ছাত্র বা শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট নামের তালিকা[বিস্তারিত]

প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা আপনারা নিশ্চয়ই শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট কোনগুলো সম্পর্কে জানতেই আজকের পোস্টটিতে এসেছেন। তবে চিন্তার কোন কারণ নেই, আজকের এই আর্টিকেলটিতে শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট কোনটি এ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা তুলে ধরার চেষ্টা করা হবে।
শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট
আর্টিকেলসূচিপত্রঃবর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং এর চাহিদা বেড়েই চলেছে। ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট সম্পর্কে জানতে হবে। বিশেষ করে যারা শিক্ষার্থী রয়েছেন তারা যদি ফ্রিল্যান্সিং করে ইনকাম করতে চান তাহলে অবশ্যই শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট কোনগুলো সে সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা রাখতে হবে। আর এই বিষয়টি সম্পর্কে আজকের পুরো পোস্টটিতে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে।

উপস্থাপনা

বর্তমানে এই বিশ্বে শিক্ষার্থীদের জন্য টাকা ইনকাম করার অন্যতম উপায় হল ফ্রিল্যান্সিং করা। একমাত্র ফ্রিল্যান্সিং এর মাধ্যমেই শিক্ষার্থীরা ঘরে বসে অনলাইনে ইনকাম করতে পারবে। এতে করে শিক্ষার্থীরা পড়াশোনার পাশাপাশি ফ্রিল্যান্সিং এর মাধ্যমে টাকা ইনকাম করে হাত খরচ চালাতে পারবে। তবে শিক্ষার্থীদের ফ্রিল্যান্সিং বিষয়টি সম্পর্কে ভালোভাবে জানতে হবে এবং কোন ওয়েবসাইটে ফ্রিল্যান্সিং করা যায় সে বিষয়টি সম্পর্কে ধারণা রাখতে হবে। বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য অনেক ধরনের ওয়েবসাইট রয়েছে। 

যেগুলোর মধ্য থেকে আমরা শিক্ষার্থীদের জন্য সেরা কিছু ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট এর নাম তুলে ধরার চেষ্টা করব। প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা আপনারা যদি পড়াশোনার পাশাপাশি টাকা ইনকাম করতে চান তাহলে অবশ্যই ফ্রিল্যান্সিং করতে হবে। আর তার জন্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট গুলোর নাম জেনে দক্ষতা অর্জন করে কাজ করতে হবে। আপনি ফ্রিল্যান্সিং বিষয়গুলোর মধ্যে যে কোন একটিতে দক্ষতা অর্জন করে থাকলে অতি সহজেই ফ্রিল্যান্সিং করে টাকা আয় করতে পারবেন। 

ফ্রিল্যান্সিং কি? - what is freelancing

শিক্ষার্থীদের জন্য সেরা ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট নাম সম্পর্কে জানার আগে অবশ্যই আপনাদের ফ্রিল্যান্সিং কি এই বিষয়টি সম্পর্কে জানতে হবে। ফ্রিল্যান্সিং মূলত একপ্রকার মুক্ত পেশা। আরো অন্যভাবে বলা যায় ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের কাজ করার মাধ্যমে টাকা ইনকাম করাই হলো ফ্রিল্যান্সিং। অন্যান্য চাকরির মত ফ্রিল্যান্সিং একটি পেশা। সাধারণ চাকরিতে অফিসে গিয়ে কাজ করতে হয়। কিন্তু ফ্রিল্যান্সিং করলে ঘরে বসেই অনলাইন এর মাধ্যমে কাজ করা যায়। আর ঘরে বসেই অনলাইন এর মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করাকেই মূলত ফ্রিল্যান্সিং বলা হয়ে থাকে। 
ফ্রিল্যান্সিং সেক্টরে আপনারা ইচ্ছামত কাজ করতে পারবেন। এই সেক্টরে কোন ধরা বাধা নিয়ম বা সময় নেই। সাধারণ চাকরিতে নির্দিষ্ট সময়ে অফিসে উপস্থিত হতে হয় এবং কাজ করতে হয়। কিন্তু ফ্রিল্যান্সিং করলে অফিসে উপস্থিত হতে হয় না, বরং ঘরে বসেই যে কোন সময়ই ইচ্ছা অনুযায়ী কাজ করা যায়। আর সবচেয়ে মূল বিষয় হলো ফ্রিল্যান্সিংয়ে আপনার কোন বস থাকবে না। এখানে আপনি বিভিন্ন বিদেশি বায়ারদের কাছ থেকে কাজ পাবেন এবং তাদের ডিমান্ড অনুযায়ী কাজ করে দিবেন। আর ফ্রিল্যান্সিং করার নির্দিষ্ট কোন অফিস টাইম নেই। 

