পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে সৌদি আরব ভিসা চেক করুন ২ মিনিটে বিস্তারিত তথ্য জানুন

আপনারা যারা সৌদি আরবে যেতে চান তারা অতি সহজেই ঘরে বসে অনলাইন এর মাধ্যমে সৌদি আরব ভিসা চেক করতে পারবেন। আর এই জন্য আপনাদের সৌদি আরব ভিসা চেক অনলাইন বাংলাদেশ সম্পর্কে জানতে হবে। আপনাদের সুবিধার্থে আমরা আজকের আর্টিকেলে সৌদি আরব ভিসা চেক অনলাইন বাংলাদেশ ও পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে সৌদি আরবের ভিসা চেক করার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব।
সৌদি আরব ভিসা চেক অনলাইন বাংলাদেশ
আর্টিকেলসূচিপত্রঃআপনারা যদি সৌদি আরব ভিসা অনলাইনে মাধ্যমে চেক করতে চান তাহলে অবশ্যই পোস্টটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়ুন। কারণ আজকের পোস্টে কিভাবে আপনি সৌদি ভিসা চেক করবেন তা সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরা হবে।

ভূমিকা

আমাদের মধ্যে অনেক ব্যক্তি রয়েছে যারা সৌদি আরবে কাজের উদ্দেশ্যে যাওয়ার জন্য ভিসা আবেদন করে থাকেন। আর এই ভিসা কোন পর্যায়ে রয়েছে অর্থাৎ আপনার ভিসার বর্তমান স্ট্যাটাস কি এ সম্পর্কে অনেকেই জানতে চান। তাদের জন্যই আমরা আজকের পোস্টটিতে সৌদি ভিসা চেক করার নিয়ম গুলো সম্পর্কে আলোচনা করব। আপনারা অনেকেই সৌদি আরবে ব্যবসা-বাণিজ্য অথবা হজ করার জন্য ভিসা এপ্লাই করে থাকেন । তাহলে আপনার ভিসার বর্তমান অবস্থা জানতে হবে।
আপনার ভিসাটি গ্রহণযোগ্য কিনা, বৈধ কিনা এ সকল কিছু দেখার জন্য ভিসা চেক করতে হয়। আর এজন্য আপনাদের সৌদি আরব ভিসা চেক অনলাইন বাংলাদেশ সম্পর্কে জানতে হবে। আপনার যেহেতু বাংলাদেশ থেকে সৌদি আরবে যাওয়ার জন্য ভিসা আবেদন করেছেন। সে ক্ষেত্রে আপনাকে বাংলাদেশ থেকেই সৌদি আরব ভিসা চেক করতে হবে।

সৌদি ভিসা চেক করার নিয়ম বাংলাদেশ

আপনারা সৌদি আরবের ভিসা তিনটি পদ্ধতিতে চেক করতে পারেন। এর ফলে আপনারা অতি সহজেই ভিসার বর্তমান স্ট্যাটাস সম্পর্কে জানতে পারবেন। ভিসা চেক করা খুবই জরুরী, কারণ আমাদের দেশে অনেক এজেন্সিরা ভিসা নিয়ে প্রতারণা করে থাকে। এজন্য আপনাদের আবেদন করার পর অবশ্যই পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে ভিসা চেক করতে হবে। যা আমরা পুরো পোস্টে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করব। নিম্নে সৌদি ভিসা চেক করার তিনটি নিয়ম তুলে ধরা হলোঃ
  • অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে সৌদি ভিসা চেক 
  • অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করে
  • সৌদি দূতাবাস থেকে
আপনারা চাইলে এই তিনটি উপায়ে সৌদি ভিসা চেক করতে পারবেন। অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে অতি সহজে ভিসা চেক করা যায়। কিভাবে আপনি অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে ভিসা চেক করবেন তা আমরা একটু পরে বিস্তারিত আলোচনা করব। 

