প্রতি সপ্তাহে ৪০০০ টাকা পর্যন্ত আয় করুন সেরা ৩০টি জনপ্রিয় উপায়ে

প্রিয় বন্ধুরা আপনারা কি প্রতি সপ্তাহে চার হাজার টাকা আয় করতে যাচ্ছেন, তাহলে আপনাকে অবশ্যই প্রতি সপ্তাহে চার হাজার টাকা আয় করার উপায় সম্পর্কে জানতে হবে। তবে আপনারা চিন্তিত হবেন না, কারণ আজকের এই আর্টিকেলটিতে প্রতি সপ্তাহে 4000 টাকা পর্যন্ত আয় করার উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা তুলে ধরা হবে।
প্রতি সপ্তাহে 4000 টাকা পর্যন্ত আয় করুন
আর্টিকেল সূচিপত্রঃআপনারা যদি প্রতি সপ্তাহে চার হাজার টাকা পর্যন্ত আয় করতে চান তাহলে অবশ্যই পোস্টটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়তে থাকুন। কারণ পোস্টটিতে প্রতি সপ্তাহে ফ্রিতে চার হাজার টাকা ইনকাম করার উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরা হবে।

উপস্থাপনা

বর্তমানে অনলাইনে বিভিন্ন ধরনের কাজ করে খুব সহজেই প্রতি সপ্তাহে চার হাজার টাকা পর্যন্ত আয় করা সম্ভব। ঘরে বসে অনলাইনে বিভিন্ন ধরনের কাজ করা যায়, আর সেই কাজ করে ফ্রিতে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। তবে আপনাকে সেই কাজগুলো সম্পর্কে জানতে হবে এবং কাজের বিষয়গুলো সম্পর্কে ধারণা রাখতে হবে। 
অনলাইনে কাজ করার বিভিন্ন উপায় রয়েছে যেগুলো জানার মাধ্যমে আপনি অনলাইনে কাজ করে টাকা আয় করতে পারবেন। বর্তমানে বেশিরভাগ লোকেরা অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করছে। আপনারা চাইলেও ঘরে বসে অনলাইনে টাকা ইনকাম করতে পারেন, তবে সে ক্ষেত্রে আপনাদের টাকা ইনকাম করার উপায় গুলো সম্পর্কে জেনে রাখতে হবে। 
যারা প্রতি সপ্তাহে অন্তত ৪০০০ টাকা পর্যন্ত আয় করতে চান তাদের জন্য এই পোস্টটি হতে যাচ্ছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ এই পোস্টটি পড়ে আপনারা প্রতি সপ্তাহে 4000 টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারবেন। তবে চলুন আর কথা না বাড়িয়ে প্রতি সপ্তাহে আয় করার বিভিন্ন উপায়গুলো জেনে নেই।

প্রতি সপ্তাহে 4000 টাকা পর্যন্ত আয় করুন সেরা ৩০ টি উপায়ে

আপনারা যারা শিক্ষার্থীরা রয়েছেন তারা অনেকেই ঘরে বসে অনলাইনে প্রতি সপ্তাহে চার হাজার টাকা পর্যন্ত আয় করার উপায় সম্পর্কে খুঁজে থাকেন। তাদের জন্য আমরা আজকের এই অংশে প্রতি সপ্তাহে 4000 টাকা আয় করার সহজ ৩০টি উপায় তুলে ধরার চেষ্টা করব। আপনারা এই উপায় গুলো জেনে সঠিকভাবে কাজ করে প্রতি সপ্তাহে অন্তত ৪০০০ টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারবেন। তবে চলুন এবার সেই উপায়গুলো জেনে নেই।
  • কন্টেন্ট রাইটিং
  • ডিজিটাল মার্কেটিং
  • ভিডিও এডিটিং
  • ইউটিউব চ্যানেল
  • ফেসবুক পেজ
  • অনলাইন কোর্স
  • গ্রাফিক্স ডিজাইন
  • ওয়েবসাইট ডিজাইন
  • টিকটক ভিডিও
  • ফেসবুক রিলস
  • ওয়েবসাইট এসইও
  • ডাটা এন্ট্রি
  • কপিরাইটিং
  • অ্যানিমেশন তৈরি করা
  • ট্রানসলেশন সেবা
  • ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট
  • অনলাইন সার্ভে 
  • শিক্ষকতা করে
  • রিসেলিং ব্যবসা
  • ফটোগ্রাফি করে
  • মোবাইল সার্ভিসিং দোকান
  • ফ্লেক্সিলোড ব্যবসা
  • কোমল পানীয় দোকান
  • পশুপাখি পালন
  • Instagram একাউন্ট খুলে আয়
  • ফুলের দোকান
  • আউটসোর্সিং করা
  • ওয়েবসাইট তৈরি
  • সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট
  • অনলাইন ব্যবসা
আপনারা উপরের দেখানো ৩০ টি উপায় থেকে প্রতি সপ্তাহে চার হাজার টাকার পর্যন্ত আয় করতে সক্ষম হবেন। তবে শুধু আপনাদের এই ৩০ টি উপায় সম্পর্কে জেনে সঠিক নিয়মে উপায় গুলো অবলম্বন করতে হবে, তাহলে আপনি প্রতি সপ্তাহে কমপক্ষে দুই হাজার থেকে চার হাজার টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারবেন। তাই চলুন আর দেরি না করে উপরের দেখানো ৩০টি উপায়গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেই।

