভাবে পেস্টটি তৈরি করে নিবেন। সকল উপাদান দিয়ে মিশ্রণটি ভালোভাবে মেশানো হয়ে গেলে ত্বকে ও মুখে ভালোভাবে ব্যবহার করুন। এটি আপনারা সপ্তাহে দুই থেকে তিন দিন ব্যবহার করতে পারেন, এতে করে আপনার ত্বকের কালো দাগ দূর করা যাবে এবং ত্বকের উজ্জ্বলতা ধীরে ধীরে বাড়তে থাকবে।

মুলতানি মাটি ও শসার রসঃ ত্বকে ও মুখের রোদে পোড়া ভাব দূর করতে শসা রসের সাথে মুলতানি মাটি মিশিয়ে ফেসপ্যাক তৈরি করে ব্যবহার করতে পারেন। এর ফলে আপনার ত্বকের রোদে পোড়া ভাব দূর হয়ে যাবে এবং ত্বকে ঠাণ্ডা ভাব অনুভব হবে। এজন্য ২ চা চামচ মুলতানি মাটি নিয়ে সামান্য পরিমাণ শসা রস করে তার সাথে মেশাবেন। শসা রস করতে আপনারা বেলেন্ডার ব্যবহার করতে পারেন। ব্লেন্ডারে শসা ও মুলতানি মাটি নিয়ে মিক্স করে নিন। এবার এটি গলায় ও মুখে ব্যবহার করুন।

দুধ ও মুলতানি মাটিঃ দুধ , ওটস মুলতানি মাটি একসাথে মিশিয়ে স্ক্রাব তৈরি করতে পারেন। এই স্ক্রাব ত্বকের যত্নে খুবই ভালো কাজ করে থাকে। ত্বকের ধুলাবালি ও তৈলাক্ত ভাব দূর করতে এ ধরনের স্ক্রাব মিশ্রণ ব্যবহার করতে পারেন। তাছাড়া ত্বক ফর্সা করা যায়। মুলতানি মাটি দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায় এর মধ্যে এই উপায়টি আপনারা দৈনিক নিয়মিত ব্যবহার করতে পারেন। আপনার তো জানেন দুধ কতটা উপকারী ত্বকের স্বাস্থ্যে। আর দুধের সাথে মুলতানি মাটি মেশালে এর গুনাগুন আরো বেড়ে যায়। এর ফলে সহজেই ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করা যায়।

টক দই ও মুলতানি মাটিঃ আপনারা চাইলে টক দইয়ের সাথে মুলতানি মাটির মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করতে পারেন। এই পেস্ট তৈরি করার জন্য এক চামচ মুলতানি মাটি ও এক চামচ টক দই নিয়ে তার সাথে লেবুর রস মিশাবেন। যাদের ত্বক বেশি সংবেদনশীল তারা লেবুর রস ব্যবহার করবেন না। এবার পেস্টটি ত্বকে ৩০ মিনিট ধরে ব্যবহার করে শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলবেন।
মুলতানি মাটি দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায়
তাহলে আশা করছি বন্ধুরা উপরের দেওয়া মুলতানি মাটিতে ফর্সা হওয়ার উপায় সমূহ সম্পর্কে ভালোভাবে জেনে গেছেন। এখন সঠিক নিয়ম অনুযায়ী ব্যবহার করুন দ্রুত আপনার ত্বকে ভালো ফলাফল দেখতে পাবেন।

