নাকের সর্দি দূর করার ট্যাবলেট, সিরাপ নাম ও সর্দি দূর করার উপায়[বিস্তারিত তথ্য]

প্রিয় বন্ধুরা, আপনার নিশ্চয়ই নাকের সর্দি দূর করার ট্যাবলেট সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন। তবে আপনাদের চিন্তিত হওয়ার কোন কারণ নেই। আজকের এই আর্টিকেলটিতে নাকের সর্দি দূর করার ট্যাবলেট ও ওষুধ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে। তাছাড়াও নাকের সর্দি কিভাবে দূর করবেন তা সম্পর্কে জানতে পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন।
নাকের সর্দি দূর করার ট্যাবলেট
আর্টিকেল সূচিপত্রঃপ্রিয় পাঠক আপনি যদি নাকে সর্দি দূর করতে চান এবং নাকের সর্দি দূর করা ট্যাবলেট ও ঔষধের নাম জানতে চান তাহলে অবশ্যই পোস্টটি মনোযোগ সহকারে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়তে থাকুন।

উপস্থাপনা

আমাদের প্রায় শীতকালে সর্দি কাশি বেশি লেগে থাকে। কারণ শীতকালে ভাইরাসের সংক্রমনের ফলে আমাদের অনেক সময় সর্দি হয়ে থাকে। শীতকালে সাধারণত ভাইরাসজনিত কারণে সর্দি লেগে থাকে। সর্দি লাগলে নাক দিয়ে জল পড়তে থাকে অর্থাৎ বলতে গেলে নাক দিয়ে পানি পড়তে থাকে। একে সর্দি বলা হয়। এই সর্দি একটি খুবই বিরক্তিকর হয়ে দাঁড়িয়েছে। যার ফলে আপনারা নাকের সর্দি দূর করতে চান। নাকি সর্দি দূর করতে চাইলে আপনাকে কিছু উপায় অবলম্বন করতে হবে। 
তাছাড়াও আপনি নাকের সর্দি দূর করার ট্যাবলেট গ্রহণ করে নাকের সর্দি দূর করতে পারেন। তার আগে অবশ্যই আপনাকে নাকের সর্দি দূর করার ওষুধের নাম জানতে হবে, যেগুলো আমরা আজকের এই পোস্টটিতে আলোচনা করব। পোস্টটিতে আমরা নাকের সর্দি দূর করার উপায় ,নাকের সর্দি কমানোর উপায় ,নাকের সর্দি দূর করার ঔষধ সহ আরো অনেক কিছু বিস্তারিত আলোচনা করা হবে। তাই সকল কিছু জানতে পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

সর্দি কেন হয়ে থাকে

সাধারণত শীতকালে ভাইরাসজনিত সংক্রমণে নাকের সর্দি হয়ে থাকে। বিশেষ করে শরীরে অতিরিক্ত ঠান্ডা লাগলে এই সর্দি হতে পারে। শীতকালে অবশ্যই সতর্ক থাকতে হবে যাতে আপনার সর্দি বা ঠান্ডা না লাগে। শীতকালে ঠান্ডা লাগলে এই সর্দি বেশি হয়ে থাকে। তাই সবসময় শীতকালে গরম কাপড় পড়ে থাকার চেষ্টা করবেন যাতে করে আপনার শরীরে ঠান্ডা না লাগে। তাহলে বুঝতে পারছেন সর্দি সাধারণত শীতকালে ভাইরাসজনিত সংক্রমণে হয়ে থাকে। শীতকালে সকলেরই সাবধানে থাকা উচিত।আর শীতের সময় গরম কাপড় পরিধান করা উচিত।