১। কন্টেন্ট রাইটিং করে প্রতি সপ্তাহে আয়

আপনি প্রতি সপ্তাহে চার হাজার টাকা ইনকাম করার জন্য নিজের ওয়েবসাইটে কনটেন্ট রাইটিং করতে পারেন। তাছাড়াও কনটেন্ট রাইটিং সম্পর্কে জানলে অন্য জনের ওয়েবসাইটে কনটেন্ট রাইটিং করে খুব সহজেই প্রতি সপ্তায় চার হাজার টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারবেন। কনটেন্ট রাইটিংকে মূলত  ব্লগ পোস্ট বলা হয়ে থাকে। আপনি যদি খুব সহজেই অনলাইন থেকে ইনকাম করতে চান তাহলে কনটেন্ট রাইটিং হচ্ছে আপনার জন্য সেরা মাধ্যম। কনটেন্ট রাইটিং করে ইনকাম করতে চাইলে এই পোস্টটিতে একটি কমেন্ট করুন।

২। ডিজিটাল মার্কেটিং করে প্রতি সপ্তাহে ইনকাম

ডিজিটাল মার্কেটিং সেক্টরে কাজ করে খুব সহজে অনলাইন থেকে প্রতি সপ্তাহে 4000 টাকা পর্যন্ত আয় করুন। ডিজিটাল মার্কেটিং মূলত হল বিভিন্ন পণ্যের প্রচার প্রচারণা করা। ডিজিটাল পদ্ধতিতে কোন পণ্যর প্রচার করাকে ডিজিটাল মার্কেটিং বলা হয়ে থাকে। বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে কোন পণ্যর প্রচার ও ব্যান্ড ভ্যালু বাড়ানোকে ডিজিটাল মার্কেটিং বলা হয়। আপনি বিভিন্ন কোম্পানির সাথে ডিজিটাল মার্কেটিং কাজের জন্য চুক্তি করতে পারেন। এতে করে আপনি প্রতি সপ্তাহে ভালো পরিমাণ একটা ইনকাম করতে পারবেন।

৩। ভিডিও এডিটিং করে টাকা ইনকাম

বর্তমানে ভিডিও এডিট করেও অনলাইনে ইনকাম করা যায়। আপনি নিজের ভিডিও বানিয়ে সেটি এডিট করে বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসের বিক্রি করতে পারেন। আবার অন্য কারোর ভিডিও এডিট করে দেয়ার মাধ্যমে টাকা ইনকাম করা যায়। তাছাড়া নিজের ভিডিও এডিট করে বিভিন্ন প্লাটফর্মে আপলোড করে অনলাইন থেকেই টাকা উপার্জন করা যায়। মূলত ভিডিও এডিট অথবা ভিডিও বানিয়ে যেকোনো পদ্ধতিতে আয় করা সম্ভব। এভাবে আপনি ভিডিও এডিট করে প্রতি সপ্তাহে ৪০০০ টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারবেন।

৪। ইউটিউব চ্যানেল থেকে টাকা ইনকাম

অনলাইন থেকে আয় করার খুব সহজ মাধ্যম হলো ইউটিউব চ্যানেল খোলা। আপনি ইউটিউব চ্যানেল খুলে সেখানে ভিডিও বানিয়ে টাকা আয় করতে পারেন। youtube এর নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে ভিডিও বানিয়ে ভিজিটর বাড়ালে মনিটাইজেশন পেতে পারেন। 
আর মনিটাইজেশন পেলে আপনি youtube থেকে ইনকাম করতে পারবেন। ইউটিউব থেকে আয় করার জন্য আপনার ভিডিও ইউনিক হতে হবে, অর্থাৎ কপি ভিডিও থাকা যাবে না। আপনি এভাবেই ইউটিউব চ্যানেল থেকেই প্রতি সপ্তাহে অনেক টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারবেন।