মুলতানি মাটি ও গোলাপ জলের ব্যবহার

মুলতানি মাটি ও গোলাপজলের ব্যবহার সম্পর্কে অনেকেই ভালোমতো জানেনা। তাদের কথা চিন্তা করে আমরা আজকের এই অংশে মুলতানের মাটি ও গোলাপজলের ব্যবহার সম্পর্কে তুলে ধরার চেষ্টা করব। আপনারা ত্বকের যত্নে মুলতানি মাটি ও গোলাপজল একত্রে মিশিয়ে ব্যবহার করতে পারেন। আবার বিভিন্ন ধরনের ফেসপ্যাক তৈরি করেও ব্যবহার করা যায়। মুলতানি মাটি ও গোলাপজল ব্যবহার করে ফেসপ্যাক তৈরি করার জন্য আরো কিছু উপাদানের প্রয়োজন হবে। 
এক চা চামচ এলোভেরা জেল , ২ চা চামচ মুলতানি মাটি , সামান্য পরিমাণ গোলাপ জল ও একটি ভিটামিন ই ক্যাপসুল তেল সহ সকল উপাদান একত্রে মিশিয়ে ফেসপ্যাক বানাবেন। ভালোভাবে মেশানো হয়ে গেলে ফেসপ্যাকটি ত্বকে ব্যবহার করুন এবং শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন। এভাবে আপনারা মুলতানি মাটি ও গোলাপজল ত্বকের যত্নে ব্যবহার করতে পারবেন।

মুলতানি মাটির উপকারিতা

আপনার এতক্ষণে হয়তো মুলতানি মাটি দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে গেছেন। কিন্তু আপনাদের অবশ্যই মুলতানি মাটির উপকারিতা সম্পর্কে জেনে রাখতে হবে। তাহলেই বুঝতে পারবেন মুলতানি মাটি ত্বকের যত্নে কি কি ধরনের উপকার করে থাকে। তবে আর কথা না বাড়িয়ে চলুন জেনে নেই মুলতানি মাটির উপকারিতা গুলোঃ
  • মুখ ও ত্বক উজ্জ্বল করতে এটি সাহায্য করে থাকে। বিশেষ করে ত্বকের বা শরীরের উজ্জ্বলতা বাড়াতে মুলতানি মাটি সাহায্য করতে পারে।
  • তাছাড়াও মুলতানি মাটির প্রাকৃতিক ক্লিনজার হিসাবে ব্যবহার করা যায়। আপনার ত্বক ও মুখ পরিষ্কার রাখতে মুলতানি মাটি ব্যবহার করতে পারেন।
  • এটি ত্বকের ভেতরকার ময়লা পরিষ্কার করে ত্বকের নমনীয় ও মসৃণ করতে সহায়তা করে থাকে।
  • ত্বকে বা শরীরের কালো দাগ দূর করতে এই মাটি ভালো ধরনের সহায়তা করে থাকে। এছাড়া মুখের কালো দাগ দূর করতে খুবই কার্যকরী।
  • আবার মুখের ব্রণ দূর করতে মুলতানি মাটি ব্যবহার করতে পারেন। কারণ এ মাটি মুখের ব্রণ কমাতে সাহায্য করে।
  • তাছাড়া ত্বকে ব্যাকটেরিয়াজনিত সমস্যা থাকলে তা দূর করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এজন্য ত্বকের সমস্যা হয়ে থাকলে মুলতানি মাটিতে ফেসপ্যাক বানিয়ে ব্যবহার করুন।
  • ত্বকের অতিরিক্ত তৈলাক্ত ভাব দূর করতে মুলতানি মাটি ভালো রকম সহায়তা করে থাকে। যাদের ত্বকে তৈলাক্ত ভাব দূর করতে চান তারা মুলতানি মাটি ব্যবহার করুন।
  • এছাড়াও জানা গেছে মুলতানি মাটি নিয়মিত ব্যবহার করলে ত্বক ফর্সা করা যায়। এই মাটি দিয়ে বিভিন্ন ধরনের ফেসপ্যাক বা পেস্ট বানিয়ে ত্বকে ব্যবহার করলে ফর্সা হওয়া যায়। তবে এক্ষেত্রে ধৈর্য ধরে ব্যবহার করে যেতে হবে। তাহলে ভালো ধরনের ফলাফল পাওয়া যাবে।