তাই এই ক্ষেত্রে ধরা গেলে ফ্রিল্যান্সিং করলে আপনি ইচ্ছামত কাজ করতে পারবেন। আপনার যদি ফ্রিল্যান্সিংয়ের যে কোন একটি বিষয়ে ভালো পরিমান দক্ষতা থাকে তাহলে আপনি সরকারি চাকরিজীবীদের থেকেও বেশি বেতনে কাজ করতে পারবেন। তাহলে বুঝতে পারছেন ফ্রিল্যান্সিং এর ডিমান্ড কতটা বেশি। বাংলাদেশের প্রায় বেশিরভাগ যুবসমাজ ফ্রিল্যান্সিং কাজের দিকে ঝুকছে। 

বিশেষ করে তারা স্টুডেন্ট অবস্থা থেকেই ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ করছে। আপনারাও চাইলে ফ্রিল্যান্সিংয়ের বিষয়গুলো সম্পর্কে জেনে অভিজ্ঞ হয়ে কাজ করতে পারেন। তবে আপনাদের অবশ্যই ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটের তালিকা বা ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট কোনগুলো সেই সম্পর্কে জানতে হবে। আজকের পোস্টটি আমরা এ সম্পর্কেই বিস্তারিত আলোচনা গুলো তুলে ধরবো।

শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট

বর্তমানে আমাদের দেশে ফ্রিল্যান্সিং প্রতিষ্ঠানগুলোর সংখ্যা দিন দিন বেড়ে চলেছে। কারণ ফ্রিল্যান্সিং এর চাহিদা খুব দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিশেষ করে ছাত্রসমাজ ফ্রিল্যান্সিং এর দিকে বেশি আগ্রহ দেখাচ্ছে। যার কারণে ফ্রিল্যান্সিং প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। আপনারা সেই প্রতিষ্ঠানগুলোতে ফ্রিল্যান্সিং এর প্রশিক্ষণ নিতে পারেন অর্থাৎ ফ্রিল্যান্সিং বিষয়গুলো সম্পর্কে জানতে পারেন। 
তবে অবশ্যই সাবধান থাকবেন বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং শেখার প্রতিষ্ঠান নামে অনেক প্রতিষ্ঠান প্রতারণা করছে। এসব প্রতিষ্ঠান মূলত গ্রাহকদের কাছে টাকা নিয়ে থাকে এবং কোন ধরনের ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ বা শিক্ষা দেয় না। তাই এসব ধরনের ফ্রিল্যান্সিং প্রতিষ্ঠান থেকে দূরে থাকবেন। তবে বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং শেখার অন্যতম প্রতিষ্ঠান হল অর্ডিনারি আইটি। 

আপনার এখানে ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কে ধারণা নিতে পারেন এবং ফ্রিল্যান্সিং শিখতে পারেন। আপনাদের শুধু ফ্রিল্যান্সিং শিখলেই হবে না ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটগুলোর নাম সম্পর্কে জানতে হবে। তবে চলুন আর কথা না বাড়িয়ে শিক্ষার্থীদের জন্য সেরা ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট কোনটি জেনে নেই।
  • upwork.com
  • fiverr.com
  • behance.net
  • toptal.com
  • Freelancer.com
  • ordinaryit.com
  • peopleperhour.com
  • 99designs.com
উপরোক্ত ওয়েবসাইট গুলোতে শিক্ষার্থীরা অনায়াসেই অনলাইনে কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। তবে এই ওয়েবসাইটগুলোতে কাজ করার জন্য আপনার ফ্রিল্যান্সিং এর মধ্যে যে কোন একটি বিষয়ে ভালো অভিজ্ঞতা ও দক্ষতা থাকতে হবে। তবে চলুন এবার আমরা ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটগুলো সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জেনে নেই।

upwork

বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য সবচেয়ে জনপ্রিয় ওয়েবসাইট হলো upwork। শিক্ষার্থীর একটি নির্দিষ্ট বিষয়ে দক্ষতা থাকলেই এই ওয়েবসাইটে কাজ করতে পারবে। এই ওয়েবসাইটে বিভিন্ন বিদেশি বায়ারদের কাজ পাওয়া যায়। এখানে স্টুডেন্টরা বিভিন্ন প্রজেক্টে কাজ করতে পারবে। ছাত্ররা এই ওয়েবসাইটে নিজেদের প্রোফাইল তৈরি করে ক্লায়েন্টের সাথে যোগাযোগ করে কাজ নিতে পারবেন। 

শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট হিসাবে এটি খুবই জনপ্রিয়। তার কারণে এই ওয়েবসাইটে শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন বিষয়ে বা প্রজেক্টে বিদেশীদের কাজ করে দিতে পারবে।এই কাজ করে দেয়ার মাধ্যমে বিদেশীদের কাছ থেকে নির্দিষ্ট পেমেন্ট নিয়ে টাকা ইনকাম করতে পারবে। তবে এর জন্য শিক্ষার্থীর ফ্রিল্যান্সিংয়ের যেকোনো সেক্টরে দক্ষতা থাকতে হবে।

fiverr

ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইটগুলোর মধ্যে ফাইবার একটি জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস। এই ওয়েবসাইটে বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সিং বিষয়ে প্রজেক্ট কাজ পাওয়া যায়। মূলত এখানে ডিজিটাল মার্কেটিং , গ্রাফিক্স ডিজাইন , ট্রান্সলেটিং , কনটেন্ট রাইটিং ইত্যাদি সহ ১০০ টিরও বেশি জবের অফার বা ক্যাটাগরি রয়েছে। এই ফাইবারে প্রায় সকলেই কাজ খোঁজার জন্য এসে থাকেন। 

ফাইবারে আপনাকে একটি প্রোফাইল তৈরি করতে হবে। ফাইবারে গ্রাহক পেতে হলে গিগ তৈরি করতে হয়। এই প্লাটফর্ম থেকে আপনারা সর্বনিম্ন ৫ ডলারের কাজ করতে পারেন। একটি গিগের দাম ৫ ডলার থেকে শুরু হয়। এই প্লাটফর্মে শিক্ষার্থীরা অতি সহজেই আয় করতে পারবে।

behance

প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা আপনারা যদি এনিমেশন ও গ্রাফিক্স ডিজাইন এর কাজ ভালোমতো জেনে থাকেন তাহলে এই ওয়েবসাইটটি আপনার জন্য সেরা হবে। আপনার গ্রাফিক্স ডিজাইনের সৃজনশীলতা কাজে লাগিয়ে এই প্লাটফর্মে কাজ করতে পারেন। আপনার কাজের দক্ষতা এই ওয়েবসাইটে প্রকাশ করতে পারেন। এখানে বিভিন্ন কোম্পানির গ্রাহক আপনার ডিজাইন যদি পছন্দ করে থাকে তাহলে আপনাকে তারা অর্ডার করবে এবং আপনি সেই অর্ডার থেকে ভালো পরিমাণ অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। 
শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট
বিভিন্ন ধরনের কোম্পানি এই ওয়েবসাইট থেকে ওয়েব ডিজাইনারদের হায়ার করে থাকে। এছাড়া বড় বড় কোম্পানি তাদের কাজের জন্য ডিজাইনারদের চাকরি দিয়ে থাকে। তাহলে বুঝতে পারছেন শিক্ষার্থীরা আপনার যদি এনিমেশন তৈরির মতো সৃজনশীল দক্ষতা থাকে তাহলে আপনি এই কাজ করে অনেক টাকা আয় করতে পারবেন।

toptal

সেরা ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট গুলোর মধ্যে টপটাল অন্যতম। এই ওয়েবসাইটে আপনারা বিভিন্ন ধরনের কাজ ইচ্ছা অনুযায়ী পছন্দ করতে পারবেন। টপটাল ওয়েবসাইটে কাজ করতে হলে আপনাকে অবশ্যই ফ্রিল্যান্সিং বিষয়গুলোতে দক্ষতা থাকতে হবে। বিশেষ করে সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট, ওয়েব ডিজাইন ইত্যাদি বিষয়গুলোতে দক্ষ হতে হবে। এই সাইটে কাজ করতে হলে আগে আবেদন করতে হয়। 