সৌদি আরব ভিসা চেক অনলাইন বাংলাদেশ

আপনারা যারা সৌদি আরবে যাওয়ার উদ্দেশ্যে পাসপোর্ট এর আবেদন করেছেন। তাদের অবশ্যই ভিসার বৈধতা যাচাই করার জন্য ভিসা চেক করতে হয়। তাছাড়াও ভিসার তথ্য ঠিক আছে কিনা সেটি জানার জন্য সৌদি ভিসা অনলাইনে চেক করতে হয়। সৌদি ভিসা চেক করার সবচেয়ে সহজ ও উত্তম মাধ্যম হলো অফিসিয়াল ওয়েবসাইটের মাধ্যমে চেক করা। 
আপনারা সৌদি ভিসা প্রসেসিং অফিসিয়াল ওয়েবসাইট এর মাধ্যমে অতি সহজেই পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে সৌদি ভিসা চেক করতে পারবেন। তাছাড়া আপনারা চাইলে সৌদি আরব ভিসা স্ট্যাটাস চেক অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করেও ভিসা চেক করতে পারবেন। এর পাশাপাশি আরেকটি উপায় রয়েছে। সেটি হল বাংলাদেশে অবস্থিত সৌদি দূতাবাসে যোগাযোগ করা। 
এক্ষেত্রে আপনাকে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সহ দূতাবাসে যেতে হবে। আপনার সৌদি ভিসার কাগজটি সঠিক রয়েছে কিনা সেটি জানার জন্য পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে ভিসাটি চেক করবেন। চলুন আর কথা না বাড়িয়ে পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে সৌদি ভিসা চেক করার নিয়ম জেনে নেই।

পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে সৌদি ভিসা চেক করার পদ্ধতি - সৌদি ভিসা স্টাম্পিং চেক

আপনার হাতের কাছে মোবাইল ফোন অথবা কম্পিউটার থাকলে অতি সহজেই অনলাইন এর মাধ্যমে পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে সৌদি ভিসা চেক করতে পারবেন। তবে আপনাদের প্রথমেই সৌদি ভিসা চেক করার অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে। সৌদি আরবের ভিসা চেক করার অফিসিয়াল ওয়েবসাইট হলোঃ https://visa.mofa.gov.sa/VisaPerson/GetApplicantData। আপনারা এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে সৌদি আরবের ভিসা চেক করতে পারবেন। 