মুলতানি মাটির অপকারিতা

মুলতানি মাটির উপকারিতা জানার পাশাপাশি আপনাদের অবশ্যই মুলতানি মাটির অপকারিতা গুলো সম্পর্কে জেনে রাখতে হবে। তবে বলে রাখা ভালো মুলতানি মাটির তেমন কোন অপকারিতা নেই বললেই চলে। কারণ এই মাটি ত্বকের যত্নে সবচেয়ে উপকার বেশি করে থাকে। তবে অনেকের ব্যবহারের বিধি অনুযায়ী সামান্য পরিমাণ অপকারিতা লক্ষ্য করা যায়।
সঠিকভাবে এটি ব্যবহার না করলে ত্বকে সাধারণভাবে কিছু সমস্যা দেখা দিতে পারে। যেমন ত্বকের শুষ্কতা ভাব বেড়ে যেতে পারে এবং ব্রণের সমস্যা বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। যাদের ত্বকে মুলতানি মাটি বেশি ব্যবহার করলে সমস্যা হয়, তারা সে ক্ষেত্রে সপ্তাহে যেকোনো দুইদিন এটি ব্যবহার করবেন। সঠিক নিয়ম অনুযায়ী ফেসপ্যাক ও মিশ্রণ বানিয়ে ব্যবহার করলে নানান উপকারিতা পাওয়া যায়।

মুলতানি মাটি কি প্রতিদিন ব্যবহার করা যাবে

আপনারা অনেকেই প্রশ্ন করে থাকেন মুলতানি মাটি কি প্রতিদিন ব্যবহার করা যাবে। এই প্রশ্নের উত্তরে বলব হ্যাঁ অবশ্যই ব্যবহার করা যাবে। তবে নিয়ম অনুযায়ী ব্যবহার করলে ভালো উপকার পাওয়া যায়। কিন্তু অনেকের ক্ষেত্রে নিয়মিত ব্যবহার করা যাবে না। কারণ যেসব ব্যক্তির ক্ষেত্রে মুলতানি ব্যবহার করলে ত্বকে চুলকানি দেখা দেয় এবং অন্যান্য সমস্যা হয়ে থাকে, তাদের ক্ষেত্রে মুলতানি মাটি সপ্তাহে যে কোন একদিন ব্যবহার করতে হবে।
আর যাদের ত্বকে এই মাটি ব্যবহারে কোন ধরনের সমস্যা হয় না, তারা নিয়মিত গোসলের আগে ব্যবহার করতে পারেন। তবে আমার মতে সপ্তাহে তিন থেকে চার দিন ব্যবহার করুন তাহলে ধীরে ধীরে বিভিন্ন ধরনের উপকারিতা পাবেন। কারণ বেশি ব্যবহার করার চেয়ে সঠিক নিয়ম অনুযায়ী ব্যবহার করা ভালো। তবে আপনারা চাইলে মুলতানি মাটি প্রতিদিন ব্যবহার করতে পারবেন

মুলতানি মাটি দিয়ে ব্রণ দূর করার নিয়ম

মুলতানি মাটি দিয়ে কিন্তু ব্রণ সমস্যা দূর করা যায়। ব্রণ দূর করতে মুলতানি মাটি অধিক কার্যকরী ভূমিকা পালন করে থাকে। তবে আপনারা যারা মুলতানি মাটি দিয়ে ব্রণ দূর করার নিয়ম সম্পর্কে জানেন না তারা এখন এই অংশের মাধ্যমে ভালোভাবে জেনে নিন। বর্তমানে ছেলে ও মেয়ে উভয়েরই ব্রণের সমস্যা হয়ে থাকে। তবে দেখা যায় ছেলেদের থেকে মেয়েদের ব্রণ বেশি হয়ে থাকে। এজন্য মেয়েদের অবশ্যই ভালোভাবে এই অংশটি পড়া উচিত। 