আবেদনের মাধ্যমেই এই প্লাটফর্মে ফ্রিল্যান্সিং কাজ করা যায়। আবেদন প্রক্রিয়া মূলত পরীক্ষার মতো চলতে থাকে। অর্থাৎ এই প্লাটফর্মে অভিজ্ঞ ও দক্ষদের চাহিদা রয়েছে। যার কারনে খুব কম মানুষ এই ওয়েবসাইটে কাজ করার সুযোগ পায়। তবে আপনি যদি প্রফেশনাল হয়ে থাকেন তাহলে এই সাইটে কাজ করতে পারেন।

যেহেতু কম মানুষ কাজ করার সুযোগ পায় সেক্ষেত্রে এখানে কাজ করলে বেশি টাকা ইনকাম করা যাবে। শিক্ষার্থীদের জন্য এটি সবচেয়ে বড় সুযোগ। যেসব শিক্ষার্থী সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট সহ আরো অন্যান্য কাজ করতে পারেন তারা এখানে এপ্লাই করতে পারেন।

Freelancer

ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য সবচেয়ে বড় মার্কেটপ্লেস হলো Freelancer.com। এখানে প্রায় সকল ধরনের ফ্রিল্যান্সিং কাজ করা যায়। এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনি সারা বিশ্বের ক্লায়েন্টের সাথে যোগাযোগ করে কাজ করতে পারবেন। তাছাড়া ওই প্ল্যাটফর্মে বিভিন্ন ধরনের চাকরির অফার দেওয়া হয়ে থাকে। অনেক বিদেশী কোম্পানি এই সাইটে চাকরির বিজ্ঞাপন দিয়ে থাকে। 

যে চাকরিগুলো সাধারণত অনলাইনে ঘরে বসে করা যায়। আবার বিভিন্ন ক্লায়েন্টের প্রজেক্ট এর কাজ করে দিয়ে অর্থ উপার্জন করা যায়। এখানে আপনারা ইচ্ছামত ফুলটাইম অথবা পার্ট টাইম জব করতে পারেন। শিক্ষার্থীদের সর্বপ্রথম এই ওয়েবসাইটে কাজ করা উচিত। কারণ এখানে অতি সহজেই বিভিন্ন প্রজেক্টের কাজ পাওয়া যায়।

ordinaryit

বর্তমানে সবচেয়ে জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং শেখার প্রতিষ্ঠান হল অর্ডিনারি আইটি। তাছাড়া পাশাপাশি এই ওয়েবসাইটে কাজ করে অনলাইনে ইনকাম করা যায়। আপনারা চাইলে অর্ডিনারি আইটি থেকে ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ নিয়ে নিজেই ঘরে বসে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। অপরদিকে তাদের কাছ থেকে কাজ নিয়েও টাকা আয় করতে পারবেন। তারা বিভিন্ন ধরনের চাকরির অফার দিয়ে থাকে। শিক্ষার্থীদের জন্য অর্ডিনারি আইটি একটি সেরা ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট। 

এই অরডিনারি আইডি থেকে শিক্ষার্থীরা ফ্রিল্যান্সিং শিখে মাসের লক্ষ টাকা ইনকাম করতে পারছে। অর্ডিনারি আইটি থেকে ডিজিটাল মার্কেটিং, ইউটিউব মার্কেটিং, ওয়েবসাইট তৈরি, ভিডিও এডিটিং, কন্টেন রাইটিং ওয়েবসাইট ডিজাইন ইত্যাদি বিষয়গুলো শিখে মাসে লাখ টাকা ইনকাম করা সম্ভব হচ্ছে। এছাড়াও তাদের ওয়েবসাইটে আর্টিকেল লেখার মাধ্যমেও ইনকাম করতে পারবেন। 

তবে বলে রাখা ভালো ফ্রিল্যান্সিংয়ে সফলতা অর্জন করতে হলে ধৈর্য ধরতে হয়। আপনারা যারা শিক্ষার্থী রয়েছেন তারা অর্ডিনারি আইটিতে কনটেন্ট রাইটিং এর চাকরি করে মাসে অন্তত ১০ থেকে ১৫ হাজার টাকা আয় করতে পারবেন। যা একজন ছাত্রের জন্য অনলাইন ইনকাম হিসেবে বড় সুযোগ।

peopleperhour

এই ওয়েবসাইটে মূলত আপনার প্রোফাইলের উপর নির্ভর করে কাজে সফলতা আসবে। আপনার প্রোফাইল রেটিং যদি বৃদ্ধি করতে পারেন তাহলেই আপনি এখানে ভালো ধরনের কাজ করতে পারবেন। এই সাইটে ফ্রিল্যান্সারদের প্রোফাইলে আলাদা ধরনের কাজের রেটিং দেওয়া থাকে। সেই রেটিং উপর ভিত্তি করে কাজ পাওয়া যায়। 