৫। ফেসবুক পেজ থেকে আয় করুন

আপনার নিজস্ব একটি ফেসবুক পেজ থাকলে, সেই ফেসবুক পেজ ব্যবহার করে আপনি টাকা ইনকাম করতে পারেন। আপনার ফেসবুক পেজে যদি অনেক ফলোয়ার থাকে তাহলে আপনি সেই ফেসবুক পেজ ব্যবহার করে বিভিন্ন কোম্পানির পণ্য ও পরিষেবা প্রচার করতে পারেন। 
এভাবে আপনি বিভিন্ন কোম্পানির সাথে চুক্তি করে তাদের পণ্য প্রচার বা প্রমোশন করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। বর্তমানে কোম্পানিগুলো বেশিরভাগ ক্ষেত্রে তাদের পণ্য প্রচারের জন্য ফেসবুক মাধ্যম ব্যবহার করে থাকে। তাই আপনি এই উপায়টিকে কাজে লাগিয়ে প্রতি সপ্তাহে ৪০০০ টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারেন।

৬। অনলাইন কোর্স করিয়ে টাকা ইনকাম

আপনি যদি কোন বিষয়ে পারদর্শী হয়ে থাকেন তাহলে সেটি আপনি অনলাইনে পেইড কোর্স করিয়ে টাকা ইনকাম করতে পারেন। বর্তমানে বেশিরভাগ মানুষ অনলাইনে কোর্স করতে পছন্দ করে থাকে। কারণ এখন খুব সহজে অনলাইন এর মাধ্যমে কোর্স করে কোন বিষয়ে সম্পর্কে শেখা যায়। আপনার যদি কোন বিষয়ে অভিজ্ঞতা ও দক্ষতা থাকে তাহলে সেটি আপনি অনলাইনে শেখাতে পারেন। 
আপনার কোর্সের নির্দিষ্ট ভিডিও বানিয়ে সেটি আপনি অনলাইনে বিক্রি করতে পারেন। এতে করে অন্যরা আপনার কোর্স কম দামে কিনতে পারল এবং আপনি সেখান থেকে টাকা ইনকাম করতে পারলেন। এভাবে খুব সহজে অনেক টাকা আয় করতে পারবেন।

৭। গ্রাফিক্স ডিজাইন করে প্রতি সপ্তায় আয়

বর্তমান সময়ে ফ্রিল্যান্সিং সেক্টরে গ্রাফিক্স ডিজাইন খুব একটি জনপ্রিয় কাজ। গ্রাফিক্স ডিজাইন কাজ করে খুব সহজেই অনলাইন থেকে প্রতি সপ্তায় চার হাজার টাকার বেশি আয় করা যায়। কারণ আজকাল কোম্পানিগুলো তাদের প্রচার করার জন্য বিভিন্ন ধরনের ব্যানার ও অ্যাড বানিয়ে থাকে। আর এইসব ব্যানার ও অ্যাড বানানোর জন্য গ্রাফিক ডিজাইনারদের প্রয়োজন হয়। যার ফলে তারা গ্রাফিক ডিজাইনারদের নিয়োগ দেয়। এভাবে আপনি বিভিন্ন কোম্পানির সাথে অথবা মার্কেটপ্লেসে গ্রাফিক্স ডিজাইন করে ভালো পরিমাণ ইনকাম করতে পারবেন।

৮। ওয়েবসাইট ডিজাইন করে টাকা ইনকাম

আপনারা ওয়েবসাইট ডিজাইন করেও টাকা ইনকাম করতে পারবেন। একটি ওয়েবসাইটের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো তার ডিজাইন। তাই আপনারা ওয়েবসাইট ডিজাইনের অংশে কাজ করতে পারেন। যারা ওয়েবসাইট ডিজাইন করতে পারেন অর্থাৎ ওয়েব ডেভলপার তারা এই কাজগুলো করে খুব সহজেই প্রতি সপ্তাহে অন্তত ৪০০০ টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারবেন। এভাবে ওয়েব ডিজাইন করে প্রতি সপ্তাহে 4000 টাকা পর্যন্ত আয় করুন।

৯।টিকটক ভিডিও থেকে টাকা ইনকাম

আপনি tiktok ভিডিও বানিয়ে টাকা ইনকাম করতে পারেন। তবে আপনি এখানে সরাসরি ভিডিও বানিয়ে টিকটক থেকে ইনকাম করতে পারবেন না। আপনি শুধুমাত্র টিকটকে বিভিন্ন পণ্যর প্রচার করার মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। অর্থাৎ আপনার যদি একটি ভালো ফলোয়ার যুক্ত টিকটক একাউন্ট থাকে, তাহলে সেই একাউন্টে আপনি বিভিন্ন পণ্যের প্রমোশন করার মাধ্যমে টাকা আয় করতে পারবেন। এজন্য আজকাল বেশিরভাগ মানুষ tiktok থেকে ইনকাম করার জন্য ভিডিও বানিয়ে থাকে। আপনারাও ট্রাই করে দেখতে পারেন।

১০। ফেসবুক রিলস থেকে প্রতি সপ্তাহে আয়

বর্তমানে ফেসবুকে রিলস বানিয়ে অনলাইন থেকে ইনকাম করা যাচ্ছে। ফেসবুক কোম্পানি রিলিস ভিডিও থেকে ইনকাম করার পদ্ধতি চালু করেছে। আপনার ছোট ছোট সব ভিডিও অথবা রিলস বানানোর মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। বর্তমানে সকলেই কমবেশি এই উপায়টিতে প্রচুর টাকা আয় করছে। আপনারাও চাইলে ফেসবুকে রিলস থেকে প্রচুর টাকা আয় করতে পারেন।