সর্দির উপসর্গ কি বা লক্ষণ

আপনাদের অনেকেরই শীতের সময় সর্দি লেগে থাকে। আর এই সর্দি লাগলে কি কি উপসর্গ দেখা যায় সে সম্পর্কে অনেকেই জানে না। তাদের জন্য আমরা আজকের এই পাঠে সর্দির উপসর্গ কি বা লক্ষণগুলো সম্পর্কে আলোচনা করব।
  • সর্দি লাগলে প্রথমে আমাদের নাক দিয়ে পানি বা জল পড়তে থাকে।
  • খাবারের স্বাদ বুঝা যায় না , খাবার গ্রহণ করার সময় স্বাদ ও গন্ধ পাওয়া যায় না।
  • তাছাড়াও নাকে অধিক পরিমাণে সর্দি হলে নাক ভারি হয়ে আসে, আর নাক দিয়ে পানি পড়তে থাকে
  • সর্দি লাগার কারণে অনেক সময় শরীরে জ্বর জ্বর অনুভূত হয়।
  • তাছাড়া শরীরে ঠান্ডা লাগার অনুভূতি হতে থাকে এবং শরীর দুর্বল হয়ে যায়।
  • অনেক সময় আবার অনেকে ক্ষেত্রে হালকা মাথা ব্যাথা হয়ে থাকে।
আশা করছি আপনারা সর্দি লাগলে কি কি লক্ষণ দেখা যায় সেগুলো জানতে পেরেছেন। মূলত এখানে সর্দির উপসর্গগুলো তুলে ধরা হয়েছে।

নাকের সর্দি দূর করার ট্যাবলেট 

আপনার অনেকেই নাকের সর্দি হলে ওষুধ খেতে চান। তবে আপনারা হয়তো নাকের সর্দি দূর করার ওষুধ ও ট্যাবেট সম্পর্কে জানেন না। এজন্য আপনারা আজকের পোস্টটিতে এ সম্পর্কে জানতে এসেছেন। তবে সঠিক ওষুধ গ্রহণের মাধ্যমে নাকে সর্দি দূর করা যায়। তবে কোন ওষুধটি আপনার জন্য ভালো হবে এ কথাটি শুধুমাত্র ডাক্তারি বলতে পারবে। 
তাই নাকের সর্দি দূর করার ট্যাবলেট খেতে চাইলে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ওষুধ নিবেন। আমি শুধু এখানে আপনাদের নাকের সর্দি দূর করার ওষুধ গুলোর নাম ও ট্যাবলেটের নাম বলে দিচ্ছি। চলুন শুরু করা যাক।

সর্দি দূর করার ট্যাবলেট

  শিশুদের জন্য সিরাপ বা ট্যাবলেট

নিওসিলর

Adovas 

কেটো এ 100

Nectar Syrup 

ক্লারিক্স

Adolef 

হিস্টাচিন

Madhuvas 

হিস্টালেক্স

Remocof 

Dslor

Ambrox 

Ambrox 75 SR

O Cof  

উপরে চাটে আপনারা নাকের সর্দি দূর করার ওষুধ ও ট্যাবলেট এর নাম জানতে পারলেন। তবে এখানে সর্দি কাশির ও ট্যাবলেট রয়েছে। আর উপরের ওষুধ গুলোর মধ্যে কিছু ওষুধ শিশুদের জন্য। সেগুলো হলো Adolef ,O Cof ,Nectar Syrup ,Madhuvas ,Remocof ,Adovas ,Ambrox ইত্যাদি শিশুদের জন্য সর্দি-কাশির সিরাপ। 

এই নামগুলো আমরা উপরে চাটে একসাথে উল্লেখ করেছি। তাই আপনারা বাছাই করে দেখেশুনে কিনবেন। আর মনে রাখবেন উপরের দেওয়া লিস্টে উল্লেখিত ঔষধ গুলো আপনাকে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী গ্রহণ করতে হবে।