স্টেপ ১ঃ প্রথমে যেকোনো ব্রাউজারে গিয়ে উক্ত ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন। তবে এটি যেহেতু সৌদি আরবের ওয়েবসাইট। সেক্ষেত্রে এখানে সকল কিছু আরবীতে লেখা থাকবে। তাই আপনি আরবি লেখা গুলো ইংলিশে পরিবর্তন করে নিবেন। ল্যাঙ্গুয়েজ ইংলিশ করার জন্য ওয়েবসাইটে বাম পাশের ওপরের কোনায় E চিহ্নটিতে ক্লিক করবেন। নিচে ছবি দিয়ে বোঝানো হলোঃ
স্টেপ ২ঃ ওয়েবসাইটের ল্যাঙ্গুয়েজ ইংলিশ করা হয়ে গেলে, এবার আপনাকে খালি ঘর গুলোতে সকল তথ্য দিয়ে পূর্ণ করতে হবে।
উপরের ছবিতে লাল দাগ দিয়ে মার্ক করে দেখানো হয়েছে। আপনি সেই ফাঁকা ঘরগুলো আপনার প্রয়োজনীয় পাসপোর্ট এর তথ্য দিয়ে পূরণ করবেন।
  • Passport Number(পাসপোর্ট নম্বর): পাসপোর্ট নাম্বার বক্সটিতে আপনার পাসপোর্ট নাম্বার লিখবেন। এখানে আপনার সৌদি আরবের ভিসার পাসপোর্ট নাম্বারটি লিখতে হবে।
  • Current Nationality(বর্তমান জাতীয়তা): এই অপশনে আপনাকে জাতীয়তা সিলেক্ট করতে হবে। এখানে মূলত আপনি যে দেশ থেকে পাসপোর্ট চেক করতেছেন সেটি নির্বাচন করতে হবে। আপনারা যেহেতু বাংলাদেশ থেকে ভিসা চেক করতেছেন সে ক্ষেত্রে বাংলাদেশ সিলেক্ট করতে হবে।
  • Visa Type(ভিসার ধরণ): এই অপশনটিতে ভিসার ধরন নির্বাচন করতে হবে। অর্থাৎ আপনি কি উদ্দেশ্যে সৌদি আরবে যাচ্ছেন সেটি সিলেক্ট করতে হবে। কাজের উদ্দেশ্যে সৌদি আরব ভিসা হলে “Work” ও ভ্রমণের জন্য হইলে “Visit” সিলেক্ট করতে হবে।
  • Visa Issuing Authority(ভিসা ইস্যুকারী কর্তৃপক্ষ): আপনার ভিসা যেহেতু বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে ইস্যু করা হয়েছে, সে ক্ষেত্রে আপনাকে এখানে “Dhaka” নির্বাচন করতে হবে।
  • Image Code(ছবি কোড): এবার এই অপশনে ক্যাপচায় দেওয়া কোড গুলো টাইপ করতে হবে। ক্যাপচাটি অবশ্যই সঠিকভাবে পূরণ করবেন।
  • এখন আপনাকে সর্বশেষে সার্চ অপশনটিতে ক্লিক করতে হবে। আপনার দেওয়া তথ্যগুলো সঠিক হলে কিছুক্ষণের মধ্যেই আপনার পাসপোর্ট এর সকল ডিটেলস চলে আসবে। পাসপোর্ট সম্পর্কিত সকল তথ্য আপনার সামনে ওয়েবসাইটে শো করবে।
সার্চ অপশনটিতে ক্লিক করার পর আপনার ভিসার প্রয়োজনের সকল তথ্য দেখাবে। আপনি এখান থেকে ভিসার তথ্যগুলো যাচাই-বাছাই করে নিতে পারবেন। যদি ভিসাতে কোন ভুল থাকে তাহলে সেটি
সংশোধনের জন্য আবেদন করতে পারবেন। আশা করছি আপনারা পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে কিভাবে সৌদি আরব ভিসা চেক অনলাইন বাংলাদেশে করা যায় সেটি বুঝতে পেরেছেন। এভাবে আপনারা পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে সৌদি ভিসা স্টাম্পিং চেক করতে পারবেন।

এপ্লিকেশন ডাউনলোড করার মাধ্যমে সৌদি ভিসা চেক অনলাইন বাংলাদেশ

আপনারা চাইলে গুগল প্লে স্টোর থেকে অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করার মাধ্যমেও সৌদি আরবের ভিসা চেক করতে পারবেন। বর্তমানে গুগল প্লে স্টোরে সৌদি আরবে ভিসা চেক করার জন্য বিভিন্ন ধরনের অ্যাপ্লিকেশন রয়েছে। আপনি সেগুলো ইনস্টল করে ভিসা চেক করতে পারবেন। এর জন্য প্রথমেই আপনাকে গুগল প্লে স্টোর ওপেন করতে হবে। আপনার মোবাইলে থাকা গুগল প্লেস্টোর ওপেন করুন। এবার গুগল প্লে স্টোরে সার্চ বাড়ে Saudi Arabia visa Status check লিখে সার্চ করুন। 
সৌদি আরব ভিসা চেক অনলাইন বাংলাদেশ
এবার আপনার সামনে অ্যাপ্লিকেশনটি শো করবে। আপনি ইন্সটল বাটনে ক্লিক করে ইন্সটল করে নিবেন। মোবাইল ফোনে উক্ত অ্যাপ্লিকেশন ইনস্টল হওয়ার পরে অ্যাপ্লিকেশনটি ওপেন করবেন। অ্যাপ্লিকেশন ওপেন করার পর প্রয়োজনীয় পারমিশন গুলো দিয়ে দিবেন। এরপর এপ্লিকেশন চালু হলে আপনি অতি সহজেই সেই পূর্বের মতো পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে ভিসা চেক করতে পারবেন।এ

