হেলফিট ট্যাবলেট এর ১০টি উপকারিতা ও অপকারিতা জানুন

প্রিয় পাঠক আপনারা নিশ্চয়ই হেলফিট ট্যাবলেট এর উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে জানতে আজকের পোস্টটিতে এসেছেন। তবে চিন্তিত হওয়ার কোনো কারণ নেই, আজকের পোস্টটিতে আমরা আপনাদের জন্য হেলফিট ট্যাবলেট এর উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করব।
হেলফিট ট্যাবলেট এর উপকারিতা ও অপকারিতা
পোস্টসূচিপত্রঃআপনারা যদি হেলফিট ট্যাবলেট এর ১০টি উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চান তাহলে এখনি পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

ভূমিকা

আমরা অনেকেই হেলফিট ট্যাবলেট এর নাম শুনেছি , তবে এই ট্যাবলেট কি কাজ করে তা আমরা অনেকেই জানিনা। তাদের জন্যই আমরা আজকের আর্টিকেলটিতে এই ট্যাবলেটটির গুনাগুন উপকারিতা সম্পর্কে আলোচনা করব। বোটানি ল্যাবরেটরীজ ইউনানী কোম্পানিটি এই ট্যাবলেট তৈরি করেছে। ট্যাবলেটটি সাধারণত রুচি বৃদ্ধি করতে ও হজমের সহায়তা পেতে খাওয়া হয়ে থাকে। 

তাছাড়াও এই হেলফিট ট্যাবলেটটির আরো অনেক উপকারিতা ও অপকারিতা রয়েছে। যেগুলো আমরা একটু পরে আলোচনা করব। তাই আপনারা যদি হেলফিট খেলে কি হয়?,হেলফিট খেলে কি ক্ষতি হয়?,হেলফিট ট্যাবলেট খাওয়ার নিয়ম ,হেলফিট ট্যাবলেট এর দাম কত ইত্যাদি সম্পর্কে জানতে চান তাহলে অবশ্যই পোস্টটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়তে থাকুন।

হেলফিট ট্যাবলেট এর কাজ কি

হেলফিট ট্যাবলেট খাওয়ার আগে অবশ্যই হেলফিট ট্যাবলেট এর কাজ কি এ সম্পর্কে জেনে রাখা উচিত। এটি আমাদের শরীরে বিভিন্ন উপকার করে থাকে , তাছাড়া শরীরে বিভিন্ন কাজে সহায়তা করে থাকে। এই ট্যাবলেটের সাধারণত রুচিবোধক হিসেবে ব্যবহার করা হয় অর্থাৎ তাদের খাবার খেতে ইচ্ছা করে না তাদের জন্য এটি ব্যবহার করা হয়। মূলত খাবারের প্রতি রুচি বৃদ্ধি করা , হজমের সহায়তা করা , রক্তস্বল্পতা , পরিপাকতন্ত্রের দুর্বলতা সহ ওজন বৃদ্ধিতেও এই ট্যাবলেট কাজ করে থাকে। যাদের এই ধরনের সমস্যা রয়েছে তারা এই হেলফিট ট্যাবলেটটি গ্রহন করতে পারেন। 
হেলফিট ট্যাবলেট
তাছাড়া আরও অনেক উপকার করে থাকে এই ট্যাবলেট। যা জানলে আপনারা খেতে শুরু করবেন। তবে এই ট্যাবলেটটি আপনার জন্য প্রযোজ্য কিনা সেটি জানতে আপনি ডাক্তারের নিকট পরামর্শ নিবেন। কোনো কারণ ছাড়া ওষুধ বা ট্যাবলেট খাওয়া শরীরের জন্য ক্ষতিকর। তাই অবশ্যই আপনার যদি উপরোক্ত সমস্যা গুলো দেখা দেয় তাহলে ডাক্তারের নিকট পরামর্শ নিয়ে ওষুধ বা ট্যাবলেটটি সেবন করবেন।

হেলফিট ট্যাবলেট এর উপকারিতা | হেলফিট ট্যাবলেট এর উপকারিতা ও অপকারিতা

আপনার হয়তো উপরের অংশে হেলফিট ট্যাবলেট এর কাজ সম্পর্কে জানতে পারলেন। তবে এই ট্যাবলেট খাওয়ার আগে অবশ্যই এর উপকারিতা গুলো কি কি এ সম্পর্কে জেনে রাখা উচিত। আপনারা হয়তো অনেকেই এই ট্যাবলেট বা ওষুধটি চিনে থাকেন তবে এর উপকারিতা জানেন না। 