১১। ওয়েবসাইট এসইও করে টাকা ইনকাম

এসইও হলো সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন। বর্তমান বিশ্বে এই কাজটির চাহিদা প্রচুর রয়েছে। যতদিন যাচ্ছে এসিও চাহিদা বেড়েই চলেছে। এসইও করে ওয়েবসাইটকে রাঙ্ক করানো যায়। আপনার এসইও সম্পর্কে দক্ষতা থাকলে আপনি সেই এসইও করার মাধ্যমে প্রতি সপ্তায় চার হাজার টাকারও বেশি আয় করতে পারবেন। বর্তমানে মার্কেটপ্লেসগুলোতে ওয়েবসাইট এসইও করার কাজ রয়েছে, আপনারা চাইলে সেই কাজগুলো করে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে পারেন।

১২। ডাটা এন্ট্রি থেকে প্রতি সপ্তাহে আয়

অনলাইন থেকে ইনকাম করার সবচেয়ে সহজ উপায় হল ডাটা এন্টি করা। আপনি ডাটা এন্টির কাজ করে খুব সহজে অনলাইন থেকে প্রতি সপ্তাহে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। ডাটা এন্ট্রির কাজ মূলত বিভিন্ন সোর্স থেকে তথ্য সংগ্রহ করে কম্পিউটারে সংরক্ষণ করা। 

আপনার টাইপিং স্পিড ভালো হলে এই কাজটি ভালো করতে পারবেন। বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিংয়ে ডাটা এন্টির কাজটি খুবই জনপ্রিয়। ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গুলোতে আপনি ডাটা এন্টির কাজ করতে পারেন। সেখানে আপনারা তাদের নির্দেশনা অনুযায়ী ডাটা এন্ট্রি করে প্রচুর টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

১৩। কপিরাইটিং করে টাকা ইনকাম

আপনি কপির রাইটিং কাজ করার মাধ্যমে অনলাইনে ঘরে বসে ইনকাম করতে সক্ষম হবেন। কপিরাইটিং মূলত হলো বিভিন্ন প্রোডাক্টের প্রমোশনের জন্য লেখালেখির কাজ। বিভিন্ন কোম্পানির প্রোডাক্ট প্রমোশনের জন্য লেখালেখি করতে হয় আর তাকেই কপিরাইটিং বলা হয়। এই পণ্যের লেখাগুলো বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচার করে মানুষকে পণ্য সম্পর্কে জানানো যায় এবং সেটি কেনার জন্য উদ্বুদ্ধ করে। এভাবে কপিরাইটিং কাজ করে ইনকাম করতে পারেন।

১৪। অ্যানিমেশন তৈরি করে প্রতি সপ্তাহে ইনকাম

বর্তমানে এনিমেশন ভিডিওর প্রচুর চাহিদা রয়েছে। বিভিন্ন কোম্পানিগুলো এনিমেশন এর মাধ্যমে তাদের পণ্যর প্রচার করে থাকে। বিশেষ করে বিভিন্ন এনিমেশন এড বানিয়ে তারা এই কাজটি করে থাকে। আপনি যদি এনিমেশন তৈরিতে এক্সপার্ট হয়ে থাকেন তাহলে এই কাজটি করতে পারেন। তাছাড়া এনিমেশন বানিয়ে নিজের ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করে টাকা আয় করতে পারেন।

১৫। ট্রানসলেশন সেবা দিয়ে ইনকাম

অনলাইনে ট্রান্সলেশন পরিষেবা দিয়ে ভালো টাকা ইনকাম করা যায়। ট্রানসলেশন হলো মূলত ভাষার অনুবাদ করা। এই ট্রান্সলেশন কাজ আপনি বিভিন্ন প্লাটফর্মে করতে পারবেন। ট্রানসলেশন সেবা দিয়ে আপনি প্রতি সপ্তাহে কমপক্ষে ৪০০০ টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারবেন। আপনারা বিভিন্ন ওয়েবসাইট অথবা কোম্পানির প্রচার পরিষেবা করার জন্য translating এর কাজ করতে পারেন। বর্তমানে কোম্পানিগুলো তাদের বিষয় সম্পর্কে জানানোর জন্য ট্রান্সলেশন সেবা দিয়ে থাকে।

১৬। ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট করে টাকা আয়

আপনি বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ার অথবা কোম্পানির ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট হয়ে কাজ করতে পারেন। বিভিন্ন ব্যবসা ও সংগঠনের কার্যক্রম পরিচালনা করার জন্য ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট এর প্রয়োজন হয়। এখানে ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট এর কাজ হল ক্লায়েন্টের উত্তরে দেওয়া , বিভিন্ন তথ্য নেওয়া ও সংগঠনিক সেবা প্রদান করা। আপনারা চাইলে এই কাজটি করে প্রতি সপ্তাহে ভালো পরিমান অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