প্লিকেশনটিতে পূর্বের মতো ফর্ম আসবে, সেখানে আপনি পাসপোর্ট সম্পর্কিত প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে সার্চ বাটনে ক্লিক করবেন তাহলেই আপনার সৌদি ভিসা বর্তমান অবস্থা বা ডিটেলস দেখতে পারবেন। মূলত এপ্লিকেশনটি সরাসরি সৌদি ভিসা অফিসিয়াল ওয়েবসাইট ওপেন করে। যার ফলে আগের মতই সকল তথ্য দিয়ে পূরণ করতে হয়।

বাংলাদেশে থাকা সৌদি দ্রুতবাস থেকে সৌদি ভিসা চেক করার উপায়

বাংলাদেশে থাকা সৌদি দ্রুতবাসে সরাসরি গিয়ে সৌদি ভিসা চেক করতে পারবেন। এজন্য আপনাদের ভিসা সম্পর্কিত প্রয়োজনে ডকুমেন্ট ও জাতীয় পরিচয় পত্রসহ নিয়ে বাংলাদেশে অবস্থিত সৌদি দূতাবাসে যেতে হবে। সেই অফিসে যাওয়ার পর কর্মরত অফিসারদের নিকট সকল তথ্য জমা দিয়ে আবেদন করতে হবে। অফিসাররা আপনার সকল ডকুমেন্ট চেক করে ভিসা সম্পর্কিত তথ্যগুলো জানিয়ে দেবে। আপনার সৌদি ভিসার বর্তমান অবস্থা কি ও ভিসা বৈধ কিনা সকল কিছু তথ্য তারা আপনাকে বলে দিবে।

সৌদি আরব যেতে কি কি কাগজ লাগে

সৌদি আরবে যাওয়ার জন্য অবশ্যই সৌদি আরবের ভিসা প্রয়োজন হয়। সৌদি আরবে যেতে হলে যেকোনো একটি ভিসা দরকার হয়। বর্তমানে সৌদি আরবে যাওয়ার জন্য অনেক ধরনের ভিসা রয়েছে। তবে এই ভিসাগুলো আবেদন করার জন্য প্রয়োজনীয় কিছু কাগজপত্রের প্রয়োজন হয়। তবে অনেকে আছে যারা সৌদি আরবে যেতে চাচ্ছেন ,কিন্তু সৌদি আরবে যেতে কি কি কাগজ লাগে এ সম্পর্কে জানেন না। তাদের জন্যই আমরা আজকের এই অংশে সৌদি আরবে যেতে কি কি প্রয়োজনীয় কাগজ লাগতে পারে সেই সম্পর্কে তুলে ধরব।
  • প্রথমে থাকতে হবে একটি বৈধ পাসপোর্ট
  • সদ্যতোলা পাসপোর্ট সাইজের দুটি রঙিন ছবি
  • জাতীয় পরিচয় পত্র বা ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি
  • বাংলাদেশ পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট
  • মেডিকেল সার্টিফিকেট
  • করোনা ভ্যাকসিন সার্টিফিকেট
  • যদি কোন কোম্পানিতে চাকরির উদ্দেশ্যে যেতে চান তাহলে ওই কোম্পানির ডিটেইলসের ফটোকপি।
সাধারণত ভিসা করার জন্য এ ধরনের প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের প্রয়োজন হয়। আপনারা ভিসা দ্রুত করার জন্য উপরোক্ত কাগজগুলো সংগ্রহ করে রাখবেন। যাতে করে আপনারা যথাসময়ে কাগজপত্রগুলো ভিসা অফিসে সাবমিট করতে পারেন।

সৌদি আরবে যাওয়ার সর্বনিম্ন বয়স কত

সৌদি আরবে যেতে হলে অবশ্যই আপনার সর্বনিম্ন বয়স হতে হবে। সৌদি আরবে কাজের উদ্দেশ্যে যাওয়ার জন্য সর্বনিম্ন বয়স ২১ বছর নির্ধারণ করা হয়েছে ।অর্থাৎ আপনার বয়স যদি ২১ বছরে কম হয় তাহলে আপনি কাজের উদ্দেশ্যে সৌদি আরবে যেতে পারবেন না। তবে আপনার বয়স ২১ বছর হলে সৌদি আরবে কাজের উদ্দেশ্যে যেতে পারবেন। আপনারা যদি সৌদি আরবের কাজের ভিসা পেতে চান তাহলে অবশ্যই আপনার বয়স ২১ থেকে ৪৫ বছরের মধ্যে হতে হবে। 