আপনার কাজের রেটিং বেশি থাকলে আপনি অতি সহজেই বায়ারদের কাছ থেকে কাজ পেতে পারেন। এটি একটি বিনামূল্যে ফ্রি ওয়েবসাইট। যেখানে কোন চার্জ নেই। শুধুমাত্র ফ্রিল্যান্সিং কাজ করার মাধ্যমে নিজের প্রোফাইলকে আপগ্রেড করতে হয়।

99designs

শিক্ষার্থী বন্ধুরা আপনারা যারা গ্রাফিক ডিজাইন পারেন অথবা গ্রাফিক ডিজাইনে দক্ষতা রয়েছে তারাই একমাত্র এই প্লাটফর্মে কাজ করতে পারবেন। এই প্লাটফর্মে মূলত গ্রাফিক্স ডিজাইনারদের প্রাধান্য দেয়া হয়। আপনি যদি গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজ করতে চান তাহলে আপনার জন্য এটি সেরা ফ্রিল্যান্সিং প্ল্যাটফর্ম। আর এই ওয়েবসাইটটিতে সদস্য পদ অর্জন করতে চাইলে তাদের সদস্যতা প্যাকেজ কিনতে হয়। 

এই প্ল্যাটফর্মের সদস্য হওয়ার পর থেকে আপনি কাজ করতে পারবেন। সেজন্য আপনাকে সদস্যতা প্যাকেজ নিতে হবে। তবে এই প্লাটফর্ম শিক্ষার্থীদের জন্য একটু কষ্টকর হয়ে দাঁড়ায়, কারণ এখানে কিছু টাকা খরচ করতে হয়। তবে আপনারা যারা প্রফেশনাল ভাবে গ্রাফিক্স ডিজাইন এর কাজ করতে চান তারাই শুধুমাত্র এখানে কাজ করবেন।

ফ্রিল্যান্সিং এর জন্য কোন স্কিল গুলো জানা বেশি গুরুত্বপূর্ণ?

ফ্রিল্যান্সিংয়ে কোন কাজের চাহিদা বেশি রয়েছে সে বিষয়টি সম্পর্কে আপনাদের অবশ্যই জানতে হবে। কারণ ফ্রিল্যান্সিংয়ে বিভিন্ন ধরনের কাজ রয়েছে যার মধ্যে অনেকগুলো কাজের বেশি চাহিদা রয়েছে। সেই কাজগুলো সম্পর্কে জেনে শিখতে পারলে আপনারা ফ্রিল্যান্সিং কাজ করতে পারবেন। তবে চলুন জেনে নেই ফ্রিল্যান্সিং এর জন্য কোন স্কিল জানা প্রয়োজন।
  • ওয়েব ডেভেলপমেন্ট
  • ওয়েব ডিজাইন
  • এফিলিয়েট মার্কেটিং
  • ডিজিটাল মার্কেটিং
  • কনটেন্ট রাইটিং
  • ভিডিও এডিটিং
  • সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং
  • এসইও(SEO)
  • গ্রাফিক্স ডিজাইন
উপরোক্ত কাজগুলোতে ফ্রিল্যান্সিং এর চাহিদা বেশি রয়েছে। যার কারণে আপনি যদি ফ্রিল্যান্সিং করে ভালো একটি অর্থ উপার্জন করতে চান তাহলে অবশ্যই উপরোক্ত বিষয়গুলো সম্পর্কে ভালো দক্ষতা থাকতে হবে।