তাদের জন্য আজকের এই অংশটি হচ্ছে গুরুত্বপূর্ণ। কারণ আমরা আজকের এই পাঠে হেলফিট ট্যাবলেট এর উপকারিতা সম্পর্কে আলোচনা করব। চলুন আর কথা না বাড়ি এবার জেনে নেওয়া যাক হেলফিট ট্যাবলেট এর উপকারিতা গুলো কি কিঃ
  • যাদের খাবারের প্রতি রুচি কমে গেছে , এজন্য ক্ষুধা বৃদ্ধি করতে চান তাদের জন্য এই ট্যাবলেট খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তারা এই ট্যাবলেটটি খেতে পারেন।
  • শরীরের সুস্বাস্থ্য বজায় রাখার জন্য এই ট্যাবলেট সেবন করা যেতে পারে। তাছাড়া ও শরীরের স্বাস্থ্যর উন্নতি করতেও ব্যবহার করতে পারেন।
  • তাছাড়া যারা শরীরের ওজন বৃদ্ধি করতে চান তারা এই ট্যাবলেট খেতে পারেন। কারণ ট্যাবলেটটি ওজন দ্রুত বৃদ্ধিতে সহায়তা করে থাকে।
  • এছাড়াও যাদের শরীর দুর্বল এবং চিকন তারা এই ট্যাবলেট গ্রহণ করতে পারেন। আপনার শরীরের দুর্বল ভাব দূর হয়ে যাবে।
  • মুখের রুচি বৃদ্ধি করতে হেলফিট ট্যাবলেট সেবন করতে পারেন। এটি ক্ষুধা বাড়াতে ও রুচি বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে।
  • হেলফিট ট্যাবলেট পেট ফাঁপা সমস্যা দূর করতে পারে। যারা পেট ফাঁপা সমস্যায় ভুগছেন তারা ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী এই ট্যাবলেট খেতে পারেন।
  • তাছাড়াও এই ট্যাবলেট পরিপাকতন্ত্র জনিত সমস্যার সমাধান করে থাকে। আপনার হজমের সমস্যা থাকলে এই ট্যাবলেটটি সেবন করতে পারেন।
  • জানা গেছে এই ট্যাবলেট খাওয়ার ফলে শরীরে রক্তস্বল্পতা দূর করা যায়। আপনি যদি রক্তস্বল্পতায় ভোগে থাকেন তাহলে এই ট্যাবলেট সেবন করতে পারেন।
  • যাদের বদহজম সমস্যা রয়েছে তারা এই ট্যাবলেটটি সেবন করতে পারেন। এই ট্যাবলেটে থাকা গুনাগুন হজমে সহায়তা করে থাকে।
  • এছাড়াও আপনার শরীরে যদি ক্লান্তি ভাব অনুভব হয়। তাহলে এই ট্যাবলেটটি নিয়মিত গ্রহণ করতে পারেন শরীরের ক্লান্ত ভাব দূর হয়ে যাবে।
আশা করছি আপনারা তাহলে হেলফিট ট্যাবলেট এর উপকারিতা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জেনে গেলেন। নিয়ম অনুযায়ী এই ট্যাবলেটটি সেবন করতে হবে। তাই অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিন এবং সঠিক নিয়মে গ্রহণ করুন।

হেলফিট ট্যাবলেট এর অপকারিতা ও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া

