অস্ট্রেলিয়া কৃষি কাজের ভিসাঃ কাজের বেতন কত, আবেদন করার নিয়ম[সর্বশেষ আপডেট]

আপনারা যারা অস্ট্রেলিয়াতে গিয়ে কৃষি কাজ করতে চান, তাদের অবশ্যই অস্ট্রেলিয়া কৃষিকাজের ভিসা আবেদন করে অস্ট্রেলিয়া যেতে হবে। আপনি একমাত্র অস্ট্রেলিয়া কৃষিকাজের ভিসা আবেদন করার মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে কৃষি কাজ করতে পারবেন। এর জন্য আপনাদের অস্ট্রেলিয়া কৃষি কাজের ভিসা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে হবে। আপনাদের জানার সুবিধার্থে আজকের পোস্টটিতে আমরা অস্ট্রেলিয়া কৃষি কাজের ভিসা ২০২৪ ও অস্ট্রেলিয়া কৃষি কাজের বেতন কত সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা তুলে ধরা করার চেষ্টা করব।
অস্ট্রেলিয়া কৃষি কাজের ভিসা
আর্টিকেল সূচিপত্রঃআপনারা যদি অস্ট্রেলিয়া কৃষি কাজে ভিসা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে চান তাহলে এখনি পোস্টটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়তে থাকুন। কারণ আজকের পোস্টে অস্ট্রেলিয়া কৃষিকাজের আবেদন ও অস্ট্রেলিয়ার কৃষিকাজের বেতন সম্পর্কে আলোচনা করা হবে।

ভূমিকা

প্রতিবছর আমাদের দেশ থেকে অস্ট্রেলিয়াতে কৃষিকাজের জন্য হাজার হাজার মানুষ যাচ্ছে। অস্ট্রেলিয়াতে কৃষি কাজের চাহিদা প্রচুর রয়েছে। আর কৃষি কাজের জন্য অস্ট্রেলিয়াতে বেতন বেশি দেওয়া হয়ে থাকে। যার কারণে সকলেই অস্ট্রেলিয়াতে কৃষি কাজ করতে চায়। তবে অস্ট্রেলিয়াতে গিয়ে কৃষি কাজ করার জন্য অস্ট্রেলিয়া কৃষি কাজের ভিসা আবেদন করতে হয়। অস্ট্রেলিয়াতে কৃষি কাজের জন্য দক্ষ ও অদক্ষ শ্রমিকদের নিয়োগ দেওয়া হয়ে থাকে। যার কারণে যে কেউ এই ভিসাতে আবেদন করতে পারবে। 

অস্ট্রেলিয়া সরকার প্রতি বছরের কৃষি কাজের জন্য প্রচুর লোক নিয়োগ দেয়। আর অস্ট্রেলিয়া উচ্চ সম্পদশালী দেশ হওয়াতে কৃষি সেক্টরে প্রচুর চাহিদা রয়েছে। আপনারা যারা অস্ট্রেলিয়াতে কৃষি কাজের জন্য যেতে চান তাদের অবশ্যই অস্ট্রেলিয়া কৃষি কাজের ভিসা সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য জেনে রাখতে হবে। আজকের এই পোস্টটিতে আমরা অস্ট্রেলিয়া কৃষিকাজের ভিসা ২০২৪ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব।

অস্ট্রেলিয়া কৃষি কাজের ভিসা

অস্ট্রেলিয়া সরকার প্রবাসীদের জন্য কৃষিকাজের ভিসা চালু করেছে। অর্থাৎ আপনারা যারা কৃষি কাজ করতে পারেন তারা চাইলে অস্ট্রেলিয়াতে গিয়ে ভালো বেতনে কৃষি কাজ করতে পারবেন। সেখানে কৃষিকাজের জন্য বেশি বেতন পেতে পারেন। আপনি যদি অদক্ষ হয়ে থাকেন তাও আপনার বেতন বেশি হয়ে থাকবে। 
অস্ট্রেলিয়া কৃষি কাজ করার জন্য অস্ট্রেলিয়া কৃষিকাজের ভিসা আবেদন করার প্রয়োজন হয়। তাই আপনাদের প্রথমেই অস্ট্রেলিয়া কৃষিকাজের ভিসা আবেদন করার নিয়ম সম্পর্কে জানতে হবে। এজন্য আপনাদের কথা বিবেচনা করে আমরা এখন অস্ট্রেলিয়া কৃষিকাজের ভিসা আবেদন করার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে দেয়ার চেষ্টা করব।

অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসা আবেদন

আপনারা যেহেতু অস্ট্রেলিয়া কৃষিকাজের ভিসা আবেদন সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন। এজন্য আমরা আজকের এই অংশে অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসা আবেদন সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব। অস্ট্রেলিয়াতে বিভিন্ন ধরনের কৃষি কাজ করা যায়। আর অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসা আবেদন করার জন্য আপনার বয়স অবশ্যই ১৮ বছরের উপরে হতে হবে। 
এর পাশাপাশি ইংরেজিতে কথা বলার দক্ষতা থাকতে হবে। তাছাড়াও কৃষিকাজে যাদের দক্ষতা রয়েছে তারা এই কাজের জন্য বেশি সুযোগ সুবিধা পেয়ে থাকে। অস্ট্রেলিয়া কৃষিকাজের ভিসা আবেদন করতে হলে আপনাকে প্রথমেই অস্ট্রেলিয়ার কোম্পানির কাছ থেকে চাকরির অফার লেটার পেতে হবে। 

আপনি যদি অস্ট্রেলিয়াতে কৃষি কাজের জন্য কোম্পানি কর্তৃক নিয়োগ হয়ে থাকেন তাহলে এ ভিসা আবেদন করতে পারবেন। তবে চলুন আর কথা না বাড়িয়ে অস্ট্রেলিয়া কৃষিকাজের ভিসা আবেদন করার নিয়ম জেনে নেই।
  • সর্বপ্রথম আপনি অস্ট্রেলিয়া কৃষিকাজের ভিসা আবেদন করার জন্য অস্ট্রেলিয়ার অফিসিয়াল ইমিগ্রেশন ওয়েবসাইটে প্রবেশ করবেন।
  • অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার পর একাউন্ট রেজিস্টার করতে হবে। তারপর আপনি ভিসার জন্য আবেদন করবেন।
  • ভিসা আবেদন করার জন্য আপনাকে এপ্লাই ফর ভিসা অপশনটিতে ক্লিক করতে হবে।
  • এরপর আবেদন ফরমটি সঠিকভাবে সকল তথ্য দিয়ে পূরণ করতে হবে। অবশ্যই আবেদনফ্রমে সঠিক তথ্য প্রদান করতে হবে।
  • অনলাইনে মাধ্যমে আপনি ভিসা আবেদন ফি, আবেদন ফর্ম ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা দিতে পারবেন।
  • আপনার কৃষি কাজের আবেদনটি গ্রহণযোগ্য হলে আপনার ঠিকানাতে কৃষি কাজের ভিসা পাঠিয়ে দেওয়া হবে।
  • আর এই কাজের ভিসা প্রসেসিং হতে অন্তত ছয় থেকে সাত মাস সময় লেগে থাকে। অনেক সময় ভিসা প্রসেসিং তাড়াতাড়ি হয়ে যায়।
এভাবে আপনারা অস্ট্রেলিয়া কৃষিকাজের ভিসা আবেদন করতে পারবেন। আশা করছি আপনারা অস্ট্রেলিয়ার কৃষি কাজের ভিসা আবেদন করার বিস্তারিত নিয়ম সম্পর্কে জানতে পারলেন। আপনারা চাইলে এই ভিসা আবেদন এজেন্সির মাধ্যমে করতে পারেন অথবা পরিচিত কোন অভিজ্ঞ লোক থাকলে তাদের সাহায্য নিয়ে করতে পারেন।

অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসা ২০২৪

আপনারা অনেকেই australia কাজের ভিসা ২০২৪ সম্পর্কে তেমনভাবে জানেন না। এজন্য আমরা এখন অস্ট্রেলিয়া কাজের ২০২৪ সম্পর্কে জানানোর চেষ্টা করব। অস্ট্রেলিয়া কাজের বেশি আবেদন করার জন্য অনেক ধরনের ভিসা রয়েছে। নিম্নে সেই কাজের ভিসা গুলোর নাম তুলে ধরা হলোঃ
  • Employer sponsored visa
  • Working holiday visa
  • General skilled Migration visa
উপরোক্ত ভিসার মাধ্যমে আপনি অস্ট্রেলিয়াতে যেতে পারবেন। কাজের উদ্দেশ্যে যেতে হলে উপরোক্ত যেকোন ভিসাতে আবেদন করতে হবে। তবে বেশি আবেদন করার জন্য আপনার নির্দিষ্ট যোগ্যতা থাকা লাগতে হবে। আপনার কাজের জন্য কোন ভিসাটি ভালো সেটা জানার জন্য অস্ট্রেলিয়ার অফিসিয়াল ইমিগ্রেশন ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন।
General Skilled Migration visa এই ভিসা আবেদন করার জন্য আপনার একটি স্কোর অর্জন করতে হবে। আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা , বয়স , কর্ম অভিজ্ঞতা ,IELTS স্কোর ও অন্যান্য বিষয় বিবেচনা করে পয়েন্ট স্কোর দেওয়া হয়ে থাকে। আপনার পয়েন্ট স্কোর চেক করার জন্য তাদের ওয়েবসাইটের পয়েন্ট স্কোর অপশনে ক্লিক করুন। এবার চলুন ভিসা আবেদন করার নিয়ম জেনে নেই।

অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসা আবেদন নিয়ম

অস্ট্রেলিয়াতে গিয়ে আপনারা বিভিন্ন ধরনের চাকরি করতে পারবেন। আর এজন্য আপনাদের অস্ট্রেলিয়ায় যেতে হবে। আর অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার জন্য কাজের ভিসা আবেদন করতে হবে। আর সেজন্য আমরা এখন অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসা আবেদন নিয়ম সম্পর্কে আলোচনা করব। 
অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসা পেতে হলে আপনার নির্দিষ্ট বিষয়ে যোগ্যতা থাকতে হবে। আপনারা যদি নির্দিষ্ট কাজে যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতা থাকে তাহলে অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসা আবেদন করতে পারবেন। এবার অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসা আবেদন যেভাবে করবেন তার নিয়ম জেনে নেওয়া যাক।
  • আপনার পর্যাপ্ত পরিমাণ পয়েন্ট থাকলে অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসা আবেদন করতে পারবেন। আর আপনার আগে জেনেছেন পয়েন্ট সাধারণত আপনার বয়স ও শিক্ষকতা যোগ্যতা সহ অন্যান্য বিষয়ের উপর নির্ভর করে।
  • অনলাইনে অস্ট্রেলিয়া কাজের বেশি আবেদন করার জন্য তাদের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট এ প্রবেশ করতে হবে।
  • এরপর আপনাকে আবেদন করার জন্য ওয়েবসাইটটিতে একটি একাউন্ট তৈরি করতে হবে। এবার আপনার সামনে আবেদন ফরম আসবে।
  • আপনার প্রয়োজনে ডকুমেন্ট ও শিক্ষাগত যোগ্যতা সহ সকল কিছু আপলোড করতে হবে।
  • ভিসা আবেদন করার জন্য ভিসার জন্য নির্দিষ্ট ফি প্রদান করতে হয়। আপনি সেটি অনলাইনের মাধ্যমে দিয়ে পরিশোধ করতে পারেন। ভিসা ফি প্রদান করা হলেই ভিসা আবেদন প্রক্রিয়ার কার্যক্রম শুরু হবে।
  • তারপর আপনার ভিসা অস্ট্রেলিয়া ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ যাচাই করতে থাকবে। আপনার ভিসা গ্রহণযোগ্য হলে আপনি অস্ট্রেলিয়া কাজের জন্য যেতে পারবেন।
  • আপনার ভিসাটি গ্রহণযোগ্য হয়েছে কিনা সেটা আপনাকে জানিয়ে দেওয়া হবে। ভিসা প্রসেসিং হতে অনেকটা সময় লাগতে পারে। এজন্য আপনারা অবশ্যই অপেক্ষা করবেন।
এভাবে আপনারা অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসা আবেদন করতে পারবেন। আপনি যদি আবেদন করতে না পারেন তাহলে অভিজ্ঞ লোকদের সাহায্য নিতে পারেন। অস্ট্রেলিয়া ভিসা আবেদন করার জন্য অফিসিয়াল ওয়েবসাইটঃ https://immi.homeaffairs.gov.au/