মুলতানি মাটির ব্যবহার করে অতি সহজেই ব্রণ দূর করা যায়। মুলতানি মাটিতে ব্রণ দূর করার জন্য কিছু উপায় ও নিয়ম অবলম্বন করতে হবে। মুলতানি মাটি দিয়ে পেস্ট বানিয়ে ব্রণে উপর লাগিয়ে ব্রণ সমস্যা কমাতে পারেন। এর জন্য এক চা চামচ মুলতানি মাটি ,হাফ চামচ হলুদ গুঁড়া , এক চামচ কমলার খোসার গুড়া ও এক চা চামচ মধু ভালোভাবে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করতে হবে। আপনার মুখ ভালোভাবে ধুয়ে পরিষ্কার করে নিবেন এবং পেস্টটি মুখের ব্রণের উপর লাগিয়ে ম্যাসাজ করুন। 
এভাবে ২০ মিনিট লাগিয়ে রাখার পর মুখ পরিষ্কার পানিতে ধুয়ে নিবেন। উক্ত উপায়টি আপনারা সপ্তাহে তিন দিন ব্যবহার করতে পারেন তাহলে আশা করা যায় ব্রণের সমস্যা দ্রুত সমাধান হয়ে যাবে। তাছাড়া ব্রণ দূর করার আরেকটি উপায় রয়েছে। এই উপায়ে মুলতানি মাটির সাথে নিম পাতার গুঁড়া মিশিয়ে মিশ্রণ বানাতে হয় এবং উক্ত মিশ্রণটি ব্রণে ব্যবহার করলে ব্রণ আস্তে আস্তে কমতে থাকে।

মুলতানি মাটি মুখে ব্যবহারের নিয়ম

মুলতানি মাটি মুখে ব্যবহারের তেমন নিয়ম নেই। আপনার আগেই মুলতানি মাটি দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায় অংশে মুলতানি মাটি মুখে ব্যবহারের নিয়ম সম্পর্কে জেনে গেছেন। কারণ সেখানে আমরা ফেসপ্যাক বানিয়ে মুলতানি মাটি ব্যবহার করার নিয়ম সম্পর্কে জানানোর চেষ্টা করেছি। তাছাড়া আরো কিছু নিয়ম এখন আমরা আলোচনা করব যার ফলে আপনারা মুলতানি মাটি মুখে সঠিকভাবে ব্যবহার করতে পারবেন।
মুলতানি মাটি আপনি ফেসপ্যাক বানিয়ে অথবা পেস্ট তৈরি করে ব্যবহার করতে পারেন। মুলতানি মাটি অনেক ধরনের উপকারিতা করে থাকে। বিশেষ করে ত্বকে জমে থাকা ধুলাবালি পরিষ্কার করে, ত্বকের তেল ভাব দূর করে। এই মাটি দিয়ে আপনি ফেসপ্যাক বানিয়ে ব্যবহার করলে সবচেয়ে ভালো উপকার পাওয়া যাবে। মুখে আপনি মুলতানি মাটির ফেসপ্যাক বানিয়ে এপ্লাই করতে পারেন। মুখের চোখের নিচে ডার্ক সার্কেল অথবা চোখের নিচে কালো দাগ দূর করতে মুলতানি মাটির সাথে হলুদ ও টমেটো রস মিশিয়ে চোখের নিচে ব্যবহার করতে পারেন।

তাছাড়া এটি পুরো মুখে ব্যবহার করা যায়। এর পাশাপাশি আপনারা আরেকভাবে মুলতানি মাটি ও মধু মেশিয়ে ব্যবহার করতে পারেন। তবে এর সাথে কলা মেশালে আরো গুনাগুন অনেকটা বেড়ে যায়। এজন্য মুলতানি মাটি , কলা ও মধু একসাথে মিশিয়ে মিশ্রণটি মুখে ভালোভাবে ব্যবহার করুন তাহলে মুখের তেল তেলে ভাব দূর হয়ে যাবে এবং মুখের ছোপ ছোপ দাগ দূর হতে থাকবে। এভাবে আপনারা মুখে মুলতানি মাটি ব্যবহার করতে পারেন।