হেলফিট ট্যাবলেট সেবন করার আগে অবশ্যই এর অপকারিতা ও পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া সম্পর্কে জানতে হবে। কারণ এই ট্যাবলেটটি দীর্ঘদিন গ্রহণ করার ফলে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই আপনাদের এর অপকারিতা ও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া জেনে রাখতে হবে। নিম্নে হেলফিট ট্যাবলেট এর অপকারিতা গুলো তুলে ধরা হলোঃ
  • এই ট্যাবলেটটি সেবন করলে দ্রুত ওজন বেড়ে যেতে পারে অর্থাৎ স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে আপনার ওজন বৃদ্ধি পাবে না। এটি অনেকের ক্ষেত্রে সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। কারণ শরীরে ওজন বৃদ্ধির সময় শরীর অস্বাভাবিক মোটা হয়ে যেতে পারে।
  • তাছাড়া অনেকের ক্ষেত্রে দীর্ঘদিন ট্যাবলেটটি সেবন করার ফলে শরীর ফুলে যেতে পারে।
  • হেলফিট ট্যাবলেটটি দীর্ঘদিন যাবত গ্রহণ করতে থাকলে আপনার শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যেতে পারে। তাছাড়াও শরীরের ইমিউন সিস্টেম ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।
  • অনেকের ক্ষেত্রে এই ট্যাবলেট খাওয়ার ফলে এলার্জি প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হতে পারে। তাই যাদের এই ট্যাবলেট এ এলার্জি রয়েছে তারা খাওয়া থেকে বিরত থাকুন।
  • এছাড়া অনেকের ক্ষেত্রে দীর্ঘদিন যাবত এই হেলফিট ট্যাবলেট গ্রহণ করার ফলে মুখে ব্রণের সমস্যা দেখা দিতে পারে।
  • তাছাড়া আপনি যদি ওজন বৃদ্ধির জন্য এই ট্যাবলেট খেয়ে থাকেন। তাহলে আপনার ওজন বৃদ্ধি পাবে , কিন্তু আবার এই ট্যাবলেট খাওয়া বাদ দিয়ে দিলে আপনার ওজন কমতে থাকবে।
  • এই স্টেরোয়েড জাতীয় ট্যাবলেটটি দীর্ঘদিন ধরে গ্রহণ করার ফলে কিডনির সমস্যা দেখা দিতে পারে।
  • অনেকের ক্ষেত্রে আবার এই ট্যাবলেট গ্রহণ করার ফলে কিডনির সমস্যা ও কিডনি নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তাই অযথা ট্যাবলেট সেবন করবেন না , ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী গ্রহণ করুন।
  • এছাড়াও শরীরে পানি জমে থাকতে পারে। এই ট্যাবলেট খাওয়ার ফলে অনেকের ক্ষেত্রে শরীরে পানি জমে থাকা সমস্যাটি হয়ে থাকে।
  • তাছাড়াও দীর্ঘদিন ট্যাবলেট গ্রহণ করার ফলে ফুসফুসে পানি জমা সহ শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যেতে পারে।
  • আবার যারা গর্ভবতী মায়েরা রয়েছেন তাদের ক্ষেত্রে এই ট্যাবলেটটি কোনমতেই গ্রহন করা যাবে না। এই ট্যাবলেট গর্ভবতী মায়েরা গ্রহণ করলে বাচ্চার স্বাস্থ্য ঝুঁকি দেখা দিতে পারে। তাছাড়া মায়েদের বিভিন্ন সমস্যা হতে পারে।
  • বাচ্চা ও শিশুদের এ ধরনের ওষুধ কখনো গ্রহণ করা যাবে না। তাই বাচ্চাদের অবশ্যই এই ট্যাবলেট খাওয়া থেকে বিরত রাখবেন।
তাহলে আপনারা ভালোভাবেই এই হেলফিট ট্যাবলেট এর অপকারিতা ও পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া জেনে গেলেন। এই ট্যাবলেট এর ক্ষতিকর দিক সম্পর্কে আপনার প্রিয়জনকে জানাতে পোস্টটি শেয়ার করুন।

হেলফিট ট্যাবলেট খাওয়ার নিয়ম

হেলফিট ট্যাবলেট এর উপকারিতা পাওয়ার জন্য আপনাদের অবশ্যই হেলফিট ট্যাবলেট খাওয়ার নিয়ম সম্পর্কে জেনে খেতে হবে। তাই আমরা এই অংশে হেলফিট ট্যাবলেট খাওয়ার নিয়ম সম্পর্কে আলোচনা করব। এটি একটি স্টেরয়েড জাতীয় ঔষধ বা ট্যাবলেট। তাই সঠিক নিয়মে গ্রহণ করতে হবে। অতিরিক্ত খেয়ে ফেললে ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে , এজন্য সঠিক নিয়মে সেবন করা উচিত।
১৮ বছরের উপরে অর্থাৎ প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে এই ট্যাবলেটটি প্রতিদিন সকালে একটি করে এবং রাতে একটি করে সেবন করতে হবে। তারপর আপনাদের ট্যাবলেটটি খাওয়ার ১৫ দিন পর থেকে এই ওষুধটি প্রতিদিন একটি করে গ্রহণ করতে হবে অর্থাৎ ১৫ দিন পর থেকে একটি করে ট্যাবলেট গ্রহণ করবেন।এভাবে আপনি একমাস ট্যাবলেট খেতে পারেন। 
তবে আপনারা ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী দুই মাস পর্যন্ত সেবন করতে পারবেন। তবে মনে রাখা ভালো অতিরিক্ত এ ধরনের ওষুধ খাওয়া ক্ষতিকর। আর অবশ্যই ট্যাবলেটটি ভরা পেটে খেতে হবে , খালি পেটে কখনোই এই ট্যাবলেটটি গ্রহণ করা যাবে না। আপনি খাবার খাওয়ার পর প্রতিদিন দুই বেলায় একটি করে ট্যাবলেট খাবেন।