ফ্রিল্যান্সিং শিখতে কত টাকা লাগে

আপনারা অনেকেই ফ্রিল্যান্সিং শেখার জন্য প্রতিষ্ঠান খুলে থাকেন। তাছাড়াও সকলে প্রায় একটি প্রশ্ন করে থাকেন সেটি হল ফ্রিল্যান্সিং শিখতে কত টাকা লাগে। আজ আমার এই অংশে সেই সম্পর্কে আলোচনা করব। বর্তমানে আমাদের দেশে হাজার হাজার ফ্রিল্যান্সিং প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এর মধ্যে সেরা ফিন্যান্সিং ইনস্টিটিউট গুলো বাছাই করে আপনাকে ফ্রিল্যান্সিং শিখতে হবে। আপনারা চাইলে নির্দিষ্ট কোনো ভালো ফ্রিল্যান্সিং প্রতিষ্ঠানে ফ্রিল্যান্সিং কোর্স করতে পারেন।
আপনার বাড়ির আশেপাশে যদি কোন ভালো ফ্রিল্যান্সিং প্রতিষ্ঠান থাকে তাহলে আপনি সেই প্রতিষ্ঠানে ফ্রিল্যান্সিং কোর্স শিখতে পারেন। বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং কাজগুলোর মধ্যে ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রচুর চাহিদা রয়েছে। আপনি যদি ডিজিটাল মার্কেটিং শিখতে চান তাহলে এটি আপনি ১০ হাজার থেকে ১৫ হাজার টাকার মধ্যেই বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কোর্স করতে পারবেন। তবে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কোর্স ফ্রি কম বেশি হয়ে থাকে। আপনার যেই প্রতিষ্ঠান ভালো লাগবে সেই প্রতিষ্ঠানেই ডিজিটাল মার্কেটিং শিখতে পারেন।

এছাড়াও বর্তমানে গ্রাফিক্স ডিজাইন ও ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর প্রচুর ডিমান্ড রয়েছে। এই কাজগুলো আপনি যেকোনো ফ্রিল্যান্সিং প্রতিষ্ঠান থেকে শিখতে পারেন। এ ধরনের কাজগুলো শেখার জন্য আপনাকে খরচ করা লাগতে পারে প্রায় ১০ থেকে ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত। প্রত্যেকটি ফ্রিল্যান্সিং প্রতিষ্ঠান বিভিন্ন রকম কোর্স ফ্রি নিয়ে থাকে। তবে মূলত ফ্রিল্যান্সিংয়ের যেকোনো একটি বিষয় শিখতে প্রায় ১০ হাজার টাকার মতো খরচ হতে পারে।

শিক্ষার্থীদের জন্য অনলাইন ইনকাম ।শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট 

আপনি যদি শিক্ষার্থী হয়ে থাকেন তাহলে আপনি ঘরে বসে অনলাইনে ইনকাম করতে পারবেন। এই বর্তমান সময়ে শিক্ষার্থীরা পড়াশোনা করার পাশাপাশি অনলাইনে ঘরে বসেই বিভিন্ন ধরনের চাকরি করতে পারবে। ঘরে বসে চাকরি করার জন্য বিভিন্ন ধরনের ওয়েবসাইট রয়েছে যেগুলো আমরা পূর্বেই আলোচনা করেছি। 
তবে আপনারা চাইলে অতি সহজ পদ্ধতিতে অর্ডিনারি আইটিতে কাজ করে আয় করতে পারবেন। তারা মূলত অনলাইনে কাজ করার সুযোগ দিয়ে থাকে। তাছাড়াও তাদের কাছ থেকে ফ্রিল্যান্সিং কোর্স করার মাধ্যমে মাসে হাজার হাজার টাকা অনলাইন ইনকাম করতে পারবেন। তবে চলুন জেনে নেই অর্ডিনারি আইটিতে কি কি কাজ করতে পারবেন।

কনটেন্ট রাইটিং জব

প্রিয় শিক্ষার্থীরা আপনারা চাইলে অর্ডিনারি আইটিতে কনটেন্ট রাইটিং জব অর্থাৎ বাংলা লেখালেখি করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এই কাজটি আপনারা ঘরে বসেই করতে পারবেন। এ ধরনের কাজ করার জন্য আপনার একটি স্মার্টফোন, কম্পিউটার ও ইন্টারনেট কানেকশন থাকতে হবে। কম্পিউটার বা স্মার্টফোন এই দুইটির মধ্যে যে কোন একটি ডিভাইস থাকলেই আপনি এই কাজ করতে পারবেন। 

আপনি অর্ডিনারি আইটিতে আর্টিকেল রাইটার হিসেবে কাজ করলে প্রতি মাসে অন্তত ৮০০০- ১৫০০০ টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারবেন। মূলত আপনার কাজের উপর নির্ভর করে বেতনের পরিমাণ বাড়াতে পারে। আপনারা কনটেন্ট রাইটিং জব করতে চাইলে অর্ডিনারি আইটি ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন এবং তাদের সাথে যোগাযোগ করুন। যেকোন শিক্ষার্থী এই কাজটি করতে পারবেন।