মুলতানি মাটি মুখে দিলে কি হয়

আপনারা কি জানেন মুলতানি মাটি মুখে দিলে কি হয়, যদি না জেনে থাকেন তাহলে এই পাঠে ভালোভাবে জেনে নিন। মুলতানি মাটি মুখে দিলে মুখের উজ্জ্বলতা বাড়ানো যায়, মুখের তৈলাক্ত ভাব দূর হয়। তাছাড়া মুখের যে কোন দাগ দূর করতে মুলতানি মাটি সহায়তা করতে পারে। চোখের নিচে কালো দাগ দূর করতে মুলতানি মাটি সাহায্য করে থাকে। এছাড়াও মুলতানের মাটি মুখে ব্যবহার করলে মুখের আদ্রতা ভাব দূর হয় এবং মুখ মসৃণ নমনীয় থাকে।
মুলতানি মাটি মুখে দিলে মুখ ফর্সা করা যায়। তবে মুলতানি মাটি দিয়ে মুখ ফর্সা করার কিছু নিয়ম রয়েছে। সেগুলো আমরা মুলতানি মাটি দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায় অংশে ভালোভাবে আলোচনা করেছি, সেই অংশটি ভালো করে পড়ুন তাহলে ফর্সা হওয়ার বিস্তারিত উপায় জানতে পারবেন। আশা করছি আপনারা বুঝতে পেরেছেন মুলতানি মাটি মুখে দিলে কি হয়।

মুলতানি মাটি ও লেবুর রস

লেবুর রস আর মুলতানি মাটি মিশিয়ে ব্যবহার করতে পারেন। চুলের খুশকি দূর করতে লেবুর রসের সাথে মুলতানি মাটি মিশিয়ে পেস্ট বানান এবং সেই পেস্টটি গোসল করার আগে চুলে ব্যবহার করলে চুলের খুশকি দূর হয়ে যায়। এই পেস্ট তৈরি করার জন্য আপনারা পাঁচ থেকে ছয় চামচ মুলতানি মাটি নিবেন এবং তারপর একটি বড় আকারের লেবু নিয়ে রস করে নিবেন।
এবার উপাদান দুটি একত্রে মেশাবেন। যদি বেশি গাড় হয়ে যায় তাহলে সামান্য পরিমাণ পানি মিশিয়ে পাতলা করে নিবেন। মিশ্রণটি গোসল করার এক ঘন্টা আগে মাথায় চুলে ভালোভাবে ব্যবহার করবেন। চুলের মিশ্রণটি শুকিয়ে গেলে পানি দিয়ে ধুয়ে নিবেন। এভাবে ব্যবহার করলে চুলের খুশকি দূর করতে পারবেন এবং চুলের স্বাস্থ্য বজায় থাকবে।

মুলতানি মাটির দাম

আপনাদের মধ্যে অনেকেই আছে যারা মুলতানি মাটির দাম সম্পর্কে জানতে চায়। তাদের জন্য আমরা এখন মুলতানি মাটির দাম আলোচনা করব। তবে মুলতানি মাটির কোয়ালিটির উপর নির্ভর করে দাম বিভিন্ন রকমের হয়ে থাকে। তাছাড়াও ভিন্ন ভিন্ন দোকানে দামের কম বেশি পার্থক্য দেখা যায়। তবে সাধারণত ১০০ গ্রাম মুলতানি মাটির দাম ১০০ টাকা হয়ে থাকে। আর ৫০ গ্রামের দাম ৪৫ টাকা। তবে দামের সামান্য কিছু পরিবর্তন লক্ষ্য করা যেতে পারে। এজন্য আপনারা সরাসরি বাজারে গিয়ে দাম জেনে নিবেন। এই মুলতানি মাটি আপনারা বিভিন্ন ফেসিয়াল দোকানে অথবা অনলাইন স্টোরে পেয়ে যাবেন।

মুলতানি মাটি চেনার উপায়

আমরা এখন মুলতানি মাটি চেনার উপায় সম্পর্কে তুলে ধরব। বাজারের সাধারণত দুই ধরনের মুলতানি মাটি পাওয়া যায়। এর মধ্যে একটি হলুদ রঙের হয়ে থাকে আর আরেকটি কালচে ধূসর রঙের। তবে ব্যবহার দিক দিয়ে হলুদ রঙের মুলতানি মাটি বেশি ব্যবহার করা হয়ে থাকে। আর এই হলুদ রঙের মুলতানি মাটি ত্বকে বেশি উপকারিতা দিয়ে থাকে এজন্য আপনারা অবশ্যই বাজার থেকে হলুদ বর্ণের মুলতানি মাটি ক্রয় করবেন। সাধারণত আসল মুলতানি মাটির কোনরকম ঘ্রাণ থাকে না। তবে বর্তমানে অনেক কোম্পানি মুলতানি মাটিতে সুগন্ধি ব্যবহার করে থাকে। কিন্তু এখানে আসল মুলতানি মাটির ঘ্রাণ নকল মুলতানি মাটির ঘ্রাণ এর চেয়ে ভালো হবে।

