ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেলে কি মোটা হয় ও ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট উপকারিতা কি কি জানুন

প্রিয় বন্ধুরা, আপনারা অনেকে আছেন যারা মোটা হওয়ার জন্য ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেয়ে থাকেন। তবে ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেলে কি মোটা হয় এ সম্পর্কে অনেকে ভালো মত জানেন না। এজন্য আমরা আজকের এই আর্টিকেলটিতে ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেলে কি মোটা হয় ও ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট এর উপকারিতা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করব।
ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেলে কি মোটা হয়
আর্টিকেল সূচিপত্রঃপ্রিয় পাঠক আপনারা যদি ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেলে কি মোটা হয় ও ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট এর উপকারিতা সম্পর্কে জানতে চান তাহলে অবশ্যই পোস্টটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সকালে পড়তে থাকুন। কারণ পোস্টটিতে ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেলে কি মোটা হওয়া যায় ও ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট উপকারিতা সম্পর্কে আলোচনা করা হবে।

ভূমিকা

আমরা মোটা হওয়ার জন্য প্রায় অনেকেই বিভিন্ন রকম ওষুধ খেয়ে থাকি। বিশেষ করে অনেকেই মোটা হওয়ার জন্য ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেয়ে থাকে। তবে সবারই একটি প্রশ্ন থাকে ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেলে কি মোটা হয়। ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেলে ওজন বাড়ানো যায় কিনা এ সম্পর্কে অনেকেই ভালোমতো জানেনা। অযথা ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেলে শরীরে মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে। আর যদি সেটি হয় ওজন বাড়ানোর ক্ষেত্রে তাহলে শরীরে অনেক ক্ষতি হতে পারে। 

তাছাড়া অনেকেই ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট খেয়ে থাকেন, যার ফলে আপনারা ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট এর উপকারিতা কি কি এ সম্পর্কে জানতে চেয়েছেন। তবে আপনাদের চিন্তার কোন কারণ নেই, আজকের এই সম্পূর্ণ পোস্টটিতে উপরোক্ত সকল বিষয়গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনায় তুলে ধরা হবে।

ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট এর উপকারিতা

আপনারা অনেকেই ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট সম্পর্কে জানতে চেয়েছেন। আপনাদের কথা চিন্তা করে আজকের এই অংশে ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট এর উপকারিতা সম্পর্কিত বিস্তারিত আলোচনা করব। ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট মূলত ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন ডি এর সম্বন্ধে তৈরি একটি ট্যাবলেট। 
ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট এর উপকারিতা
ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন ডি সমৃদ্ধ এই ট্যাবলেট গুলোকে ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট বলা হয়। এটি শরীরে ক্যালসিয়ামের পাশাপাশি ভিটামিন ডি এর চাহিদা পূরণ করে থাকে। তবে চলুন আর কথা না বাড়িয়ে ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট এর উপকারিতা কি কি জেনে নেই।
  • ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট সাধারণত হাড় জনিত সমস্যা সমাধানে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। বিশেষ করে যাদের হাড় ক্ষয় হয়ে গেছে বা হাড় বাঁকা হয়ে গেছে, তারা এই ট্যাবলেট খেলে হাড়ের গঠন শক্ত হয় এবং হাড় মজবুত হয়ে ওঠে।
  • শিশুদের বা বাচ্চাদের ক্যালসিয়ামের অভাবজনিত রিকেটস রোগ নিরাময় করতে সহায়তা করে থাকে। তাই আপনারা ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট শিশুদের খাওয়াতে পারেন।
  • আর বয়স্কদের অস্টিওপ্যোরেসিস রোগ সমস্যা সমাধান করতে হলে ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট সেবন করতে পারেন। তবে এটি ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী সেবন করতে হবে।
  • অনেকেরই মাংসপেশিতে ব্যথা হয়ে থাকে, তারা চাইলে শরীরে ক্যালসিয়ামের অভাব ও ভিটামিন ডি এর অভাব পূরণ করতে ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট সেবন করতে পারেন।
  • এছাড়াও দাঁতের স্বাস্থ্য ভালো রাখতেও ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট খেতে পারেন। অনেকের দাঁত ক্ষয় হয়ে যায় যার কোন খাবার খেতে সমস্যা হয়। তাছাড়াও ভিটামিন ডি এর অভাবে দাঁতের বিভিন্ন ধরনের সমস্যা দেখা দেয়। যে কারণে আপনারা যদি ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট সেবন করেন তাহলে দাঁতের সমস্যা দূর হবে।
  • আপনারা সকলে জানেন ভিটামিন ডি আমাদের শরীরে হরমোনের কার্যকারিতা রক্ষা করতে সহায়তা করে থাকে। বিশেষ করে হরমোন উৎপাদন ও হরমোনের ব্যালেন্স রাখতে সাহায্য করে থাকে। তাই আপনারা ভিটামিন ডি এর অভাবে পূরণ করতে ভিটামিন ডি সমৃদ্ধ খাবার বা ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট খেতে পারেন।
  • শিশুদের শারীরিক বৃদ্ধি ও মানসিক বৃদ্ধির জন্য ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন ডি দুটোই খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এটি শিশুদের স্বাভাবিক বৃদ্ধিকে ত্বরান্বিত করতে সহায়তা করে। এজন্য শিশুদের ছোটকাল থেকেই ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন ডি সমৃদ্ধ খাবার খাওয়াতে হয়। তাই আপনারা শিশুদের ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট খাওয়াতে পারেন যাতে করে ভিটামিন ডি ও ক্যালসিয়ামের অভাব পূরণ হয়।
আশা করছি আপনারা এতক্ষণে ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট এর বিস্তারিত উপকারিতা গুলো সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। তাছাড়া এই ট্যাবলেট গ্রহণে কিছু অপকারিতা লক্ষ্য করা যায় যেগুলো আমরা পরের অংশে আলোচনা করব।

ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট এর অপকারিতা

আপনার আগের অংশে ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট এর বিভিন্ন উপকারিতা সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। তবে এই ট্যাবলেটের উপকারিতা থাকার পাশাপাশি কিছু অপকারিতা রয়েছে। আমরা এখন এই অংশটিতে ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট এর অপকারিতা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব। অতিরিক্ত পরিমাণে ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট খেয়ে ফেললে শরীরে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা দেখা দিতে পারে। চলন সেই সমস্যাগুলো জেনে নেই।
  • অনেকের ক্ষেত্রে এই ট্যাবলেট খাওয়ার ফলে বমি বমি ভাব অথবা শরীর দুর্বল হতে পারে।
  • আবার এই ট্যাবলেট অতিরিক্ত পরিমাণে খেলে কোষ্ঠকাঠিন্য সমস্যা দেখা দিতে পারে।
  • তাছাড়াও মাথাব্যথা সহ শরীরের বিভিন্ন অংশ ব্যথা অনুভব হতে পারে।
  • অনেক ব্যক্তির ক্ষেত্রে প্রেসার জনিত সমস্যা হয়ে থাকতে পারে, পেশার কম বেশি ওঠানামা করতে থাকে।
সাধারণত এ ধরনের সমস্যাগুলো হয়ে থাকে। তাই আমরা বলব এই ট্যাবলেট আপনারা ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী সঠিক নিয়মে সেবন করবেন।

ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেলে কি মোটা হয় 

প্রিয় বন্ধুরা আপনারা যারা ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট সেবন করেন তারা প্রায়ই একটি প্রশ্ন করে থাকেন সেটি হল ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেলে কি মোটা হয়? আপনাদের এই প্রশ্নের উত্তরে বলা যায় না, ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেলে মোটা হয় না অর্থাৎ ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেলে আপনি মোটা হতে পারবেন না। ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট মোটা হবার ওষুধ নয়, সেক্ষেত্রে এই ট্যাবলেট সেবন করলে আপনি মোটা হতে পারবেন না বরং শরীরে বিভিন্ন ধরনের ক্ষতি হবে। 
ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট এর মোটা হওয়ার সাথে কোন সম্পর্ক নেই। ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেলে আমাদের শরীরের হাড় গঠন হয় এবং আর মজবুত হয়ে থাকে। তাছাড়াও পেশি গঠনেও সহায়তা করে থাকে। মোটা হওয়ার জন্য দৈনন্দিন খাবারের সাথে বিভিন্ন রকম পুষ্টিকর খাবার খেতে হয়। কিন্তু শুধু ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেলে সরাসরি মোটা হওয়া যায় না, কিছুটা মোটা হলেও সেটি স্থায়ী থাকে না। 

আপনি যদি সরাসরি ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেয়ে মোটা হতে চান তাহলে আপনার শরীরে অনেক ক্ষতি হতে পারে। তবে আমরা সবশেষে বলবো ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেলে শরীর মোটা হয় না। এটি শুধুমাত্র আপনার হাড়ের স্বাস্থ্যও বজায় রাখতে সহায়তা করবে। আর শরীরের ক্যালসিয়ামের চাহিদা পূরণ করবে।

ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট বেশি খেলে কি হয়

আপনি কি জানেন ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট বেশি খেলে কি হয়, যদি না জেনে থাকেন তাহলে এই অংশের মাধ্যমে এখনই ভালোভাবে জেনে নিন। ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট যেহেতু শরীরে ক্যালসিয়ামের চাহিদা পূরণ করে, তবে ক্যালসিয়াম শরীরে অতিরিক্ত পরিমাণ হয়ে গেলে দেহে নানা রকম সমস্যা দেখা দিতে পারে। ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট বেশি খেলে হার্টের স্বাস্থ্য ঝুঁকি বেড়ে যেতে পারে। 
মূলত হার্টযনিত বিভিন্ন রকম সমস্যা হতে পারে। এছাড়াও ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট বেশি খেলে বমি হওয়া , পেট ব্যথা ও কিডনিতে পাথরজনিত সমস্যা হতে পারে। এই ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট বেশি খাওয়ার ফলে শরীর অবসাদ লাগতে পারে অর্থাৎ শরীরে ক্লান্তি অনুভব হতে পারে। ক্যালসিয়াম শরীরে বেশি গেলে পুরুষদের প্রস্টেট ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। 

তাছাড়াও শোনা যাচ্ছে ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট অতিরিক্ত পরিমাণ খেলে কিডনি বিকল হওয়া যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এজন্য সকলের উচিত ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট সঠিক নিয়মে পরিমাণমতো খাওয়া। অনেক সময় ক্যালসিয়াম শরীরে বেশি হয়ে গেলে ক্ষুধা মন্দা সমস্যা দেখা দেয়। 

অনেকেই খাবার খেতে পারে না, এছাড়াও ঘনঘন প্রসাবের সমস্যা হয়ে থাকে। আশা করছি আপনারা বুঝতে পারলেন ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট বেশি খেলে উপরোক্ত সমস্যাগুলো হতে পারে। এজন্য আপনাদের উচিত ডাক্তারের প্রেসক্রিপশন অনুযায়ী ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট সেবন করা।

ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া

ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া আপনারা উপরের অংশটিতে জেনেছেন। উপরের অংশে আমরা ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট বেশি খেলে কি হয় সেটা নিয়ে আলোচনা করেছি। সেখানে মূলত ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। তবুও আমরা এখানে কিছু পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াগুলো তুলে ধরার চেষ্টা করলাম।
  • মাথা ব্যাথা হওয়া
  • শরীর দুর্বল অনুভব হয়
  • ঘনঘন প্রসাব হতে পারে
  • শরীরের বিভিন্ন অংশের হাড়ে ব্যথা অনুভব হয়ে থাকে
  • কোষ্ঠকাঠিন্য সমস্যা দেখা দেয়
  • হঠাৎ করে শরীরের ওজন কমে যায়
  • খাবারের প্রতি রুচি কমে যাওয়া
  • মেজাজ খিটখিটে হয়ে যাওয়া
তাহলে আপনারা ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া সম্পর্কে জানতে পারলেন। পার্শ্ব প্রতিক্রিগুলো জেনে অবশ্যই সতর্ক হবেন এবং সঠিক নিয়মে ট্যাবলেট গ্রহণ করবেন।

ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেলে কি হয়

ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেলে শরীরে হাড় গঠন হয় এবং বয়স্ক ব্যক্তিদের হাড় ক্ষয় যাওয়া সমস্যার সমাধান হয়। তাছাড়াও বাচ্চাদের শরীরের হাড় মজবুত রাখতে সহায়তা করে থাকে। বিশেষ করে বাচ্চাদের শারীরিক বৃদ্ধির জন্য ক্যালসিয়াম খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যেসব বাচ্চাদের শারীরিক বৃদ্ধি হচ্ছে না তাদের ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট সেবন করাতে পারেন। 
এতে করে তাদের শারীরিক ও মানসিক বৃদ্ধি হবে। এর পাশাপাশি দাঁতের সুরক্ষার জন্য ক্যালসিয়াম খুবই কার্যকরী। দাঁতের ক্ষয়রোধে ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট গ্রহণ করতে পারেন। আরো বিভিন্ন কাজে ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট সহায়তা করে থাকে।

ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট কতদিন খেতে হয়

ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট কতদিন খেতে হয় এই বিষয়টি সম্পর্কে অনেকেই ভালোমতো জানে না। তবে আমরা এই অংশে বিষয়টি সম্পর্কে জানানোর চেষ্টা করব।আপনি ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট কতদিন খেতে পারবেন এটি নির্ভর করে আপনার শরীর স্বাস্থ্যের উপর। আপনার শরীরে যদি ভিটামিন ডি ও ক্যালসিয়ামের অভাব না থাকে তাহলে ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খাওয়ার প্রয়োজন নেই। 
তবে ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট সাধারণত দুই মাস পর্যন্ত খাওয়া যায়। দুই মাসের অধিক সময় ধরে ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খাওয়া উচিত নয়। কিন্তু কেউ যদি খেতে চায় তাহলে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া উচিত। তাই সর্বশেষে বলবো ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট আপনি ২ মাস খেতে পারবেন।

ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট দিনে কয়টা খাওয়া যায়

আপনার দেহের চাহিদা অনুযায়ী ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেতে হবে। আপনার দেহে যদি অতিরিক্ত ক্যালসিয়ামের ঘাটতি থেকে থাকে তাহলে দিনে এক থেকে দুইটি ক্যালসিয়াম ট্যাবেল সেবন করতে পারেন। তবে সবচেয়ে ভালো হয় চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে সেবন করা। চিকিৎসক আপনার শরীরের কন্ডিশন পরীক্ষা করে খাওয়ার নিয়ম বলে দেবে। তবে সাধারণত ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট আপনারা দিনে।১টা খেতে পারেন। অর্থাৎ ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট দিনে ১টি খাওয়া যায়।

ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট এর দাম

আপনারা অনেকেই ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট এর দাম সম্পর্কে জানতে চান। এখন আমরা ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট এর দাম সম্পর্কে আলোচনা করব। বর্তমানে বাজারে বিভিন্ন কোম্পানির ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট রয়েছে যার কারণে দামের ভিন্নতা লক্ষ্য করা যায়। আপনারা প্রতি পিস ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট গুলো সাধারণত ৭ থেকে ১৬ টাকার মধ্যে পেয়ে যাবেন। মূলত ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেটের দাম প্রতি পিস ৭ টাকা থেকে শুরু করে ১৬টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে। সাধারণত কোম্পানি অনুযায়ী দাম কম বেশি হয়ে থাকে।

ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট স্কয়ার কোম্পানির

আমার এখন আপনাদের জন্য নিম্নে স্কয়ার কোম্পানির কিছু ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট এর নাম তুলে ধরব। আপনারা অনেকেই স্কয়ার কোম্পানির ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট এর নাম সম্পর্কে জানতে চান। এজন্য এখন স্কয়ার ফার্মাসিটিক্যাল কোম্পানির ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট এর নাম তুলে ধরবো।
  • CaberolTM
  • Calbo-C
  • Calbo 500
  • Calbo-D Vita
  • Calboplex
  • Calboral-D
  • Calbostar
  • Calbotol
  • Calboral-DX
  • Calbo Jr
  • Calbo-D
উপরোক্ত ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট গুলো স্কয়ার কোম্পানির অর্থাৎ স্কয়ার কোম্পানি উপরোক্ত ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট গুলো প্রস্তুত করেছে। আশাকরি আপনারা স্কয়ার কোম্পানির ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট গুলোর নাম সম্পর্কে জানতে পেরেছেন।

ক্যালসিয়াম d ট্যাবলেট সম্পর্কিত সাধারণ জিজ্ঞাসা(FAQ)

প্রশ্নঃক্যালসিয়ামের স্বাভাবিক মাত্রা কত?
উত্তরঃ সাধারণত প্রতি ২০০ মিলিমিটারে ক্যালসিয়ামের স্বাভাবিক মাত্রা ২০০-৪০০ মিলিগ্রাম হয়ে থাকে।

প্রশ্নঃক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খাওয়ার উপযুক্ত সময় কখন?
উত্তরঃ ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খাওয়ার উপযুক্ত সময় হল রাতে ও সকালে। যারা দুপুরবেলায় আয়রন ট্যাবলেট খাচ্ছেন তারা সকালে বা রাতে ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খাবেন।

প্রশ্নঃক্যালসিয়াম কতবার খাওয়া উচিত?
উত্তরঃ ক্যালসিয়ামের মাত্রা অনুযায়ী ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেতে হয়। তবে ক্যালসিয়াম দিনে দুইবার খাওয়া যায়। কিন্তু মাত্রা ঠিক রেখে খেতে হবে।

প্রশ্নঃক্যালসিয়াম সকালে না রাতে খাওয়া ভালো?
উত্তরঃ আমাদের মতে ক্যালসিয়াম রাতে খাওয়া ভালো, তবে চাইলে আপনারা সকালে খেতে পারেন। সকালে ক্যালসিয়াম খেলে ভালো উপকারিতা পাওয়া যায়।

শেষ মন্তব্য

আশাকরি আজকের এই সম্পূর্ণ পোস্টটিতে আপনারা ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেলে কি মোটা হয় ও ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট এর উপকারিতা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে পেরেছেন। এছাড়াও আজকের পোস্টে ক্যালসিয়াম ট্যাবলেট খেলে কি হয় ও ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট এর দাম সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে। যার ফলে আপনারা ক্যালসিয়াম ডি ট্যাবলেট সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি বিডির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url