তাছাড়া মহিলারা গৃহকর্মী কাজের উদ্দেশ্যে যেতে চাইলে তাদের বয়স সর্বনিম্ন ২৫ বছর থেকে ৪৫ বছর পর্যন্ত হতে হবে। তাহলে বোঝা যায় মহিলাদের বয়স সাধারণত ২৫ বছর হলে তারা সৌদি আরবে কাজ করতে পারবে। আশা করছি আপনারা সৌদি আরবে যাওয়ার সর্বনিম্ন বয়স কত এ সম্পর্কে ভালোভাবে জানতে পেরেছেন। সর্বশেষে বলা যায় সৌদি আরবে যাওয়ার সর্বনিম্ন বয়স হলো ২১ বছর।

সৌদি ভিসা চেক সম্পর্কিত সাধারণ জিজ্ঞাসা(FAQ)

প্রশ্নঃসৌদি আরবের ভিসা কত প্রকার?
উত্তরঃ বর্তমানে সৌদি আরবের ৬টি ভিসা চালু রয়েছে অর্থাৎ সৌদি আরবের ভিসা ছয় প্রকার বলা যায়।

প্রশ্নঃসৌদি আরবের ভিসা কিভাবে চেক করে?
উত্তরঃ সৌদি আরবের ভিসা আপনি অনলাইনের মাধ্যমে সরাসরি তাদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে ভিজিট করে চেক করতে পারবেন। এখানে আপনাকে পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে সকল তথ্য পূরণ করে ভিসা চেক করতে হবে।

প্রশ্নঃসৌদি আরবের ভিজিট ভিসা স্ট্যাটাস চেক?
উত্তরঃ সৌদি আরবের ভিজিট ভিসা স্ট্যাটাস চেক করার জন্য পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে সরাসরি অফিসিয়াল ওয়েবসাইট ব্যবহার করে চেক করতে হবে। তবে ভিজিট ভিসা স্ট্যাটাস চেক করার জন্য ওয়েবসাইটে ফ্রম এ ভিসার ধরন হিসাবে Visit সিলেক্ট করতে হবে।

প্রশ্নঃসৌদি আরব যাওয়ার বয়স সীমা কত?
উত্তরঃ সৌদি আরবে যাওয়ার সর্বনিম্ন বয়স সীমা ২১ বছর। যাদের বয়স সর্বনিম্ন ২১ বছর তারা সৌদি আরবে যেতে পারবে এবং সেখানে গিয়ে কাজ করতে পারবে।

শেষ কথা

আশা করছি আপনারা আজকের পুরো পোষ্টটি পড়ে সৌদি আরব ভিসা চেক অনলাইন বাংলাদেশ ও পাসপোর্ট নাম্বার দিয়ে সৌদি ভিসা চেক করার নিয়ম সম্পর্কে ভালোভাবে জানতে পেরেছেন। তাছাড়াও সৌদি আরবে যাওয়ার জন্য সর্বনিম্ন বয়স কত সে সম্পর্কেও পোস্টটি আলোচনা করা হয়েছে। এর পাশাপাশি সৌদি আরবের ভিসা করার জন্য কি কি প্রয়োজনে ডকুমেন্ট লাগে সেগুলো তুলে ধরা হয়েছে। আপনারা যারা সৌদি আরবে যেতে চাচ্ছেন তারা অবশ্যই সৌদি আরবের সঠিক ভিসা আবেদন করে সৌদি আরবে যাবেন। আর আপনার ভিসা সঠিক কিনা সেটি যাচাই করার জন্য সৌদি ভিসা চেক করুন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি বিডির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url