মুলতানি মাটি সম্পর্কে সাধারণ জিজ্ঞাসা(FAQ)

প্রশ্নঃমুলতানি মাটি কিভাবে ব্যবহার করব?
উত্তরঃ মুলতানি মাটি আপনারা অ্যালোভেরা জেল, গোলাপ জলের সাথে মিশিয়ে ব্যবহার করতে পারেন। এক্ষেত্রে এক চামচ মুলতানি মাটি , সামান্য কিছু পরিমাণ এলোভেরা জেল ও গোলাপজল নিয়ে একত্রে মিশিয়ে ত্বকে ব্যবহার করুন।

প্রশ্নঃমুলতানি মাটির ফেসপ্যাক কিভাবে ব্যবহার করবেন?
উত্তরঃ মুলতানি মাটির ফেসপ্যাক ত্বকে বা মুখে ব্যবহার করতে পারবেন। ফেসপ্যাক বানানোর জন্য মুলতানি মাটি , হলুদ গুঁড়া ও লেবুর রস ব্যবহার করুন। উপাদান গুলো একত্রে মিশিয়ে মুখটি ভালোভাবে ধুয়ে পরিষ্কার করে ফেসপ্যাকটি মুখে এপ্লাই করুন।

প্রশ্নঃমুলতানি মাটি খেলে কি মুখের কালো দাগ দূর হয়?
উত্তরঃ মুলতানি মাটি খেলে মুখের কালো দাগ দূর হয় না, বরং বিভিন্ন ধরনের সমস্যা দেখা দিতে পারে। তবে মুলতানি মাটি মুখে ব্যবহার করলে কালো দাগ দূর করা সম্ভব। কিন্তু বলে রাখা ভালো মুলতানি মাটি খাওয়ার কোন উপাদান নয়, তাই এটি খাওয়া যায় না।

প্রশ্নঃচন্দন পাউডার না মুলতানি মাটি কোনটা ভালো?
উত্তরঃ চন্দন পাউডার ও মুলতানি মাটি দুটি উপাদানই ত্বকে বিভিন্ন ধরনের উপকারিতা দিয়ে থাকে। এই দুইটি উপাদানই ত্বকের জন্য ভালো। এজন্য সরাসরি বলা যায় না কোন উপাদানটি ভালো। তবে আমার জানামতে মুলতানি মাটির চেয়ে চন্দন পাউডার কিছুটা হলে ভালো উপকারিতা দিয়ে থাকে।

প্রশ্নঃমুলতানি মাটি কখন ব্যবহার করতে হয়?
উত্তরঃ মুলতানি মাটি আপনারা ত্বকের শুষ্কতা ভাব দূর করতে , মুখে ব্রণ দূর করতে , চোখের নিচে কালো দাগ দূর করতে ব্যবহার করতে পারেন। এটি আপনারা দিনের যে কোন সময় ব্যবহার করতে পারবেন।

লেখকের মন্তব্য

আজকের এই সম্পূর্ণ পোস্টে আমরা মুলতানি মাটি দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায় সমূহ সম্পর্কে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। তাছাড়া মুলতানি মাটির উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে। মুলতানি মাটি আপনি কিভাবে মুখে ব্যবহার করবেন এ সম্পর্কেও জানানোর চেষ্টা করা হয়েছে। আশা করছি আজকের পোস্টটি পড়ে আপনারা উপকৃত হয়েছেন। মুলতানি মাটি দিয়ে ফর্সা হওয়ার উপায় সম্পর্কে আপনার পরিচিতদের বা বন্ধুদের জানাতে পোস্টটি শেয়ার করতে পারেন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি বিডির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url