নাকের সর্দি কমানোর ঘরোয়া উপায়

আমাদের সকলের প্রায় শীতকালে কম বেশি সর্দি লেগেই থাকে। তবে আপনারা চাইলে সর্দি কাশি দূর করার ট্যাবলেট খেয়ে সর্দি দূর করতে পারবেন। তাছাড়াও নাকের সর্দি আপনি ঘরোয়া উপায়ে কমাতে পারবেন। 
নাকের সর্দি কমানোর ঘরোয়া উপায়
আর এর জন্য জানতে হবে নাকের সর্দি কমানোর উপায় ও নাকের সর্দি কমানোর ঘরোয়া উপায় সম্পর্কে, যেগুলো আমরা এখন আলোচনা করব। চলুন আর কথা না বাড়িয়ে নাকের সর্দি কমানোর ঘরোয়া উপায় গুলো জেনে আসি।
  • শীতকালে আমাদের প্রায় সর্দি লেগে থাকে। তবে আপনি যদি শীতকালে সর্দি দূর করতে চান তাহলে শীতকালে প্রতিদিন বা মাঝে মাঝে সকালে রোদে দাঁড়িয়ে অথবা বসে থাকতে পারেন। এতে করে শরীরে ভিটামিন ডি বৃদ্ধি পাবে এবং সর্দি কমে যেতে পারে। তাছাড়াও সর্দি হওয়ার সম্ভাবনা অনেকটা কমে যায়।
  • এছাড়াও আপনারা কয়েক কুয়া রসুন নিয়ে গরম পানির সাথে ফুটিয়ে নিবেন। তারপর ওই গরম পানির সাথে হালকা হলুদ গুড়া মিশিয়ে খেয়ে নিবেন। তাহলে দেখবেন আপনার সর্দি অনেকটা কমে আসবে অর্থাৎ সর্দি দূর হয়ে যাবে।
  • আপনি সর্দি কমানোর জন্য আদা চা খেতে পারেন। চায়ের মধ্যে কিছু পরিমাণ আদা দিয়ে ভালোভাবে গরম করে সেই চা খেলে সর্দি কমে যাওয়া সম্ভবনা থাকে। আদা মিশ্রিত চা কয়েকদিন খেলে আশা করছি নাকের সর্দি কমে যাবে।
  • শীতকালে সাধারণত ঠান্ডা পানি দিয়ে গোসল অথবা ঠান্ডা পানি ব্যবহার করলে শরীরে ঠান্ডা লাগার সাথে সাথে সর্দি কাশি লেগে যেতে পারে। তাই শীতের সময় ঠান্ডা পানি ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন। আর গরম পানি ব্যবহার করার চেষ্টা করুন আপনার সর্দি কাশি হওয়া সম্ভাবনা কমে যাবে।
  • নাকের সর্দি হলে গরম পানি ব্যবহার করবেন অর্থাৎ গরম পানি সবসময় খাবেন। আর পর্যাপ্ত পরিমাণে রাতে ঘুমাবেন। তাহলে আপনার সর্দি দূর হয়ে যাবে।
  • তাছাড়াও নাকের সর্দি হলে আপনারা তরল জাতীয় খাবার বেশি খেতে পারেন। তবে অবশ্যই সেটি সঠিক তাপমাত্রায় রেখে খেতে হবে। ফ্রিজে রাখলে সেটি হালকা ঠান্ডা কম হলে তখন খেতে হবে। এছাড়াও প্রচুর পরিমাণে হালকা গরম পানি পান করতে পারেন।
  • আপনারা হয়তো জানেন শীতের সময় ঠান্ডা লাগলে সর্দি হয়ে থাকে। তাই শীতের গরম কাপড় চোপড় সব সময় পরিধান করে থাকবেন। তাহলে আপনার সর্দি-কাশি কমাতে পারবেন।
  • আপনারা চাইলে নাকে সর্দি কমাতে গরম পানির ভাব নিতে পারেন। এখানে আপনি হালকা গরম পানি করে পাত্রের মধ্যে রাখবেন , ওই পাত্রে গরম পানি থাকায় পানি দিয়ে ধোঁয়া বা ভাব বের হবে সেই ভাব আপনাকে নিতে হবে। তাহলে আপনার নাকের সর্দি অনেকটা কমে আসবে।
আশা করছি আপনারা নাকের সর্দি কমানোর উপায় গুলো জানতে পেরেছেন। এছাড়াও আপনারা নাকের সর্দি কমানোর ট্যাবলেট খেয়ে সর্দি দূর করতে পারবেন। ট্যাবলেট গুলো খাওয়ার আগে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে সঠিক ট্যাবলেটটি গ্রহণ করবেন।

সর্দি কাশি হলে কি ওষুধ খাওয়া উচিত

আমার অনেকেই সর্দি কাশি হয়ে থাকলে ওষুধ খেয়ে থাকি। বিশেষ করে সর্দি হলে তেমন ওষুধ খাওয়ার প্রয়োজন নেই। কারণ অধিক পরিমাণ ওষুধ খাওয়া আমাদের শরীরের জন্য ক্ষতিকর। তবে আপনি যদি ঠান্ডায় ভোগেন এবং আপনার সর্দি কাশি লেগে থাকে তখন আপনি কাশির ওষুধ খেতে পারেন। 
আর সর্দি লাগলে কিছুদিন পরেই সর্দি কমে যায়। তাই আমার মতে সর্দি হলে ওষুধ খাওয়া দরকার নেই। আপনারা ঘরোয়া উপায়ে সর্দি কমাতে পারেন। আর যদি কাশি হয় কাশির ওষুধ খাওয়ার ক্ষেত্রে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী প্রেসক্রিপশন নিয়ে খাবেন।