অস্ট্রেলিয়া কৃষি কাজের ভিসা পেতে কি কি প্রয়োজনীয় কাগজ লাগে

অস্ট্রেলিয়া কৃষিকাজের ভিসা পেতে হলে অবশ্যই কিছু ডকুমেন্টের প্রয়োজন হয়। এই প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট ছাড়া ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন না। আপনাকে অবশ্যই প্রয়োজনে ডকুমেন্টগুলো সংগ্রহ করে রাখতে হবে। অস্ট্রেলিয়া কৃষি কাজ করতে হলে তেমন দক্ষতার প্রয়োজন হয় না। তবে দক্ষ ব্যক্তিদের বেশি মূল্যায়ন করা হয়ে থাকে। তবে চলুন আমরা এখন অস্ট্রেলিয়ার কৃষি কাজের ভিসার জন্য প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট সম্পর্কে জেনে নেই।
  • ই পাসপোর্ট অথবা একটি বৈধ পাসপোর্ট থাকতে হবে
  • ইংরেজি ভাষার দক্ষতার সনদপত্র থাকতে হবে।
  • পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট
  • চারিত্রিক সনদপত্র
  • কাজের অভিজ্ঞতার সনদপত্র
  • ভোটার আইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয় পত্র
  • শিক্ষাগত যোগ্যতার সার্টিফিকেট
  • মেডিকেল রিপোর্টের সার্টিফিকেট
  • নিজের ব্যাংক স্টেটমেন্ট ডিটেলস
  • সদ্য তোলা পাসপোর্ট সাইজের ছবি
উপরে দেওয়া প্রয়োজনীয় কাগজগুলো ভিসা করতে প্রয়োজন হয়। তাছাড়া বিভিন্ন কারণে আরও অনেক ধরনের প্রয়োজনীয় কাগজ লাগতে পারে, সেগুলো আপনারা ভিসা অফিস থেকে জেনে নিবেন। আর অবশ্যই ভিসা করার সময় তারাই আপনাকে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট সম্পর্কে বলে দিবে।

অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসায় কি কি কাজ করা যায়

আপনারা এতক্ষণে অস্ট্রেলিয়ার কৃষিকাজ ভিসা সম্পর্কে সকল কিছু জেনেছেন। তবে অনেকেই অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসায় কি কি কাজ করা যায় এ সম্পর্কে ভাল মত জানে না। এজন্য আমরা এখন অস্ট্রেলিয়া কৃষিকাজ কি কি হয়ে থাকে সে সম্পর্কে তুলে ধরবো। অস্ট্রেলিয়াতে সাধারণত বিভিন্ন ধরনের কৃষি কাজ করতে পারবেন। 