১৭। অনলাইন সার্ভে করে প্রতি সপ্তাহে আয় করুন

আমরা বিভিন্ন ওয়েবসাইটে প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার মাধ্যমে অনলাইন সার্ভে করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। তবে এখানে আপনাকে অনেক প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়, এই সার্ভে করে আপনি সামান্য পরিমাণ টাকা ইনকাম করতে পারেন। তবে যারা পেইড সার্ভে করেন তাদের ক্ষেত্রে প্রতি সপ্তাহে অন্তত ৪০০০ টাকার বেশি আয় করতে পারবেন। আমার মতে আপনারা অবশ্যই ফ্রিতে সার্ভে করে টাকা ইনকাম করবেন।

১৮। শিক্ষকতা করে টাকা ইনকাম করার উপায়

আপনি অনলাইন অথবা অফলাইনে শিক্ষকতা করে টাকা ইনকাম করতে পারেন। বর্তমানে এই শিক্ষকতা বিষয়টি খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। আর এই শিক্ষকতা খুব সহজে অনলাইনের মাধ্যমে করা যায়। আপনি যদি কোন পাঠ্য বিষয়ে জ্ঞান অর্জন করে থাকেন এবং সেই বিষয়টি নিয়ে আপনি শিক্ষকর্তা করতে পারেন। শিক্ষকতা করার জন্য কোন দক্ষতার প্রয়োজন নেই, আপনার কাজ হলে স্টুডেন্টদের পড়ানো এবং তাদের পড়া বোঝানো। এভাবে আপনি শিক্ষকতা করেই প্রতি সপ্তাহে চার হাজার টাকার বেশি আয় করতে পারবেন।

১৯। রিসেলিং ব্যবসা করে টাকা ইনকাম

বর্তমানে সহজে টাকা ইনকাম করে অন্যতম উপায় হলো রিসেলিং ব্যবসা। আপনারা কম টাকায় প্রোডাক্ট কিনে সেটি বেশি টাকায় বিক্রি করতে পারেন, আর এটি হল রিসেলিং ব্যবসা। এই ব্যবসা কম পুঁজিতেই করা যায়। যাদের কম পুজি তারা চাইলে এই ব্যবসা করতে পারেন। আপনারা কম টাকা দিয়ে কোম্পানির কাছ থেকে অনেক পণ্য কিনে সেটি লাভবান দামে বিক্রি করে ইনকাম করতে পারেন। তাছাড়া ও পুরাতন জিনিস ক্রয় করে সেটি সামান্য লাভে বিক্রি করে টাকা ইনকাম করতে পারেন। এই রিসেলিং ব্যবসা করে অনেকেই লাভবান হচ্ছে।

২০। ফটোগ্রাফি করে টাকা আয় করার উপায়

আপনি ফটোগ্রাফি করার মাধ্যমে টাকা ইনকাম করার বিষয়টি ভাবতে পারেন। ফটোগ্রাফি সেকশন থেকে ইনকাম করতে চাইলে আপনাকে অবশ্যই ছবি তোলাতে এক্সপার্ট হতে হবে। আপনাদের মধ্যে অনেকে আছে যারা ছবি তুলতে ভালোবাসেন এবং ছবি তোলাতে এক্সপার্ট, তারা চাইলে ছোটখাটো ছবি তোলার দোকান দিতে পারেন। 
প্রতি সপ্তাহে ৪০০০ টাকা পর্যন্ত আয়
বর্তমানে বিয়ে বাড়িগুলোতে ফটোগ্রাফি করার জন্য ফটোগ্রাফারদের খোঁজা হয়ে থাকে। আপনারা সেই বিয়ে বাড়িতে ফটোগ্রাফি করে একদিনেই চার হাজার টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারবেন। তাছাড়া বিভিন্ন ফটোগ্রাফি কনটেস্টে যোগ দেয়ার মাধ্যমে ক্যাশ রিওয়ার্ড নিতে পারেন।

২১। মোবাইল সার্ভিসিং দোকান থেকে ইনকাম

বর্তমান সময়ে মোবাইল সার্ভিসিং ব্যবসা খুবই জনপ্রিয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। কারণ প্রতিদিন অনেক মানুষের মোবাইল ফোন কোন না কোন কারণে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। যার কারণে তারা মোবাইল ফোনগুলো রিপিয়ার করার জন্য মোবাইল সার্ভিসের দোকানে যেয়ে থাকে। আপনি বাজারে ছোট একটি মোবাইল সার্ভিসের দোকান দিয়ে প্রতি সপ্তাহে ৪০০০ টাকা পর্যন্ত ইনকাম করতে পারবেন। তবে সেক্ষেত্রে আপনাকে মোবাইল ফোন সার্ভিস কাজ সম্পর্কে দক্ষতা থাকতে হবে।