ঘন ঘন সর্দি লাগা কিসের লক্ষণ

যাদের ঘনঘন সর্দি লেগে থাকে তারা প্রায়ই একটি প্রশ্ন করে থাকে সেটি হল ঘন ঘন সর্দি লাগা কিসের লক্ষণ। আর এই প্রশ্নের উত্তরে আমরা আজকের এই অংশটিতে ঘন ঘন সর্দি লাগা কিসের লক্ষণ এ সম্পর্কে আলোচনা করব। সাধারণত শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে গেলে ঘনঘন সর্দি লাগতে পারে। চলুন এ সম্পর্কে আমরা বিস্তারিত তথ্য জেনে আসি।
  • আপনার শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে গেলে ঘনঘন সর্দি লাগতে পারে। যখন ঘন ঘন সর্দি লাগবে তাহলে বুঝতে হবে আপনার শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে গেছে এবং শরীরের ইমিউন সিস্টেম দুর্বল হয়ে পড়ছে। এজন্যই ঘনঘন সর্দি লেগে থাকে।
  • এছাড়া দেখা গেছে ঘনঘন সর্দি লাগলে সেটি হলো নিউমোনিয়া রোগের লক্ষণ। কারণ নিউমোনিয়া রোগ হলে হাঁচি কাশির সাথে সাথে সর্দিও লেগে থাকে। তাছাড়া গলায় ইনফেকশন পর্যন্ত দেখা যায়। তাহলে বুঝতে হবে ঘন ঘন সর্দি লাগা নিউমোনিয়া রোগের লক্ষণ হতে পারে।
  • গবেষণা দেখা গেছে ভিটামিন ডি আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তোলে এবং শরীর সুস্থ রাখে। তবে শীতকালে সাধারণত রোদ কম থাকে। কারণ রোদ থেকেই ভিটামিন ডি অনেকটাই পাওয়া যায়। তাই ভিটামিন ডি এর অভাবে সর্দি কাশি লাগতে পারে।
  • এছাড়াও নাকের প্রদাহ বা ক্ষত দেখা গেলে ঘনঘন সর্দি লাগতে পারে। বিশেষ করে নাকের সাইনোসাইটিস হলে ঘন ঘন সর্দি কাশি লেগে থাকে। এটি অতিরিক্ত হয়ে গেলে মারাত্মক পর্যায়ে যেতে পারে। তাই সবসময় সতর্ক থাকতে হবে এবং এই রোগ প্রতিরোধ করতে হবে।
তাহলে আপনারা হয়তো ঘন ঘন সর্দি লাগা কিসের লক্ষণ এ সম্পর্কে জেনে গেলেন। তাই আপনারা নাকের সর্দি দূর করতে সঠিক পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন। আর নাকের সর্দি দূর করতে ঘরোয়া উপায় সহ ডাক্তারের পরামর্শ নিতে পারেন।

সর্দি হলে কি খাওয়া উচিত - সর্দি দূর করার খাবার তালিকা

আপনাদের যদি সর্দি হয়ে থাকে তাহলে কিছু খাবার গ্রহণের মাধ্যমে সর্দি দূর করতে পারবেন। আপনারা হয়তো ইতিমধ্যেই নাকের সর্দি দূর করা ট্যাবলেট জেনে এসেছেন। তবে এখন আপনারা কিছু খাদ্য গ্রহণের মাধ্যমে বা কিছু ফল খাওয়ার মাধ্যমে সর্দি কমাতে পারবেন।
  • মধু ও তুলসিপাতা
  • আদা চা
  • ভিটামিন
  • জুস
  • তেঁতুল 
  • আঙ্গুর
  • স্যুপ
  • জলপাই
  • আনারস
  • পেয়ারা
  • আমড়া
  • কলা
  • রসুন
  • শাকসবজি
  • আদা
  • সুপ জাতীয় খাবার
আপনার উপরোক্ত খাবার ও তরল খাবার গুলো গ্রহণ করতে পারেন তাহলে অনেকটা নাকের সর্দি দূর করা যাবে এবং নাকের সর্দি কমাতে পারবেন। সর্দি দূর করার খাবার তালিকা হিসাবে উপরোক্ত খাবার গুলো আপনারা খেতে পারেন। সাধারণত এই খাবারগুলো খেলে সর্দি দ্রুত সেরে যায়।