তবে আমার মতে আপনার দক্ষতা ও কাজের অভিজ্ঞতা নিয়ে কৃষিকাজ করলে বেশি বেতন পাবেন। সেজন্য আপনি কৃষি কাজ করার আগে অবশ্যই অভিজ্ঞতা ও দক্ষতা অর্জন করে অস্ট্রেলিয়াতে যাবেন। নিম্নে অস্ট্রেলিয়াতে কৃষি ভিসায় কি কি কাজ করা যায় সেগুলো তুলে ধরা হলোঃ
  • ফুল বাগানে কাজ করতে পারবেন
  • ফলের বাগানের বিভিন্ন রকম কাজ করা যায়।
  • কৃষি ইঞ্জিনিয়ার এর কাজ করতে পারবেন।
  • কৃষি টেকনিশিয়ানের কাজ করতে পারবেন। এখানে কৃষি যন্ত্রপাতি যেগুলো রয়েছে সেগুলো মেরামত করা বা দেখাশোনার কাজ করতে পারবেন।
  • গবাদি পশু পাখি দেখাশোনার কাজ করতে পারবেন।
  • তাছাড়াও ক্লিনার ও পরিচ্ছন্নতার কাজ রয়েছে। 
  • খামার পরিষ্কার করার কাজ রয়েছে।
  • বাগানে বিভিন্ন ধরনের কৃষি কাজ করতে পারবেন।
উপরোক্ত কাজ ছাড়াও আরো অনেক ধরনের কাজ আপনারা অস্ট্রেলিয়াতে কৃষি কাজ করতে পারবেন। মূলত আপনার কাজের অভিজ্ঞতা ও দক্ষতার উপর নির্ভর করে কাজ দেওয়া হবে। আপনি যে কাজটি পারেন সেই কাজটি আপনি সেখানে করতে পারবেন। আর আপনার কাজের উপর বেতন নির্ধারণ করা হয়ে থাকে।

অস্ট্রেলিয়া কৃষি কাজের বেতন কত

বর্তমানে অস্ট্রেলিয়াতে কৃষি কাজের জন্য প্রচুর চাহিদা রয়েছে, যার কারণে অস্ট্রেলিয়া প্রতিবছর কৃষিকাজের জন্য প্রচুর শ্রমিক নিয়োগ দিয়ে থাকে। আর এখানে কৃষি কাজের জন্য ভালো একটা বেতন দেওয়া হয়। উচ্চ সম্পদশালী দেশ অস্ট্রেলিয়াতে কৃষি কাজের জন্য বেশি বেতন দেওয়া হয়। আপনার কাজের দক্ষতা ও অভিজ্ঞতার উপর এবং কাজের ধরন অনুযায়ী বেতন কমবেশি হয়ে থাকবে। 

যাদের কাজের অভিজ্ঞতা রয়েছে তারা মাসিক বেশি বেতন পেতে পারেন। অস্ট্রেলিয়াতে কৃষি কাজের জন্য একজন শ্রমিকের বেতন আনুমানিক প্রায় ২ লক্ষ থেকে ছয় লক্ষ টাকা পর্যন্ত দেওয়া হয়ে থাকে। তবে যাদের কাজের দক্ষতা নেই তাদের কম বেতন দেওয়া হয়। তাহলে বুঝতে পারছেন অস্ট্রেলিয়াতে কৃষি কাজ করে আপনি সর্বোচ্চ বেতন পেতে পারেন।

অস্ট্রেলিয়া কৃষি কাজের ভিসা খরচ কত

আপনার অনেকেই অস্ট্রেলিয়া কৃষি কাজের ভিসা খরচ কত এ সম্পর্কে জানতে চেয়েছেন। আমরা এখন অস্ট্রেলিয়া কৃষিকাজের ভিসা খরচ সম্পর্কে কিছু আলোচনা করব। যারা অস্ট্রেলিয়া যেতে চান তাদের অবশ্যই কৃষি ভিসা আবেদন করতে হয়। আর এই ভিসার জন্য ভিসা খরচ রয়েছে। অস্ট্রেলিয়াতে সাধারণত বিভিন্ন ধরনের কৃষি ভিসা রয়েছে। 