২২। ফ্লেক্সিলোড ব্যবসা করে প্রতি সপ্তাহে আয়

প্রতি সপ্তায় চার হাজার টাকা ইনকাম করার অন্যতম উপায় হল ফেক্সিলোড ব্যবসা। বর্তমানে সিমে রিচার্জ ও এমবি তোলার জন্য অনেকেই ফেক্সিলোড করে থাকে। আর ফ্লেক্সিলোড করার জন্য দোকানে যেতে হয়। আপনি ফ্লেক্সিলোডের দোকান দিয়ে প্রতি সপ্তাহে 4000 টাকা আয় করতে পারেন। তাছাড়া আপনি সিম কেনা বেচার ব্যবসা করতে পারেন। আপনি কোম্পানির কাছ থেকে নির্দিষ্ট কম দামে সিম কিনে সেগুলো বিক্রি করতে পারেন।

২৩। কোমল পানীয় দোকান থেকে আয়

বর্তমানে এই গরমের সময়ে মানুষজন বেশিরভাগ ঠান্ডা কমল পানীয় খেতে পছন্দ করে। আপনারা এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে রাস্তার পাশে কোমল পানির দোকান দিতে পারেন। এই ব্যবসা করে অনেকেই প্রচুর টাকা লাভ করছে। তাই আপনি যদি প্রতি সপ্তাহে চার হাজার টাকা পর্যন্ত ইনকাম করতে চান তাহলে এই কমল পানির ব্যবসা করতে পারেন।

২৪। পশুপাখি পালন করে আয়

আপনি কম পুজিতেই পশুপাখি পালন করে টাকা আয় করতে পারেন, ধরুন আপনি একটি ছোট মুরগির খামার দিলেন। সেই খামারে মুরগি লালন পালন করে এবং মুরগির বাচ্চা উৎপাদন করে বিক্রি করে লাভবান হতে পারবেন। তাই আমি বলব আপনার যদি প্রতি সপ্তাহে ভালো টাকা ইনকাম করতে চান তাহলে মুরগির খামার অথবা পশু পাখি পালন করতে পারেন।

২৫। Instagram একাউন্ট খুলে আয়

বর্তমানে ইনস্টাগ্রাম একাউন্ট খুলে ইনকাম করা যাচ্ছে। অনেক সেলিব্রেটি রয়েছে যারা ইনস্টাগ্রাম একাউন্টে পোস্ট করার মাধ্যমে ইনকাম করে থাকে। আপনারা চাইলে instagram এ ফলোয়ার সংখ্যা বাড়িয়ে ইনকাম করতে পারেন। ইনস্টাগ্রামে বিভিন্ন প্রোডাক্ট এর রিভিউ করে আয় করা যায়। আপনি কোম্পানির প্রোডাক্ট এর প্রমোশন ইনস্টাগ্রামে করতে পারেন। তাছাড়াও বর্তমানে শোনা যাচ্ছে instagram এ পোস্ট ও ভিডিও করে ও আয় করা যায়।

২৬। ফুলের দোকান থেকে ইনকাম

আমি রাস্তার পাশে ছোট একটি ফুলের দোকান দিয়েও প্রতি সপ্তাহে চার হাজার টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারবেন। বর্তমানে ফুলের চাহিদা রয়েছে, কারণ বর্তমানে মানুষ গিফট দেওয়ার জন্য ফুল ব্যবহার করে থাকে। আপনি সেই ফুলের দোকান দিয়ে ফুলের গিফট প্যাক বানাতে পারেন। ফুলের দোকান দিয়ে মাসে অতি সহজেই বিশ হাজার টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারবেন।

২৭। আউটসোর্সিং করে ইনকাম

আপনারা চাইলে আউটসোর্সিং করে ইনকাম করতে পারেন। আউটসোর্সিং মূলত ফ্রিল্যান্সারদের কাজ দেওয়ার মার্কেটপ্লেস, অর্থাৎ ফ্রিল্যান্সাররা যেই মার্কেটপ্লেস এ কাজ করবে সেই মার্কেটপ্লেসগুলো পরিচালনা করার কাজই হলো আউটসোর্সিং। আউটসোর্সিং করতে হলে সকল বিষয়ে অভিজ্ঞতা ও জ্ঞান থাকতে হবে। বিশেষ করে ফ্রিল্যান্সিং বিষয়গুলো সম্পর্কে ধারণা রাখতে হবে।