সর্দিতে নাক বন্ধ হলে ঘরোয়া উপায়

আমাদের অনেক সময়ই শীতকালে ঠান্ডা লাগার ফলে নাক বন্ধ হয়ে যায়। বিশেষ করে সর্দি লাগার ফলে নাক বন্ধ হয়ে যাওয়ার প্রবণতা দেখা যায়। এই সময় আপনারা নাক বন্ধ হয়ে গেলে কিছু ঘরোয়া উপায়ে নাক বন্ধ দূর করতে পারেন। আপনারা চাইলে কিছু রসুনের কুয়া নিয়ে গরম পানিতে মিশিয়ে খেতে পারেন এতে করে নাক বন্ধ দূর হয়ে যাবে। 
তাছাড়াও আদার রস খেলে নাক গন্ধ দূর হয়ে যায়। আদা রস করে খেতে পারেন। এছাড়াও আপনারা তেজপাতা গরম পানিতে দিয়ে সেই পানি পান করলে নাক বন্ধ দূর করতে পারবেন। আপনারা চাইলে বাজার থেকে নাক বন্ধ দূর করার ড্রপ কিনে ব্যবহার করতে পারেন। এতে করে অতি সহজেই নাক বন্ধ দূর হয়ে যাবে।

নাকের সর্দি দূর করার ট্যাবলেট সম্পর্কিত সাধারণ জিজ্ঞাসা(FAQ)

প্রশ্নঃসর্দি নাক দিয়ে পানি পড়া বন্ধ করব কিভাবে?
উত্তরঃ সর্দি নাক দিয়ে পানি পড়া বন্ধ করার জন্য Dslor বা হিস্টাচিন ট্যাবলেট সেবন করতে পারেন। ডাক্তাররা প্রায় এ ধরনের ট্যাবলেট নাকের সর্দি দূর করার জন্য দিয়ে থাকে।

প্রশ্নঃ নাকের সর্দি কমানোর উপায় কি?
উত্তরঃ নাকের সর্দি কমানোর জন্য ঘরোয়া উপায় হিসেবে আদা চা খেতে পারেন। তাছাড়াও নাকের সর্দি কমানোর জন্য বিভিন্ন ধরনের ট্যাবলেট পাওয়া যায় সেগুলো সেবন করতে পারেন।

প্রশ্নঃ সর্দি হলে কি ওষুধ খেলে ভালো হয়?
উত্তরঃ সর্দি হলে Dslor ঔষধ খেলে ভালো হয়। তবে সবচেয়ে ভালো হয় ঘরোয়া উপায় অবলম্বন করে নাকে সর্দি দূর করা।

প্রশ্নঃসর্দি সারতে কতদিন লাগে?
উত্তরঃ সর্দি সারতে সাধারণত তিন থেকে চারদিন সময় লাগতে পারে। তবে অতিরিক্ত সর্দি হয়ে থাকলে অনেক সময় ৭ থেকে ১০ দিন সময় লাগে।

লেখকের মন্তব্য

আশাকরি প্রিয় পাঠক আপনারা আজকের এই পোস্টটিতে নাকের সর্দি দূর করার ট্যাবলেট ও সিরাপ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন।তাছাড়াও নাকের সর্দি দূর করার ঘরোয়া উপায় ও নাকের সর্দি কমানোর উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। এর ফলে আপনারা অতি সহজেই ঘরোয়া পদ্ধতিতেও নাকের সর্দি দূর করতে পারবেন। 

এছাড়াও নাকের সর্দি দূর করার খাবার তালিকা তুলে ধরা হয়েছে এগুলো গ্রহণ করলে নাকে সর্দি অনেকটা কমে যাবে। আপনার পরিচিতদের নাকের সর্দি দূর করার ওষুধের নাম ও ট্যাবলেটের নাম সম্পর্কে জানাতে পোস্টটি শেয়ার করতে পারেন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি বিডির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url