হেলফিট ট্যাবলেট এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া বাংলা

আপনার অনেকেই হেলফিট ট্যাবলেট এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া বাংলায় সম্পর্কে জানতে চান। কারণ বর্তমানে ইন্টারনেটের প্রায় ইংলিশে লেখা রয়েছে এ সম্পর্কে। এজন্য আমরা এই ট্যাবলেটের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াগুলো বাংলায় তুলে ধরছি।
  • এই ট্যাবলেটটি অতিরিক্ত সেবন করার ফলে অস্বাভাবিক মোটা ও স্থূলতা দেখা দিতে পারে।
  • আপনার শরীরের অতিরিক্ত ওজন বেড়ে যাওয়া ও মোটা পর্যন্ত হতে পারে।
  • তাছাড়াও এই ট্যাবলেট অতিরিক্ত ও দীর্ঘদিন সেবন করলে কিডনি বিকল হয়ে যেতে পারে।
  • এছাড়া আপনার শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যেতে পারে।
  • অনেকের ক্ষেত্রে লিভারের সমস্যা পর্যন্ত হতে পারে। তবে সঠিক পরিমাণ গ্রহন করলে ক্ষতি নেই
তাহলে আশা করছি আপনারা উপরে হেলফিট ট্যাবলেট এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া বাংলা সম্পর্কে জানতে পারলেন।

হেলফিট খেলে কি ক্ষতি হয়

এই হেলফিট ট্যাবলেট সেবন করার ফলে আমাদের শরীরে বিভিন্ন ধরনের ক্ষতি হতে পারে। এজন্য অবশ্যই সতর্ক হিসেবে হেলফিট খেলে কি ক্ষতি হয় এ সম্পর্কে জেনে রাখা ভালো। নিম্নে হেলফিট খেলে কি ক্ষতি হয় এ সম্পর্কে তুলে ধরা হলোঃ
  • এই হেলফিট নিয়ম না মেনে অযথা সেবন করা হলে কিডনি সমস্যা হতে পারে।
  • তাছাড়া অনেকেই ক্ষেত্রে ত্বকে এলার্জি সহ ত্বকের বিভিন্ন ধরনের সমস্যা হয়ে থাকে।
  • এছাড়া এটি সেবন করার ফলে ফুসফুসের ক্ষতি হতে পারে। অনেক সময় এই ট্যাবলেট সেবন করার কারণে ফুসফুসে পানি জমে থাকে।
  • অনেক ক্ষেত্রে মুখ ও ত্বকের ক্ষতি হয়ে থাকে। বিশেষ করে মুখে ব্রণ দেখা যায়।
উপরে আমরা কিছু হেলফিট খেলে কি ক্ষতি হয় এ সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরেছি। আপনাদের আবারো বলে রাখছি এই ট্যাবলেটটি অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী সেবন করবেন। কখনোই নিজে নিজে কিনে গ্রহণ করবেন না , এতে করে আপনার ক্ষতি হওয়া সম্ভবনা বেশি রয়েছে।

হেলফিট খেলে কি হয়

হেলফিট খেলে শরীর মোটা হয়ে যায়। তাছাড়াও মুখে রুচি বৃদ্ধি ও ক্ষুধা বাড়াতে সহায়তা করে থাকে। এই ট্যাবলেট খেলে পরিপাকতন্ত্রের সমস্যা দূর হয় এবং শরীরের ওজন বৃদ্ধি পায়। এছাড়া বদ হজমের সমস্যা দূর পর্যন্ত করা যায়। শরীরের শারীরিক ক্লান্তি দূর করতে পারে।

হেলফিট ট্যাবলেট এর দাম কত

আপনারা অনেকেই এই ট্যাবলেটের দাম জিজ্ঞাসা করে থাকেন। এজন্য আমরা এই অংশে হেলফিট ট্যাবলেট এর দাম কত এ সম্পর্কে আলোচনা করব। আপনারা এই ট্যাবলেটটি বাজারে ফার্মেসির দোকানে পেয়ে যাবেন। তাছাড়া বিভিন্ন অনলাইন প্লাটফর্মে পেতে পারেন। তবে এই ওষুধটি ফার্মেসির দোকানে আপনারা ৩৬০ টাকায় পেয়ে যাবেন। 

এই ওষুধের প্যাকেটের মধ্যে ৩০টি ট্যাবলেট থাকে। বিভিন্ন দোকানে এই ওষুধের দাম কম বেশি হয়ে থাকে। তাহলে বলা যায় হেলফিট ট্যাবলেট এর দাম ৩৩০-৩৬০ টাকা। অনেক দোকানে আবার ৩৩০ টাকা দিয়েও এই ট্যাবলেট পাওয়া যায়। এই ওষুধটি কিনার আগে অবশ্যই ওষুধের গায়ে লেখা মেয়াদ দেখে কিনবেন।

শেষ কথা

প্রিয় বন্ধুরা আশা করছি আপনারা হেলফিট ট্যাবলেট এর ১০টি উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। তাছাড়াও ট্যাবলেট খেলে কি ক্ষতি হয় এবং কি ধরনের উপকার করে থাকে ইত্যাদি সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে গেছেন। আপনার পরিচিতদের হেলফিট ট্যাবলেট এর উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে জানাতে পোস্টটি শেয়ার করুন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি বিডির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url