সেই ভিসার উপনির্ভর করে প্রত্যেকটির আলাদা খরচ রয়েছে। এখানে কৃষি ভিসা বলতে আপনারা ওয়ার্ক পারমিট ভিসায় অস্ট্রেলিয়া যেতে পারবেন। আপনি যদি সরকারিভাবে কৃষি বিষয় নিয়ে অস্ট্রেলিয়া যেতে চান তাহলে আপনার ভিসার জন্য খরচ হবে প্রায় ৮ লক্ষ থেকে ১৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত। অনেক সময় ৮ লক্ষ টাকার মধ্যে ভিসা খরচ কমপ্লিট হয়ে যায়। 

সেই ক্ষেত্রে অস্ট্রেলিয়াতে আপনার পরিচিত কেউ থাকতে হবে অথবা অস্ট্রেলিয়ার কোন কোম্পানির অফার লেটার থাকতে হবে। তবে আপনি যদি এজেন্সির মাধ্যমে যান তাহলে ভিসা খরচ আরো অনেক বেড়ে যেতে পারে। দালালের মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার প্রয়োজন নেই, কারণ এতে আপনার জীবন ঝুঁকি সম্মুখীন হতে পারে। আর দালালরা বিভিন্ন ধরনের প্রতারণা করে থাকে। 

এজন্য তাদের থেকে সব সময় দূরে থাকবেন। দালালরা বিভিন্ন ধরনের মিথ্যা কথা বলে আপনার কাছ থেকে বেশি টাকা নিয়ে নিতে পারে। তাই আমাদের মতে আপনারা সরকারিভাবে অথবা বিস্বস্ত এজেন্সির মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়া কৃষি কাজ ভিসা নিতে পারেন। 

অস্ট্রেলিয়া লেবার ভিসা

অস্ট্রেলিয়াতে আপনার যারা লেবার কাজ করবেন তাদের অবশ্যই লেবার ভিসায় অস্ট্রেলিয়া যেতে হবে। অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার জন্য লেবার ভিসা রয়েছে। লেবারের কাজ মূলত হলঃ ট্রাক unload করা , কনস্ট্রাকশন কাজ , ইটভাটাই কাজ ইত্যাদি সহ আরো অনেক ধরনের লেবার কাজ রয়েছে। মূলত ভারি জাতীয় কোন কাজ করাই হলো লেবার কাজ। এই কাজ করার জন্য শরীরে শক্তির প্রয়োজন হয়। 

আপনাদের যাদের লেবারের কাজ করার পূর্ণ অভিজ্ঞতা রয়েছে তারা চাইলে অস্ট্রেলিয়াতে লেবারের কাজ করে ভালো বেতনে চাকরি করতে পারেন। আর লেবার ভিসা আবেদন করার জন্য আপনি তাদের অফিসিয়াল ইমিগ্রেশন ওয়েবসাইটে আবেদন করবেন। আর আমরা তো আগেই আবেদন করার নিয়ম সম্পর্কে বলে দিয়েছি। সেখান থেকে আপনারা একই ভাবে এই ভিসা আবেদন করতে পারবেন। যদি নিজে না পারেন তাহলে অভিজ্ঞ ব্যক্তিদের সাহায্য নিন।