ওয়েবসাইট ক্রয়

আপনারা চাইলে ওয়েবসাইট ক্রয় করার মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আপনি ওয়েবসাইটে বিভিন্ন বাংলা বিষয়ে লেখালেখি করে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন। তাছাড়াও আপনার যদি হাতে পর্যাপ্ত পরিমাণ সময় থাকে সে ক্ষেত্রে আপনি ওয়েবসাইট বানিয়ে বিক্রি করতে পারেন। বর্তমানে ওয়েবসাইট বিক্রি করার বিভিন্ন মার্কেটপ্লেস রয়েছে সেখানে ওয়েবসাইট বিক্রি করা যায়। 
আর ওয়েবসাইট বিক্রয় করে ভালো অর্থ উপার্জন করা যায়। এছাড়া আপনার কাছে পর্যাপ্ত সময় থাকলে নিজেই ওয়েবসাইটে লেখালেখি করে প্রচুর টাকা ইনকাম করতে পারেন। আর আপনারা অর্ডিনারি আইটি থেকে ওয়েবসাইট ক্রয় ক্রয় করে অনলাইনে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

ডিজিটাল মার্কেটিং শিখে

প্রিয় শিক্ষার্থীরা আপনারা চাইলে ডিজিটাল মার্কেটিং শিখে অনলাইনে টাকা আয় করতে পারবেন। বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং সেক্টরে ডিজিটাল মার্কেটিং এর অধিক চাহিদা রয়েছে। আপনি যদি ভালো এক্সপার্ট ডিজিটাল মার্কেটের হয়ে থাকেন তাহলে আপনি বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে চাকরি করতে পারেন। এছাড়াও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ডিজিটাল মার্কেটিং এর কাজ করে দিতে পারেন। এর ফলে ভালো পরিমাণ অর্থ উপার্জন করা যায়।

শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট সম্পর্কিত সাধারণ জিজ্ঞাসা(FAQ)

প্রশ্নঃ বর্তমানে সবচেয়ে জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং সেক্টর কোনটি?
উত্তরঃ বর্তমানে সবচেয়ে জনপ্রিয় ফ্রিল্যান্সিং সেক্টর হলো ডিজিটাল মার্কেটিং। আর ডিজিটাল মার্কেটিং সেক্টরে ওয়েব ডেভেলপমেন্ট সবথেকে জনপ্রিয়।

প্রশ্নঃনতুন ফ্রিল্যান্সারদের জন্য সেরা মার্কেটপ্লেস কোনটি?
উত্তরঃ নতুন ফ্রিল্যান্সারদের জন্য সেরা মার্কেটপ্লেস হলোঃ
  • ফাইভার
  • পিপল পার আওয়ার
  • আপওয়ার্ক
  • ফ্রিল্যান্সার ডটকম
প্রশ্নঃফ্রিল্যান্সিং এর টাকা পাওয়ার জন্য বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় মাধ্যম কোনটি?
উত্তরঃফ্রিল্যান্সিং এর টাকা পাওয়ার জন্য বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় মাধ্যম হলঃ payoneer,paypal,skrill।

প্রশ্নঃফ্রিল্যান্সিং এ বাংলাদেশের অবস্থান কত?
উত্তরঃ ফিন্যান্সিং এ বাংলাদেশের অবস্থান অষ্টম।

লেখকের মন্তব্য

আশা করছি প্রিয় পাঠক আপনারা আজকের এই পোস্টটিতে শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট এর নাম সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। তাছাড়াও শিক্ষার্থীরা কিভাবে অনলাইনে টাকা ইনকাম করতে পারবে তা সম্পর্কেও বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। অনেকেই ফ্রিল্যান্সিং শিখতে কত টাকা লাগে এ বিষয়টি ভালোমতো জানেন না তাদের জন্যই আজকে আমরা এ বিষয়টি সম্পর্কে পোস্টটিতে আলোচনা করেছি। শিক্ষার্থীরা কোন ওয়েবসাইট থেকে অনলাইনে টাকা আয় করতে পারবে সেই সম্পর্কে তুলে ধরা হয়েছে। আশা করছি শিক্ষার্থী বন্ধুরা আপনারা বুঝতে পেরেছেন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি বিডির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url