২৮। ওয়েবসাইট তৈরি করে আয় করুন

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করে সেটি বিক্রি করার মাধ্যমে ইনকাম করতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রে আপনি প্রতি সপ্তাহে ইনকাম করতে পারবেন না। ওয়েবসাইট তৈরি করে সেটি আপনি বিক্রি করে মাসে ৩০০০০ টাকা পর্যন্ত ইনকাম করতে পারবেন। তবে নিজের ওয়েবসাইট থাকলে সেখানে আর্টিকেল লেখার মাধ্যমে প্রতি সপ্তাহে চার থেকে পাঁচ হাজার টাকা আয় করতে পারেন।তবে এক্ষেত্রে আপনাকে আর্টিকেল রাইটিং এ এক্সপার্ট হতে হবে। এভাবে আপনি ওয়েবসাইট তৈরি করে প্রতি সপ্তাহে 4000 টাকা পর্যন্ত আয় করুন।

২৯। সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট করে ইনকাম

আপনি সোশ্যাল মিডিয়াতে বিভিন্ন পেজ অথবা ফেসবুক গ্রুপ মডারেট করে ইনকাম করতে পারবেন। অনেক বড় বড় গ্রুপ ও পেজ রয়েছে যারা ফেসবুক পেজ পরিচালনা করার জন্য মডারেটর নিয়োগ দিয়ে থাকে। আপনারা তাদের সাথে যোগাযোগ করে মডারেটর হিসেবে কাজ করতে পারেন। আপনি এখানে দিনে চার থেকে পাঁচ ঘন্টা টাইম দিয়েই ইনকাম করতে পারবেন। আপনার কাজ হবে শুধু ফেসবুক পেজ অথবা গ্রুপ পরিচালনা করা।

৩০। অনলাইন ব্যবসা করে ইনকাম 

আপনার অনলাইনে যেকোনো ধরনের ব্যবসা করে সফলতা অর্জন করতে পারেন। বর্তমানে বেশিরভাগ মানুষ অনলাইনে অর্ডার করতে পছন্দ করে থাকে। কারণ অনলাইনে অর্ডার করলে পণ্য ডেলিভারি ঘরে বসে পাওয়া যায়। এখন আর দোকানে গিয়ে মানুষ তেমন একটা প্রোডাক্ট কিনতে পছন্দ করে না, অনলাইনে পছন্দ হলেই সেগুলো অর্ডার করে দেয়। তাই আপনি এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে অনলাইন ব্যবসা করে খুব সহজে প্রতি সপ্তাহে ৪০০০ টাকা আয় করতে পারবেন।

প্রতি সপ্তাহে টাকা আয় করার জনপ্রিয় মাধ্যম

আপনি প্রতি সপ্তাহে বিভিন্ন উপায়ে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। প্রতি সপ্তাহে টাকায় করার দুটি মাধ্যম রয়েছে। প্রথমত আপনি অনলাইনের মাধ্যমে প্রতি সপ্তাহে টাকা ইনকাম করতে পারবেন, আর দ্বিতীয়তঃ আপনি অফলাইনে বিভিন্ন কায়িক পরিশ্রমের মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আপনারা অনলাইনে ঘরে বসে আয় করতে পারেন, 

আর যারা অনলাইনে আয় করতে পারেন না তারা চাইলে শরীরের কায়িক পরিশ্রমের মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারেন। বিভিন্ন কোম্পানিতে কাজ করার জন্য চাকরি দেওয়া হয়ে থাকে, আপনারা চাইলে সেখানে অফলাইনে কাজ করতে পারেন। চলুন আমরা প্রতি সপ্তাহে টাকা আয় করার জনপ্রিয় কিছু মাধ্যম জেনে নেই।

অনলাইন ট্রেডিং করে ইনকাম

বর্তমানে কমবেশি সকলেই অনলাইনে ফরেক্স ট্রেডিং করে প্রচুর টাকা ইনকাম করছে। তবে ট্রেডিং করার জন্য দক্ষতা ও জ্ঞান থাকতে হয়। যদি আপনি না জেনে বুঝে ট্রেডিং করেন তাহলে এখানে আপনি অনেক টাকা লস খেতে পারেন। আর যদি আপনি ট্রেডিং এ এক্সপার্ট হয়ে থাকেন তাহলে আপনি এখান থেকে প্রতি সপ্তাহে কমপক্ষে 4000 টাকারও বেশি আয় করতে পারবেন। 

আর এই ট্রেডিং করে অনেকেই মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয় করছে। বর্তমানে সবচেয়ে জনপ্রিয় ট্রেডিং সাইড হলো বাইনান্স। এটি একটি ট্রেডিং প্লাটফর্ম সাথে এখানে বিভিন্ন ধরনের ভার্চুয়াল কারেন্সি এক্সচেঞ্জ করা যায়।

পুরাতন জিনিস কয় বিক্রয় করে ইনকাম

আপনি পুরাতন মালামাল ও পুরাতন জিনিস কিনে ক্রয় বিক্রয়ের কাজ করতে পারেন। আপনি নির্দিষ্ট দামে পুরাতন জিনিস কিনে সেটি বেশি দামে বিক্রি করে টাকা আয় করতে পারবেন। বর্তমানে এই ব্যবসাটি খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। বেশিরভাগ ইলেকট্রনিক্স আইটেম গুলোতে এই ব্যবসা করা হচ্ছে। বিশেষ করে অনেকে বর্তমানে পুরাতন মোবাইলের দোকান দিয়ে প্রচুর টাকা আয় করছে। আপনারা চাইলে পুরাতন মোবাইলের দোকান দিয়ে ইনকাম করতে পারেন।