অস্ট্রেলিয়া শ্রমিকের বেতন - কাজের বেতন

অস্ট্রেলিয়াতে প্রত্যেক শ্রমিকের আলাদা ধরনের বেতন দেয়া হয়ে থাকে। মূলত কাজের ধরন ও আপনার অভিজ্ঞতা অনুযায়ী বেতন দেওয়া হবে। অস্ট্রেলিয়াতে বিভিন্ন ধরনের কাজ রয়েছে যেখানে প্রচুর বেতন দেওয়া হয়। আপনারা যারা অস্ট্রেলিয়াতে কাজ করতে যাবেন তাদের অবশ্যই অস্ট্রেলিয়ার শ্রমিকের বেতন কত সম্পর্কে জেনে রাখা উচিত। কাজ অনুযায়ী বেতন দেওয়া হয়। চলুন কথা না বাড়িয়ে অস্ট্রেলিয়া শ্রমিকের বেতন কত জেনে নেই।
  • অস্ট্রেলিয়াতে কৃষি কাজ ক্ষেত্রে শ্রমিকদের বেতন আনুমানিক দুই থেকে পাঁচ লক্ষ টাকা দেওয়া হয়ে থাকে।
  • আর কনস্ট্রাকশন কাজগুলোতে শ্রমিকদের বেতন তিন লক্ষ থেকে ৬ লক্ষ টাকা দেওয়া হয়।
  • ডেলিভারি ম্যান কাজের জন্য শ্রমিকের বেতন ৪ লক্ষ থেকে ৭ লক্ষ টাকা দেওয়া হয়।
  • অস্ট্রেলিয়াতে ইলেকট্রিশিয়ান কাজের জন্য শ্রমিকদের বেতন আনুমানিক ৪-৬ লক্ষ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে।
  • আর যারা রেস্টুরেন্টে কাজ করেন তাদের বেতন তিন লক্ষ থেকে ৫ লক্ষ টাকা দেওয়া হয়।
  • ড্রাইভিং কাজের জন্য বেতন সাধারণ ৪-৬ লক্ষ টাকা পর্যন্ত দেওয়া হয়ে থাকে।
তাছাড়াও আরো বিভিন্ন ধরনের কাজ রয়েছে যেগুলো কাজের জন্য অধিক বেতন দেওয়া হয়ে থাকে। আপনারা চাইলে অস্ট্রেলিয়াতে গিয়ে কাজ করে মাসিক ভালো বেতনে চাকরি করতে পারবেন।

অস্ট্রেলিয়া ক্লিনার ভিসা

অস্ট্রেলিয়াতে ক্লিনিং কাজ করার জন্য ক্লিনার ভিসা রয়েছে অর্থাৎ আপনি ক্লিনার ভিসা নিয়ে অস্ট্রেলিয়াতে ক্লিনিং কাজ করতে পারবেন। ক্লিনিং কাজ মূলত পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করার কাজ। আপনি সেখানে গিয়ে রাস্তা পরিষ্কার অথবা অফিস আদালত পরিষ্কার করতে পারবেন। তাছাড়াও হাসপাতাল পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখার কাজে রয়েছে। 
অস্ট্রেলিয়া ক্লিনার ভিসা
অস্ট্রেলিয়াতে ক্লিনার হিসেবে অনেক কাজ রয়েছে যেগুলো আপনারা করে বেশি বেতন পেতে পারেন। আপনারা সেই একইভাবে তাদের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়া ক্লিনার ভিসা আবেদন করতে পারবেন। অস্ট্রেলিয়াতে ক্লিনার কাজের জন্য শ্রমিকের বেতন ২ লক্ষ থেকে ৬ লক্ষ টাকা পর্যন্ত দেওয়া হয়ে থাকে। তাহলে বুঝতে পারছেন ক্লিনার কাজের চাহিদা কতটা হতে পারে।

শেষ কথা

আশা করছি আজকের সম্পূর্ণ পোস্টটিতে আপনারা অস্ট্রেলিয়া কৃষি কাজের ভিসা সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য জানতে পেরেছেন। তাছাড়াও অস্ট্রেলিয়ায় কাজের বেতন কত দেওয়া হয়ে থাকে এ সম্পর্কেও আলোচনা করা হয়েছে। যার ফলে আপনারা এখন অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার পূর্বে কাজের বেতন সম্পর্কে জেনে ভিসা আবেদন করতে পারবেন। ভিসা আবেদন করার জন্য বিশ্বস্ত এজেন্সি অথবা অভিজ্ঞ লোকদের সহায়তা নিবেন। তাছাড়া ও সরকারিভাবে ভিসা আবেদন করতে পারবেন। অরজিনাল ভিসা নিয়ে অস্ট্রেলিয়াতে গেলে আপনারা বিভিন্ন ধরনের সুযোগ সুবিধা পাবেন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি বিডির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url