অনলাইন ডেলিভারি করে ইনকাম

অনেকে বর্তমানে অনলাইন ডেলিভারির কাজ করছে। যাদের হাতে পর্যাপ্ত সময় রয়েছে তারা চাইলে অনলাইন ডেলিভারি ম্যান এর কাজ করতে পারেন। এখানে টাকার পরিমাণ কম হলেও খুব সহজে টাকা আয় করা যায়। ডেলিভারি ম্যান এর কাজ হবে বিভিন্ন ধরনের প্রোডাক্ট কাস্টমারদের কাছে ডেলিভারি দেওয়া। তাছাড়া বর্তমানে ফুড ডেলিভারির চাহিদা বৃদ্ধি পেয়েছে। 

তাই আপনারা ফুড ডেলিভারি ম্যান এর কাজ করতে পারেন। ফুড ডেলিভারি ম্যান কাজ করার জন্য ফুডপান্ডা এর সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। তাছাড়া বিভিন্ন কোম্পানি ডেলিভারি ম্যান নিয়োগ দিয়ে থাকে, সেখানে আপনি জব করতে পারেন।

প্রতি সপ্তাহে টাকা আয় করার অনলাইন ভিত্তিক ওয়েবসাইট

আপনি প্রতি সপ্তাহে 4000 টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারেন কিছু অনলাইন ভিত্তিক ওয়েবসাইটে কাজ করার মাধ্যমে। বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য বিভিন্ন ধরনের অনলাইন ভিত্তিক ওয়েবসাইট রয়েছে যেখানে কাজ করে আপনি প্রতি সপ্তাহে ৪ হাজার টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারবেন। নিচে প্রতি সপ্তাহে টাকা আয় করা ওয়েবসাইটের নাম তুলে ধরা হলোঃ
  • upwork
  • workupplace
  • fiver
  • Youtube
  • Google Opening Rewards
  • Google Adsense
  • instragram
  • Facebook
উপরে দেখানো ওয়েবসাইটগুলোতে আপনারা ফ্রিল্যান্সিং কাজ করে প্রতি সপ্তাহে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। তাই দেরি না করে এখনই কাজ করা শুরু করে দিন।

প্রতি সপ্তাহে টাকা আয় করার মোবাইল apps 

আপনি কিছু মোবাইল অ্যাপস নামিয়ে সেখান থেকে প্রতি সপ্তাহে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। যাদের কম্পিউটার বা ল্যাপটপ নাই তারা খুব সহজে মোবাইল ফোনের মাধ্যমেই অ্যাপসগুলো নামিয়ে টাকা করতে পারবে। নিম্নে প্রতি সপ্তাহে টাকা আয় করার মোবাইল অ্যাপস গুলো সম্পর্কে তুলে ধরা হলোঃ
  • Uber Driver App
  • Cash app
  • Pocket Money Apps
  • Shop Up Reseller App
  • Bikash Apps
  • My Point Apps
  • Food panda apps
  • Daraz apps
  • Amazon apps
উপরের দেওয়া অ্যাপস গুলো আপনারা মোবাইল ফোনের নামিয়ে বিভিন্ন কাজ করার মাধ্যমে প্রতি সপ্তাহে চার হাজার টাকার বেশি আয় করতে পারবেন।

শেষ কথা

আশা করছি আপনারা আজকের এই সম্পূর্ণ পোস্টটিতে প্রতি সপ্তাহে 4000 টাকা পর্যন্ত আয় করার বিভিন্ন উপায় সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। তাছাড়াও প্রতি সপ্তাহে চার হাজার টাকায় করার সহজ উপায় তুলে ধরা হয়েছে। আপনারা যদি মনোযোগ সহকারে আর্টিকেলটি পড়েন তাহলে নিশ্চয়ই বুঝতে পারবেন কিভাবে বলতে সপ্তাহে ৪০০০ টাকা পর্যন্ত আয় করা যায়। 

আপনি ছোট ছোট ব্যবসা করে অথবা অনলাইনে কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রে অনেক কাজের জন্য দক্ষতার প্রয়োজন হয়। তাই আমার মতে আপনি যদি স্থায়ীভাবে অনলাইন থেকে টাকা আয় করতে চান তাহলে অবশ্যই সৃজনশীলতা ও দক্ষতার সহিত কাজ করে যাবেন। আর কাজ করার পূর্বে অবশ্যই বিষয়গুলো সম্পর্কে পরিপূর্ণ ধারণা ও জ্ঞান রাখবেন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি বিডির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url